Scores

লাইভঃ ফিরলেন আকবর, জয়ের জন্য প্রয়োজন ৩৪ রান

অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপের প্রথম সেমি-ফাইনালে ভারতের দেয়া ১৭৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করছে বাংলাদেশ। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত টাইগারদের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৩৯ রান। ৩৬তম ওভারের খেলা শেষ। ৪২ রানে ব্যাট করছেন শামিম হোসেন ও মৃত্যঞ্জয় শূন্য রানে।

 

গুরুত্বপূর্ণ ৪৫ রানে বিদায় নেন আকবর আলী; @বিডিক্রিকটাইম

 

ভারতের দেয়া মাঝারি টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের তৃতীয় ওভারে প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। দলীয় ৭ রানে ২ রান করে বিদায় নেন সাজিদ। ২১ রানের মাথায় বিদায় নেন আরেক ওপেনার প্রান্তিক নাবিল। তিনি করেছেন ৬ রান। এরপর মাহমুদুল হাসান জয়ের সাথে জুটি গড়েন অধিনায়ক তৌহিদ হৃদয়। এই জুটিতে শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে উঠার চেষ্টা করছিল বাংলাদেশ। এর মাঝে ১২তম ওভারের শেষ বলে ২৫ রান করা জয়কে ফেরান দেসাই।

Also Read - ঢাকার কাছে হেরে গেল চট্টগ্রাম

এরপর বেশিক্ষণ টিকেন নি অধিনায়ক তৌহিদ হৃদয়। আউট হয়েছেন মাত্র ৮ রানে। ৬৫ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে হারের শঙ্কা জাগা বাংলাদেশকে ধ্বংসস্তূপ থেকে উদ্ধার করার  দায়িত্ব নেন শামিম হোসেন ও উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান আকবর আলী। দুই ব্যাটসম্যান গড়ে তোলেন মহাগুরুত্বপূর্ণ ৭৪ রানের জুটি। তবে দলীয় ১৩৯ রানে হার্শের বলে ৪৫ রান করে আউট হোন আকবর আলী। এরপর ক্রিজে এসেছেন অলরাউন্ডার মৃত্যঞ্জয় চৌধুরী। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জয়ের জন্য ৮৪ বলে টাইগারদের প্রয়োজন ৩৪ রান, হাতে আছে ৪ উইকেট।

এর পূর্বে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সকালে টসে জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন ভারতের অধিনায়ক সিমরান সিং। তবে সূচনাটা ভালো হয় নি। দলীয় ৩ রানে প্রথম উইকেট হারায় ভারত। বাংলাদেশের বামহাতি পেসার শরিফুল ইসলামের বলে উইকেট রক্ষক আকবর আলির হাতে ১ রানে ক্যাচ দিয়ে আউট হোন পারিক্কাল।

এরপর ওপেনার যশসভী জয়সওয়ালের সাথে ৬৬ রানের জুটি গড়েন অনুজ রায়াত। দলীয় ৬৯ রানের মাথায় স্পিনার রিশাদ হোসেনের বলে জয়সওয়াল বোল্ড হলে এই জুটি ভাঙ্গে। ৬৯ বলে ৩৭ রান করেছিলেন তিনি। এই উইকেট পতনের সাথে সাথে ভারতের ইনিংসে মারাত্মক ধস নামে। মাত্র ৮ রানে ৪ উইকেট হারায় ভারত। দলটির অধিনায়ক সিমরান সিং শূন্য রানে রিশাদ হোসেনের বলে লেগ বিফোর উইকেটের ফাঁদে পড়ে সাজঘরে ফিরেন।

বাংলাদেশ-ভারত সেমিফাইনালের এক মুহূর্ত; @বিডিক্রিকটাইম

ধসের পরে ৫৩ রানের জুটি গড়ে লজ্জার হাত থেকে ভারতকে বাঁচান আয়ুস বাদনী ও সামির চৌধুরী। ৩৯ বলে ২ ছক্কায় ২৮ রান করা বাদনীকে আউট করে এই জুটি ভাঙ্গেন মিনহাজুর রহমান। এরপর বেশিক্ষণ টিকতে পারেন সামির চৌধুরীও। ৬৭ বলে ৩৬ রান করেন তিনি। সামিরকে ফিরিয়ে ম্যাচের দ্বিতীয় উইকেট দখল করেন শরিফুল। এরপর ৮ রান করা হার্শ তিয়াগীকেও ফিরিয়েছেন এই বামহাতি পেসার।

টেইল এন্ডাররা খুব বেশি অবদান রাখতে না পারায় ৪৯.৩ ওভারে ১৭২ রানেই গুটিয়ে যায় ভারত। বাংলাদেশের পক্ষে ১০ওভার বোলিং করে মাত্র ১৬ রানে তিনটি উইকেট নিয়েছেন শরিফুল ইসলাম। এছাড়া অধিনায়ক তৌহিদ হৃদয় ৩ ওভারে মাত্র ৪ রানে ২টি ও মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী ২৭ রানে ২টি ও রিশাদ হোসেন ৩৬ রানে ২টি উইকেট নেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
ভারতঃ ১৭২/১০ (৪৯.৩ ওভার)
যশসভী জয়সওয়াল ৩৭, আয়ুস বাদনী ৩৬, অনুজ রায়াত ৩৫
শরিফুল ৩/১৬, তৌহিদ ২/৩, মৃত্যুঞ্জয় ২/২৭, রিশাদ ২/৩৬

টার্গেটঃ ১৭৩

 

 

[আরও পড়ুনঃতিন সপ্তাহেই ফিরবেন মাশরাফি; দেবাশীষের প্রত্যাশা]

Related Articles

‘অলআউট’ দলের কেউ নিতে পারেননি ১ রানও!

পাকিস্তান ক্রিকেটের ‘ভবিষ্যৎ’ এবার ইউনিসের হাতে

বড় টার্গেটে ব্যাট করছে বাংলাদেশ

যুবাদের নৈপুণ্যে হোয়াইটওয়াশ ইংল্যান্ড

এক ম্যাচ হাতে রেখেই যুবাদের সিরিজ জয়