Scores

রেকর্ড গড়ে রাবাদার ২০০

টেস্ট ক্রিকেটে দুইশ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ডানহাতি পেস বোলার কাগিসো রাবাদা। করাচিতে প্রথম টেস্টে পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে তিন উইকেট শিকার করে দুইশ উইকেট পূরণ করেন রাবাদা। 

রেকর্ড গড়ে রাবাদার ২০০

দলীয় ৩২৩ রানের মাথায় পাকিস্তানের হাসান আলিকে বোল্ড করেন রাবাদা। এটিই ছিল টেস্টে তার ২০০ তম শিকার।  কমপক্ষে ২০০ উইকেট শিকার করা বোলারদের মাঝে সেরা স্ট্রাইক রেট এখন রাবাদার। ৪৪ টেস্টে ২০০ উইকেট শিকার করা রাবাদার বোলিং স্ট্রাইক রেট ৪০.৮। অর্থাৎ প্রতি উইকেট শিকারের জন্য গড়ে ৪০.৮ টি করে বল করতে হয়েছে রাবাদাকে।

Also Read - পরবর্তী গেইল বা পোলার্ড হলেন আফিফ : ও'ব্রায়েন


কমপক্ষে ২০০ উইকেট শিকারীদের মধ্যে সেরা স্ট্রাইক রেটের বোলারদের তালিক্য রাবাদার পরে রয়েছেন আরেক প্রোটিয় বোলার ডেল স্টাইন। রাবাদা ও ডেল স্টেইনের বোলিং স্ট্রাইক রেটের ব্যবধান ২.৫। ৪২.৩ স্ট্রাইক রেটে স্টেইন ৯৩ টেস্টে শিকার করেছেন ৪৩৯ উইকেট।

স্টেইনের পর এ তালিকায় আছেন ওয়াকার ইউনুস। পাকিস্তানের সাবেক এ পেসারের স্ট্রাইক রেট ৪৩.৪। টেস্টে তার উইকেটসংখ্যা ৩৭৩।

এছাড়া কম দিনে ২০০ উইকেট ছোঁয়ার রেকর্ডেও ডেল স্টেইনকে টপকে গিয়েছেন কাগিসো রাবাদা। ৫ বছর ৮৫ দিনে টেস্টে ২০০ উইকেট নিলেন রাবাদা। দক্ষিণ আফ্রিকার বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে কম দিনে ২০০ উইকেট শিকারের রেকর্ডটা শন পলকের। ৫ বছর ৪৮ দিনে এ মাইলফলক স্পর্শ করেছিলেন তিনি। এরপরেই এখন রাবাদার নাম। ডেল স্টেইন যখন ২০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেন তখন তার ক্যারিয়ারের বয়স ৫ বছর ১৭৫ দিন।

করাচি টেস্টে প্রথম ইনিংসে ২২০ রান করে অলআউট হয় দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাব দিতে নেমে স্বাগতিক ফাওয়াদ আলমের ১০৯ রানের ইনিংসের সুবাদে পাকিস্তান করেছে ৩৭৮ রান। দক্ষিণ আফ্রিক্রা হয়ে তিনটি করে উইকেট নিয়েছেন রাবাদা ও কেশব মহারাজ। প্রথম ইনিংসে ১৫৮ রানের বড় লিড পেয়েছে পাকিস্তান। দ্বিতীয় ইনিংসে এখন ব্যাট করছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

Related Articles

বিশ্বকাপে খেলার সম্ভাবনা নিয়ে মুখ খুললেন ডি ভিলিয়ার্স

ব্যর্থতার সব দায়ভার নিজের কাঁধে নিলেন বাউচার

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের মিডল অর্ডারে মালিককে চান আফ্রিদি

জিম্বাবুয়ের টি-টোয়েন্টি দলে ‘৩’ নতুন মুখ

ওয়াহর তোলা ছবি জিতল উইজডেনের বর্ষসেরার খেতাব