গাপটিলের জীবনের ‘সেরা’ এবং ‘নিকৃষ্ট’ দিন

0
748

২০১৫ বিশ্বকাপে মার্টিন গাপটিল ছিলেন আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। ২০১৯ বিশ্বকাপে এসে তার চওড়া ব্যাটের দেখা মিলল না। তবে দল ঠিকই পৌঁছে গেল ফাইনালে।

Advertisment

যদিও ফাইনালে তিনিই কারো কারো চোখে বনে গেলেন খলনায়ক। ক্রিকেট প্রেমিদের মতে, ক্রিকেটের ইতিহাসের সবচেয়ে রোমাঞ্চকর ম্যাচটিই দেখা গেছে এবারের ফাইনালে। নির্ধারিত ওভারে ম্যাচ টাই হওয়ার পর টাই হয় সুপার ওভারও। বাউন্ডারির গণনায় ইংল্যান্ডকে চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ঘোষণা করা হয়, কিন্তু হারেনি নিউজিল্যান্ডও!

সেই বিশ্বকাপের এক সপ্তাহেরও বেশি সময় পেরিয়ে গেছে, তা যেন বিশ্বাসই হচ্ছে না গাপটিলের। কিউই এই ক্রিকেটার জানিয়েছেন, লর্ডসে অনুষ্ঠিত ১৪ জুলাইয়ের ফাইনাল ম্যাচটি একইসাথে তার জীবনের সেরা এবং নিকৃষ্ট দিন!

সম্প্রতি টুইট বার্তায় গাপটিল বলেন, ‘অবিশ্বাস্য ফাইনালটির পর এক সপ্তাহেরও বেশি পার হয়ে গেল, বিশ্বাসই হচ্ছে না। আমি মনে করি এটা আমার ক্রিকেট জীবনের সবচেয়ে ভালো এবং একইসাথে সবচেয়ে বাজে দিনটি ছিল। ভিন্ন ধরণের আবেগের ছড়াছড়ি… তবে নিউজিল্যান্ডকে প্রতিনিধিত্ব করতে পারি বলে আসলে আমি গর্বিত।’

গাপটিলের ওভারথ্রো বেন স্টোকসের ব্যাটে লেগে ইংল্যান্ড পায় ৬ রান। যদিও সেখানে আম্পায়াররা ৫ রান দেওয়ার কথা। বিতর্কিত ঘটনাটির সূত্রপাত গাপটিলের হাত ঘুরে আসা বলেই। সুপার ওভারের শেষ বলে কাঙ্ক্ষিত ২ রান নিতে পারেননি গাপটিল। তার আক্ষেপ সেটি নিয়েও।

তিনি বলেন, ‘দ্বিতীয় রান নিতে পারিনি আমি। আউট হওয়ার পর বাকরুদ্ধ হয়ে যাই। কিছুই ভালো লাগছিল না আমার।’

প্রথমবারের মত বিডিক্রিকটাইম নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশ এবং সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বল বাই বল লাইভ স্কোর, এবং সাম্প্রতিক নিউজ সহ সবকিছু এক মুহূর্তেই পাবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অনলাইন পোর্টাল BDCricTime এর অ্যাপে। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে সার্চ করুন BDCricTime অথবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।