শাস্ত্রীকে সুইমিংপুলে ছুঁড়ে ফেলেছিলেন মিয়াঁদাদ!

ভারত আর পাকিস্তানের বৈরিতা অজানা নয় কারও। আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে যে দেশগুলোর সম্পর্ক বরাবরই শীতল, তাদের মধ্যে অন্যতম ভারত ও পাকিস্তান। দুই দেশের রাজনৈতিক বৈরিতা ছুঁয়ে যাচ্ছে ক্রিকেট অঙ্গনকেও।

শাস্ত্রীকে সুইমিংপুলে ছুঁড়ে ফেলেছিলেন মিয়াঁদাদ!

Advertisment

যার প্রভাবে দীর্ঘ সময় ধরে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে কোনো দ্বিপাক্ষিক সিরিজ নেই মাঠে। যদিও এক দশক আগপর্যন্ত দ্বিপাক্ষিক সিরিজও মাঠে গড়াত। এমনকি দুই দেশের ক্রিকেটাররা একইসাথে উৎসব উদযাপন করতেন, মেতে উঠতেন উল্লাসে।





সেই সোনালি সময়ের কথা সম্প্রতি তুলে ধরেছেন পাকিস্তানের কিংবদন্তী ক্রিকেটার জাভেদ মিয়াঁদাদ। ইউটিউবে এক ভিডিও বার্তায় মিয়াঁদাদ তার সময়কার একটি ভারত সফরের স্মৃতিচারণ করেন। হোলিতে কীভাবে তারা ভারতীয় ক্রিকেটারদের সাথে শামিল হয়েছিল, সেই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির চিত্র তুলে ধরেছেন মিয়াঁদাদ।

দ্বিপাক্ষিক সিরিজের জন্য ভারত ও পাকিস্তান দুই দলের ক্রিকেটাররাই তখন বেঙ্গালোরে অবস্থান করছিলেন। ভারতীয় ক্রিকেটারদের হোলি খেলতে দেখে শামিল হন পাকিস্তানি ক্রিকেটাররাও। মিয়াঁদাদরা ভারতের বর্তমান কোচ ও তৎকালীন খেলোয়াড় রবি শাস্ত্রীকে রঙ মাখিয়ে নাকি ফেলে দিয়েছিলেন সুইমিংপুলে!






মিয়াঁদাদ বলেন, ‘বেঙ্গালুরু টেস্টের সময়ে দুই দেশের ক্রিকেটাররা একই হোটেলে ছিলাম। খুব বেশি কিছু করার ছিল না আমাদের। সন্ধ্যায় হোটেলে দেখি বেশ কয়েকজন হোলি খেলছে।’

শাস্ত্রী আবীর থেকে বাঁচতে লুকিয়ে ছিলেন কক্ষে। এ কারণে তার উপরই চড়াও হন সবাই। মিয়াঁদাদ বলেন, ‘রবি শাস্ত্রী লুকিয়েছিল নিজের কক্ষে। কিছুতেই বের হতে চাইছিল না। আমরা সবাই শাস্ত্রীর ঘরে ঢুকে ওকে রঙ মাখাই। তার পরে ওকে পুলে ছুঁড়ে ফেলে দিই।’

সম্প্রীতির দারুণ স্মৃতি হয়ে থাকা সেই সফর যেন ভুলতেই পারেন না মিয়াঁদাদ। তিনি বলেন, ‘আমরা দারুণ উপভোগ করেছিলাম সেদিন। সেবাবের সফর সবচেয়ে ভালো ছিল। একে অপরের সঙ্গে উৎসবে মেতে উঠেছিলাম।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।