Scores

শামির কাছ থেকে রাহীর ‘বোলিং টিপস’

ইন্দোর টেস্টে বাংলাদেশের ‘গোবরে পদ্মফুল’ ছিলেন আবু জায়েদ চৌধুরী। ডাকনাম তার রাহী, এই নামেই সবাই চেনেন। প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং ব্যর্থতার পরও দৃঢ় মনোবল নিয়ে ভারতের টপ অর্ডারকে চমকে দিয়েছিলেন রাহী। ম্যাচে সেটিই ছিল ভারতের একমাত্র ইনিংস, আর ৪ উইকেট শিকার করা রাহীই ছিলেন একাধিক উইকেট শিকার করা একমাত্র বাংলাদেশি বোলার।

শামির কাছ থেকে রাহীর বোলিং টিপস

রাহীর মত আরেকজন ইনিংসে ৪ উইকেট শিকার করেছিলেন ইন্দোর টেস্টে। তিনি ভারতের মোহাম্মদ শামি। দুজনের বোলিংয়ে অনেক সাদৃশ্য আছে বলে রাহী শেখার চেষ্টা করছেন শামির কাছ থেকে। তার কাছ থেকে নিয়েছেন বোলিং টিপসও।

Also Read - সাইফের হাতে সেলাই, মিরাজের কনুইয়ে চোট






বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে ৩ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৪- মোট ৭ উইকেট শিকার করে ভারতকে ইনিংস ব্যবধানে জয় এনে দিতে বড় ভূমিকা রেখেছিলেন সেই শামির কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে নিজেকে আরও সমৃদ্ধ করার চেষ্টা বাংলাদেশি পেসার রাহীর।

শামির কাছ থেকে কোন বিষয়ে টিপস নিলেন? রাহী জানান, ‘ওরা সিনিয়র, অনেক টেস্ট খেলেছেন। যেমন শামি ভাই। দুজনই সিমিং বোলার, তার সাথে আমার কিছুটা মিলে।’






‘উনার সাথে কালও কথা বলেছি। শামি ভাইর বল অনেকবারই দেখেছি। মাঠের ভেতরে যখন ছিলাম তখনো শামি ভাইর বল মনোযোগ দিয়ে দেখেছি। মাঝেমাঝে হাইটও মিলিয়েছি, যে আমার হাইটের সাথে মিলছে কি না। তখন মনের ভেতর এসেছে- আমিও তার মত বোলিং করতে পারব।’

শামির পরামর্শ নেওয়ার আগেই রাহী নিজের জাত চিনিয়েছেন ইন্দোর টেস্টে। নিজের পরিকল্পনা ও কৌশল সম্পর্কে জানিয়ে সিলেটের এই পেসার বলেন, ‘চেষ্টা করছিলাম সুইং করানোর। এত বেশি মুভমেন্টও পাচ্ছিলাম না। আমার শক্তি হল সুইং। আমি সুইং করে ব্যাটসম্যানদের বিপদে ফেলতে পারি। তাই ভালো জায়গায় বল করার চেষ্টা করে গেছি। টেস্ট বোলারদের জন্য লাইন-লেন্থ ঠিক রাখা গুরুত্বপূর্ণ। ঠিক জায়গায় বল করতে পারলে ব্যাটসম্যানদের ভুলে বেশ কিছু সুযোগ সৃষ্টি হয়, গত ম্যাচে হয়েছেও। প্রথম ম্যাচে বাউন্ডারি হাঁকানোর মত বল দিয়েছি অনেক, এগুলো কমালে ভালো হত।’

ভারতীয় পেসাররা খুব বেশি গতি না তুলেও নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে যেন সাপের ছোবল তুলে দিচ্ছিলেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের সামনে। বাংলাদেশের বোলিং কোচ চার্ল ল্যাঙ্গাভেল্টও পরামর্শ দিচ্ছেন গতি কম রেখে হলেও লাইন-লেন্থ ঠিক রাখার, রাহীর ভাষায় যা ‘টেস্টে বোলারদের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ’।

রাহী বলেন, ‘ল্যাঙ্গাভেল্ট বলের গতি বাড়ানো নিয়ে এত জোর দিচ্ছেন না। উনি বলেছেন- ভারতের পেসাররাও দেখো ১৩০-১৪০ এ বল করছে, তাই এভাবে বল করলেই হবে কিন্তু ওদের লাইন-লেন্থ দেখার চেষ্টা করো, একই লাইনে বোলিং করছে। গতি নিয়ে ভেবো না, একই জায়গায় বল করার চেষ্টা করো।’

সিলেটে একসাথে খেলে বেড়ে ওঠা সতীর্থ পেসার এবাদত হোসেনের প্রশংসাবাক্যও রাহীর কণ্ঠে। তিনি বলেন, ‘এবাদত একদম নতুন। আমিও নতুনই। ৬টা টেস্ট খেললাম, এবাদত খেলল ৩টা টেস্ট। সেই তুলনায় এবাদত ভালো বল করেছে। জাতীয় লিগ থেকেই তার সাথে এসব নিয়ে কথা বলছি। ও ভালো ছন্দে আছে।’

প্রথমবারের মত বিডিক্রিকটাইম নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশ এবং সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বল বাই বল লাইভ স্কোর, এবং সাম্প্রতিক নিউজ সহ সবকিছু এক মুহূর্তেই পাবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অনলাইন পোর্টাল BDCricTime এর অ্যাপে। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে সার্চ করুন BDCricTime অথবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

প্রস্তুতি ম্যাচে দ্যুতি ছড়ালেন রিয়াদ, রাহী, মোসাদ্দেক

রাহীর অগ্নিঝরা বোলিং, বিপর্যয়ে মুশফিকরা

রাহী-মেহেদির বোলিং তোপে ১২২ রানে অলআউট আফগানিস্তান

ব্যাটিংয়ে উইন্ডিজ, রাহীর অভিষেক

বিশ্বকাপ দলে যুক্ত হচ্ছেন তাসকিন, কপাল পুড়ছে রাহীর!