Scores

লেগ-স্পিনার দলে না নেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা ঢাকা-রংপুরের

বোর্ডের কাঠিন্যে রীতিমত ভয় পেয়ে গেছেন জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) দলগুলোর ব্যবস্থাপনার সাথে জড়িত অধিনায়ক-কোচ-ম্যানেজাররা। নির্দিষ্ট দুই লেগ স্পিনারকে একাদশে না রাখায় সম্প্রতি চাকরি হারিয়েছেন ঢাকা বিভাগ ও রংপুর বিভাগের কোচ জাহাঙ্গীর আলম ও মাসুদ পারভেজ। এরপর বিষয়টি ক্রমশ জায়গা জুড়ে নিচ্ছে আলোচনার টেবিলে।

রংপুরে লেগ স্পিনার ছিলেন, ঢাকা জানতে চেয়েছিল সুজনের কাছে

লেগ স্পিনারের সংকট কাটিয়ে উঠতে বোর্ড ঘরোয়া ক্রিকেটে লেগ স্পিনারদের গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলছে। কিন্তু ভালো মানের লেগ স্পিনারের সংখ্যাও যে খুব বেশি- এমনও তো নয়। দেশের লেগ স্পিনারদের মধ্যে যারা প্রথম সারিতে রয়েছেন, তাদেরও অনেক সময় দলগুলো একাদশে নিতে চায় না। কারণ, জেতার জন্য তো মাঠে নামে সব দলই!

Also Read - রোহিতের রেকর্ডের ফুলঝুরির পর কোণঠাসা প্রোটিয়ারা






স্কোয়াডে থাকা সত্ত্বেও এনসিএলের প্রথম দুই রাউন্ডে জায়গা হয়নি জুবায়ের হোসেন লিখনের। ঢাকার কোচকে তলব করার ঘণ্টা দুয়েকের মধ্যেই আসে বরখাস্তের খবর। রংপুরের স্কোয়াডেই জায়গা হয়নি রিশাদ হোসেনের। বোর্ড বলছে- তাকে একাদশে খেলাতেই হবে। কেন একাদশে নেওয়া হল না- এজন্য ঢাকার কোচের পথ মাড়িয়ে বরখাস্ত রংপুরের কোচও।

তবে দুই দলই তাদের পক্ষে কথা বলার মত যথেষ্ট যুক্তি দাঁড় করাতে পারছে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গেই। ঢাকাকে লেগ স্পিনার রাখার কথা বলেছিলেন বোর্ড পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন। দ্বিতীয় রাউন্ডের আগে একাদশ সম্পর্কে মতামত জানতে সুজনকে ফোন করা হয়। তিনি সাড়া না দেওয়ায় টিম কম্বিনেশন অনুযায়ী লিখনকে না রেখেই একাদশ সাজায় ঢাকা।






রংপুর নিজেদের আরও ভালোভাবে ‘নির্দোষ’ দাবি করতে পারে। তাদের একাদশে ছিলেন তানবীর হায়দার, যিনি মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান হিসেবে খ্যাতি পেলেও একইসাথে লেগ স্পিনিং অলরাউন্ডার। জাতীয় দলের জার্সি গায়েও খেলেছেন। তাকে দলে রাখার পর রিশাদ বা আরেকজন লেগ স্পিনারের প্রয়োজনীয়তা বোধ হওয়ার কথাও নয়। তৃতীয় রাউন্ডে রিশাদকে জায়গা দিতে গেলে হয়ত কপাল পুড়বে তানবীরের। প্রসঙ্গত, এই দলে আছেন বাঁহাতি অফ স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপুও।

দুই দলেরই দাবি- কম্বিনেশন সাজানোর ক্ষেত্রে ম্যানেজার বা কোচরা লেগ স্পিনার রাখতে অনাগ্রহী থাকেন। কারণ বাংলাদেশের লেগ স্পিনাররা অফ স্পিনারদের চেয়ে অপেক্ষাকৃত কম কার্যকরী। লেগ স্পিনারদের গুরুত্ব দিতে গেলে অফ স্পিনাররা পিছিয়ে পড়েন কি না- সেই প্রশ্নও উঠছে স্বাভাবিকভাবেই। অথচ রাজ্জাক-সাকিবদের পর ভালো মানের অফ স্পিনারও যে উঠে এসেছে কম!

লিখন ও রিশাদকে দলে না নেওয়ায় দুই কোচকে বরখাস্ত করর বিষয়টিকে ‘নেতিবাচক চর্চা’ হিসেবে দেখছেন ক্রিকেট অঙ্গনের অনেকে। বেশিরভাগের অভিমত, লেগ স্পিনার বের করে আনার জন্য বিসিবি যে প্রক্রিয়া অবলম্বন করছে, তা আরও গোছালো ও পরিকল্পিত হতে পারত। শুধু এনসিএলেই নয়। বিপিএলেও প্রতি একাদশে দেশি লেগ স্পিনার খেলানো বাধ্যতামূলক করার পরিকল্পনা চলছে। বিদেশি গণমাধ্যমে এই বিষয়টি ফলাও করে প্রচার করা হয়েছে। হবেই তো- ‘নিয়ম’টা অদ্ভুত ঠেকছে যে!

জাতীয় লিগের আটটি দলের কোচ, ম্যানেজার ও অধিনায়করা আপাতত তটস্থ থাকছেন। বোর্ড থেকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে- প্রতিটি ম্যাচের একাদশে দুইজন পেসার ও একজন লেগ স্পিনার বাধ্যতামূলক। এনসিএল শুধুই প্রস্তুতি বা নিজেদের সমৃদ্ধ করার মঞ্চ নয়। এখানে জয়-পরাজয় বা দলীয়ভাবে ভালো করার ব্যাপারটিও মাথায় থাকে। তবে টিম ম্যানেজমেন্টের সদস্যরা এখন যেন একটু চাপেই আছেন। অন্তত দুই কোচকে ছাঁটাই করার পর ‘বলীর পাঠা’ হওয়ার ইচ্ছা নেই কারো।

একটি সংবাদমাধ্যমকে তো ঢাকার দলনেতা নাদিফ এমনও বললেন- প্রয়োজনে নিজে না খেলে হলেও একজন লেগ স্পিনার দলে রাখবেন!

প্রথমবারের মত বিডিক্রিকটাইম নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশ এবং সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বল বাই বল লাইভ স্কোর, এবং সাম্প্রতিক নিউজ সহ সবকিছু এক মুহূর্তেই পাবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অনলাইন পোর্টাল BDCricTime এর অ্যাপে। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে সার্চ করুন BDCricTime অথবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

Related Articles

ব্যাটে-বলে জাতীয় লীগের সেরা ক্রিকেটার

ব্যাট হাতে জাতীয় লিগের সেরা পাঁচে নাসির

জাতীয় লিগের প্রথম স্তরে উঠে এল সিলেট

মাঠের ভেতর সতীর্থকে পেটালেন শাহাদাত

এনসিএলে চার ড্রয়ের দিনে আলো ছড়ালেন যারা