শান্ত’র কণ্ঠে ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ না ছাড়ার আক্ষেপ

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ব্যাটসম্যানদের হাপিত্যেশ যেন হয়ে উঠেছে নিয়মিত চিত্র। একইসাথে অবশ্য বোলারদের নৈপুণ্যও প্রশংসনীয়। সুপার লিগে বোলারদের দাপটের এমনই এক ম্যাচ উপহার দিল আবাহনী লিমিটেড ও গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স।

আবাহনী বনাম গাজী গ্রুপ

Advertisment

তারকায় ঠাসা দুই দলের হাই ভোল্টেজ ম্যাচে আবাহনী পেয়েছে ১ উইকেটের কষ্টার্জিত জয়। ৪৯ বলে ৫৯ রান করে আবাহনীর জয়ের নায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। দলের অন্য ব্যাটসম্যানরা যেখানে উইকেটে থিতু হতেই পারছিলেন না, শান্ত সেখানে ধৈর্য ধরে গড়ে দিয়েছেন জয়ের ভিত।

তবে জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়তে পারেননি বলে ম্যাচ শেষে একটু আক্ষেপও ধরা পড়ল শান্ত’র কণ্ঠে। তিনি বলেন, ‘টি-টোয়েন্টিতে এমন ম্যাচ হতেই পারে। অবশ্যই চাপ ছিল। ভালো হত যদি আমি শেষ করতে পারতাম। সাকিব আর সানি ভাই, আর রানা শেষদিকে একটা বাউন্ডারি দিয়ে শেষ করেছে- আলহামদুলিল্লাহ।’

মাত্র ১৩০ রানের পুঁজি নিয়েও বারবার ম্যাচে দাপট দেখিয়েছে গাজী গ্রুপ। একটা সময় ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ স্পষ্টভাবেই হাতে ছিল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দলের। তবে শান্ত বিশ্বাস করেছিলেন, উইকেটে টিকে থাকলে দলকে জেতাতে পারবেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘মনে হচ্ছিল আমি যদি উইকেটে থাকি তাহলে এখান থেকে ম্যাচ জেতাতে পারি। এমন রান ছিল যেটা একজন বড় একটা স্কোর করলেই জেতা সম্ভব। দুর্ভাগ্যবশত শেষ করে আসতে পারিনি, তবে মাঝখানে যেভাবে ইনিংসটা টেনে নিয়েছি… আলহামদুলিল্লাহ।’ 

শান্ত’র চোখে এই ম্যাচ চলতি ডিপিএলে আবাহনীর সেরা জয়। তার ভাষায়, ‘না, আমার মনে হয় এটাই এমন প্রথম ম্যাচ। তবে প্রত্যেকটা ম্যাচেই চাপ ছিল। তবে আমার মনে হয় এখন পর্যন্ত এটা আমাদের অন্যতম সেরা ম্যাচ।’