Scores

লিটনের এই ‘গুণ’ নিজের মাঝেও পান না তামিম

লিটন দাসের খেলা যারা মনোযোগ দিয়ে দেখেছেন, তারা স্পষ্ট করে তার ব্যাটিংয়ে কিছু পরিবর্তন বের করতে পারবেন। অন্তত গত এক বছরে। মূলত পরিবর্তন ব্যাটিংয়ে নয়, মানসিকতায়। বঙ্গবন্ধু বিপিএল ও জিম্বাবুয়ে সিরিজে দারুণ করা এই ওপেনার জানিয়েছেন, কীভাবে তিনি ব্যাটিংকে নতুন রূপ দিয়ে সাফল্য পেয়েছেন।

জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করেই মাশরাফির নেতৃত্বের ইতি

লিটনের দাবি, দ্রুত শুরুর চেয়ে দেখেশুনে ধীরে শুরুর মানসিকতাই তার ব্যাটিংয়ে পরিবর্তন এনেছে। আর এর শুরুটা করেছিলেন গত বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের সফরে। ‘নেটে আমি খুব অল্প সময় অনুশীলন করে চলে যাই। কিন্তু অনুধাবন করলাম আমি এটা করে সফল নাও হতে পারি। অন্য কিছু চিন্তা করা উচিৎ।’– বলেন লিটন।

Also Read - তাইজুল ও রিয়াদের কারণে বেঁচে ফিরেছিলেন ক্রিকেটাররা!






লিটন তাই দেশে ফিরে সময় নিয়ে বল খেলার জোর অনুশীলন চালিয়ে যান। এ কাজে তাকে সহায়তা করেন ব্যাটিং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জি। বিশ্বকাপ থেকে শুরু করেন নতুন ছন্দে ব্যাটিং।

লিটন বলেন, ‘এখন অনেক অনুশীলন করি, কত দেরিতে খেলা যায়। দেরিতে খেললে এখন ভিশন অনেক ভালো হয়ে যায়, বল ভালো দেখতে পারি। আমার জন্য ক্রিকেট সহজ হয়ে যায়।‘






অবশ্য তামিম ইকবাল মনে করেন, লিটনের জন্য বাউন্ডারি হাঁকানো শট খেলা অন্য ব্যাটসম্যানদের চেয়েও সহজ। লিটনের উদ্দেশ্যে তার ভাষ্য-

‘আমি তোকে বারবার বলি, অতিরিক্ত কিছু করতে যাস না। অটোমেটিক হবে। আমাকে হয়ত জোর করে মারতে হয় বা বাড়তি ঝুঁকি নিতে হয়। কিন্তু তোর মধ্যে এমন গুণ আছে তুই সাধারণ ক্রিকেটীয় শট খেললেই বাউন্ডারি হয়ে যায়।’

তামিমের এই দাবির পক্ষে সম্মতি জানান মুমিনুল হকও। তিনি মনে করেন, লিটনের ব্যাটিংয়ের এই সহজাত গুণ আছে সৌম্য সরকারেরও, শনিবারের লাইভ আড্ডায় যিনি তামিম-মুমিনুল-লিটনের সঙ্গী ছিলেন।

মুমিনুল বলেন, ‘লিটন চাইলেই যেকোনো সময় চার-ছয় মারতে পারে। সৌম্যও ওর মত।’

অবশ্য লিটনের দাবি, মানসিকতা বদলে সফল হয়েছিলেন তিনি। সহজাত ব্যাটিংয়ের গুণ থাকলেও দেখেশুনে খেলার দীক্ষা নিয়েছেন ম্যাকেঞ্জির কাছ থেকে, যা তাকে বিপিএলে সফল করে তোলে।

লিটন বলেন, ‘বিপিএলে প্রতিবার লক্ষ্য ছিল স্ট্রাইক রেট ভালো রাখা। আগে অনেক সময় দ্রুত ইনিংস শুরু করে মারতে গিয়ে আউট হয়ে গেছি। এবার চিন্তা করেছিলাম, স্ট্রাইক রেট ১২০ এ নামলেও নামুক কিন্তু গড় ভালো করতে হবে। দুই-এক ম্যাচ খেলার পর বুঝতে পারলাম এটা চেষ্টা করলেও হবে না, কারণ আমি শট খেলতে পছন্দ করি এবং খেলবই। তখন ভাবলাম ইনিংসের শুরুতে নতুন বলকে গ্যাপে খেলার চেষ্টা করব, খুব জোরে না খেলে। এটাই কাজে দিয়েছে।’

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

শনিবার থেকে অনুশীলন, কোয়ারেন্টিন শেষে ফিরবেন তামিম

দেশে ফিরেছেন তামিম

ছোটবেলা থেকে পাইলটকে অনুসরণ করতেন সাব্বির

চিকিৎসার জন্য ইংল্যান্ড গেলেন তামিম

চিকিৎসার জন্য ইংল্যান্ড যাচ্ছেন তামিম