Scores

রাজ্জাককে ‘দুর্ভাগা’ বলছেন খোদ নির্বাচকরাই

যতদিন দলে ছিলেন, অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়েই ছিলেন। ২০১৪ সাল পরবর্তী সেই ‘বিচ্ছেদ’ ঘটার পর স্বয়ং আব্দুর রাজ্জাকও এখনো খুঁজে পাননি দল থেকে বাদ পড়ার কারণ। ঘরোয়া ক্রিকেটে এখনো দাপটের সাথে পারফর্ম করে যাওয়া এই ক্রিকেটারের জাতীয় দলের বাইরে থাকার ব্যাখ্যায় নির্বাচকরাও জানালেন- রাজ্জাক দুর্ভাগা!

রাজ্জাককে 'দুর্ভাগা' বলছেন খোদ নির্বাচকরাই

সম্প্রতি বিডিক্রিকটাইম এর লাইভ আড্ডায় হাজির হয়েছিলেন দুই নির্বাচক এবং সাবেক অধিনায়ক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু ও হাবিবুল বাশার সুমন। অনুষ্ঠানে যুক্ত হন রাজ্জাকও। এ সময় রাজ্জাকের উপস্থিতিতেই দুই নির্বাচক জানান রাজ্জাকের দলে না থাকা বা দল থেকে বাদ পড়ার কারণ।

Also Read - ডিপিএল ও বিশ্বকাপ না হলে বিপিএল দিয়েই ফিরবে ক্রিকেট






প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেন, ‘জাতীয় দলে কিছু জায়গায় কিছু খেলোয়াড় প্রতিষ্ঠিত হয়ে যায়, এরপর তাদের জায়গায় ঘরোয়া ক্রিকেটের ভালো পারফর্মারকে আনা কঠিন হয়ে যায়; যদি না ঐ প্রতিষ্ঠিত খেলোয়াড় চোটে পড়ে বা খেলতে না চায়। প্রতিষ্ঠিত একজন খেলোয়াড় ভালো খেলতে থাকলে ঐ জায়গায় পরিবর্তন আনা কঠিন হয়ে যায়। এজন্যই এই গ্যাপ হচ্ছে। অনেক বছর পর (২০১৮ সালে) আমরা কিন্তু রাজ্জাককে টেস্ট দলে নিয়েছিলাম। এখনো সে ঘরোয়া ক্রিকেটের অন্যতম সেরা বোলার।’ 

বাশারও মনে করেন, বদলে যাওয়া টিম কম্বিনেশনের কারণেই বলি হতে হয়েছে রাজ্জাকের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারকে। রাজ্জাকের মত অভিজ্ঞ ও নিয়মিত পারফর্মারের দলের বাইরে থাকাকে দুর্ভাগ্য বলেই মনে করেন তিনি।






বাশার বলেন, ‘একটা সময় আমরা ৩ জন স্পিনার নিয়ে খেলতাম। রাজ্জাক, সাকিব আল হাসান ও মোহাম্মদ রফিককে নিয়ে আমরা সফলও ছিলাম। সাধারণত ৩ জন বাঁহাতি স্পিনার নিয়ে কেউ টেস্ট খেলে না। এরপর কম্বিনেশনের জন্য সোহাগ গাজী আসলো। অন্যদিকে সাকিব তো দলে আছেই। কম্বিনেশন খুঁজতে গিয়ে, টিম ম্যানেজমেন্টের চাহিদা পূরণ করতে গিয়ে বাঁহাতির বাইরে অন্য কিছু খুঁজতে হয়েছে। এদিক থেকে বলব রাজ্জাক কিছুটা দুর্ভাগা, এত ভালো করার জন্য সুযোগ হচ্ছে না। সে যতদিন খেলছিল ভালোই পারফর্ম করছিল। তারপরও আমরা একটি টেস্টে ওকে খেলিয়েছি। আর এখনো ঘরোয়া ক্রিকেটে ২-৩ ইনিংস পর পর ৫ উইকেট করে পাচ্ছে।’ 

২০০৪ সালে অভিষেকের পর দলে নিজেকে থিতু করতে বেশি সময় নেননি। টেস্টে নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে না পারলেও একদিনের ক্রিকেটে তিনি বাংলাদেশের কিংবদন্তিতুল্য স্পিনার। যদিও ২০১৪ সালের ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্র সফরের পর আর রঙিন পোশাক গায়ে চাপানো হয়নি। নিয়মিত একজন পারফর্মারের এমন দশা অবাক করেছে সবাইকেই।

সব মিলিয়ে রাজ্জাক নিজেও নিজেকে দুর্ভাগা বলেই মনে করেন। বাস্তবতা মেনে নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমারও নিজের কাছে নিজেকে দুর্ভাগাই মনে হয়। ভাগ্য পক্ষে ছিল না- এছাড়া আর কিছু না। আমি যখন দল থেকে বাদ পড়ি, তখন দলই ভালো করতে পারছিল না। আমি একাই খারাপ করেছি এমন কিন্তু নয়। দলের মধ্যেও আমি অন্যতম সেরাই ছিলাম। হয়ত প্রত্যাশা অনুযায়ী পারফরম্যান্স ছিল না। দলের কৌশলও বদলেছে। সবসময় তো একরকম কৌশল বা পরিকল্পনা থাকে না।’

দুই নির্বাচকের সাথে বিডিক্রিকটাইম এর লাইভ আড্ডা দেখুন-

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 

Related Articles

আমি জোকার হতে চাই না : রাজ্জাক

বাংলাদেশকে গোণায়ই ধরছিলেন না ভারতীয় ক্রিকেটাররা

দল থেকে বাদ পড়ার কারণ আজও জানেন না রাজ্জাক

রাজ্জাকের ক্যারিয়ারে একটাই আক্ষেপ, একটাই ক্ষোভ

সাকিব-রাজ্জাকদের ভবিষ্যৎ ভেবেই অবসর নেন রফিক