Score

শতক হাঁকালেন শামসুর রহমান

জাতীয় ক্রিকেট লিগের শেষ ম্যাচে ১২১ রানের এক দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন ঢাকা মেট্রোর শামসুর রহমান শুভ। শামসুর রহমানের শতকের সুবাদে ৬ উইকেটে ২৬১ রান করে ঢাকা মেট্রো। চট্টগ্রাম বিভাগকে লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় ২৪৬ রানের। চট্টগ্রাম বিভাগ রান তাড়ার ঝুঁকি না নিলে ম্যাচ ড্র হয়।

শতক হাঁকালেন শামসুর রহমান
শতক হাঁকালেন শামসুর রহমান

৩ উইকেটে ৯৬ রান নিয়ে শেষদিনে মাঠে নামে ঢাকা মেট্রো। ক্রিজে ছিলেন শামসুর রহমান এবং মোহাম্মদ আশরাফুল। দিনের শুরুটা দারুণভাবে সামাল দেন দুজন। তাদের জুটিতে বেশ শক্ত জায়গায় চলে যায় ঢাকা মেট্রো। তাদের ১০১ রানের জুটি ভাঙেন শাখাওয়াত হোসেন। ৪৩ রানের ইনিংস খেলে মোহাম্মদ আশরাফুল দলীয় ১৮৬ রানের মাথায় বিদায় নেন পিনাক ঘোষের হাতে ক্যাচ দিয়ে।

Also Read - জিম্বাবুয়ের কাছে হারবে বাংলাদেশ, ভাবেননি তামিম

আসিফ আহমেদ রান আউট হলে আসিফ ও শামসুরের জুটি দীর্ঘ হয়নি। ১৪ রান করে আসিফ রান আউট হলে ভেঙে যায় ২৫ রানের জুটি। অপর প্রান্তে থাকা শামসুর রহমান তুলে নেন প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারের পঞ্চদশ শতক। শরীফুল্লাহকে সাথে নিয়ে ৪২ রানের জুটি গড়েন শামসুর রহমান। ১২১ রান করা শামসুর রহমান ফিরেন রান আউট হয়ে। ১০ টি চার ও ২ টি ছকাক দিয়ে দারুণ এ ইনিংসকে সাজান শামসুর রহমান।

আবু হায়দারকে সাথে নিয়ে শরীফুল্লাহ আরো ৮ রান যোগ করার পর ইনিংস ঘোষণা করে ঢাকা মেট্রো।  চট্টগ্রাম বিভাগের লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৪৫ রান। তাদের হাতে ছিল ৫৬ ওভার। তবে জয়ের দিকে না ছুটে দেখেশুনেই খেলতে থাকে চট্টগ্রাম বিভাগের ব্যাটসম্যানরা।

বল হাতে ইনিংসের সূচনা করেন মোহাম্মদ আশরাফুল। শুরুরদিকে দ্রুতগতিতেই রান তুলছিল চট্টগ্রাম বিভাগ। তবে ওপেনিং জুটিকে বড় হতে দেননি আবু হায়দার রনি। এ বাঁহাতি পেসারের বলে ওপেনার সাদিকুর রহমান ক্যাচ দেন সাদমান ইসলামের হাতে। দলীয় ২৬ রানের মাথায় বিদায় নেন সাদিকুর রহমান। ২ চার ও ১ ছক্কায় ১৭ রান করেন প্রথম ইনিংসে শতক হাঁকানো ওপেনার সাদিকুর রহমান।

দ্বিতীয় উইকেটের জুটিতে পিনাক ঘোষ ও ইরফান শুক্কুর ৯১ বলে ৫০ রান তুলেন। ২৬ রানের ইনিংস খেলেন পিনাক ঘোষ। দলীয় ৭৬ রানের মাথায় মোহাম্মদ আশরাফুলের বলে ফিরে যান পিনাক। এরপর ইরফান শুক্কুর ও তাসামুল হক মিলে যোগ করেন ২৬ রান। অর্ধশতকের পথে এগিয়ে যেতে থাকা ইরফান শুক্কুরকে থামান আসিফ হোসেন। ৬২ বল মোকাবেলা করে ৪৪ রান করেন ইরফান শুক্কুর। তার ইনিংসে ছিল ৪ টি চার ও ১ টি ছক্কা।

এরপর তাসামুল হক ও সাজ্জাদুল হক মিলে যোগ করেন আরো ৩৭ রান। ২৬ রান করে আসিফ হোসেনের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন সাজ্জাদুল হক। ইয়াসির আলি ব্যাটিংয়ে নামার একটু পরেই দুই দলের সম্মতিতে ম্যাচ ড্র করা হয়। ইয়াসির আলি ১ রান করে এবং তাসামুল হক ২৬ রান করে অপরাজিত ছিলেন। বল হাতে দুই উইকেট শিকার করেন আসিফ হোসেন। একটি করে উইকেট লাভ করেন মোহাম্মদ আশরাফুল এবং আবু হায়দার রনি।

এর আগে কক্সবাজারে দ্বিতীয় স্তরের এ ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং কতে নামে ঢাকা মেট্রো। মার্শাল আইয়ুবের ১১০ রানের সুবাদে প্রথম ইনিংসে ৩২৮ রান করে ঢাকা মেট্রো। বোলিংয়ে চার উইকেট শিকার করেন নাঈম হাসান। তিন উইকেট পান শাখাওয়াত হোসেন। জবাব দিতে নেমে ৩৪৫ রান করে চট্টগ্রাম বিভাগ। প্রথম ইনিংসে ১৭ রানের লিড পায় চট্টগ্রাম বিভাগ। ব্যাট হাতে ১০১ রান করেন সাদিকুর রহমান। এছাড়া পিনাক ঘোষ ৭৬ এবং ইয়াসির আলি খেলেন ৬৪ রানের ইনিংস।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ ঢাকা মেট্রো ৩২৮/১০, প্রথম ইনিংস, ১০৮.১ ওভার
মার্শাল ১১০, শরীফুল্লাহ ৪০, আজমির ৩৫
নাঈম ৪/৯৮, শাখাওয়াত ৩/১০৫

চট্টগ্রাম বিভাগ ৩৪৫/১০, প্রথম ইনিংস, ১১৩.২ ওভার
সাদিকুর ১০১, ইয়াসির ৬৪, পিনাক ৭৬
আবু হায়দার ৪/৯৭,  অনিক ৩/৬৪

ঢাকা বিভাগ ২৬১/৬, ডিক্লেয়ার্ড,  দ্বিতীয় ইনিংস, ৬২ ওভার
শামসুর ১২১, আশরাফুল ৪৩, আজমির ২০
শাখাওয়াত ২/৭৫, ইরফান ১/৪৭

চট্টগ্রাম বিভাগ ১৪১/৪, দ্বিতীয় ইনিংস, ৪১ ওভার
ইরফান ৪৪, তাসামুল ২৬*
আসিফ ২/২৯, আশরাফুল ১/৩২


আরো পড়ুনঃ  ঢাকা টেস্ট নয়, তামিমের চোখ উইন্ডিজ সিরিজে


 

Related Articles

মুমিনুলের শতকে সহজে জিতল চট্টগ্রাম

তাসকিন-নাঈমের পাঁচ, জাকির-রাজিনের অর্ধশতক

বোলিংয়ে উজ্জ্বল তাসকিন, ব্যাট হাতে লড়ছেন তাসামুল

মুমিনুলকে ফেরালেন আশরাফুল

‘বাংলাদেশ এখন বিশ্বের সেরা পাঁচ-ছয়টি দলের একটি’