Scores

শেখ জামালকে জেতালেন নাসির-তানভীর

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল) এর ৬১তম ম্যাচে তানভীর হায়দারের ব্যাটিং নৈপুণ্যে আবাহনী লিমিটেডকে ৩ উইকেটে হারিয়েছেন শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব।

চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে শেখ জামালের বিশাল জয়

সাভারে আগে টস জিতে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেন শেখ জামাল অধিনায়ক নুরুল হাসান। শুরুতেই সাফল্য পান শেখ জামালের বোলাররা। দলীয় ১৪ রানের ভিতর ৪ উইকেট, জহুরুল ইসলাম, সৌম্য সরকার, জাহিদ জাভেদ, শান্তকে হারিয়ে বিপদে পড়ে আবাহনী। মাত্র একরান করেন সৌম্য।

Also Read - আজ খেলবেন ভারতে, কাল সকালেই আবার শ্রীলঙ্কায়


তখনি দলের হাল ধরেন মোহাম্মদ মিঠুন ও আবাহনী অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন। দুইজন বেশ দেখেশুনেই ব্যাটিং করেন। দুইজন মিলে ৬০ রানের জুটি গড়েন মিঠুন ও মোসাদ্দেক। ৪৭ বলে ৩৩ করে ইলিয়াস আসানির বলে আউট হন মিঠুন। রান পাননি মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনও। তবে দলকে একাই টেনেছেন দলপতি মোসাদ্দেক।

দলের হয়ে মাশরাফি করেন ২০ রান ও আবদুল্লাহ করেন ২৬ রান। ফিফটি তোলার পর সেঞ্চুরিও তুলে নেন মোসাদ্দেক। শেষ পর্যন্ত তার অপরাজিত ১০১ রানে ভর করে ২১১ রান সংগ্রহ করে আবাহনী লিমিটেড। জবাবে ব্যাটিং করতে নেমে দলীয় ১২ রানেই দুই উইকেট হারিয়ে বসে শেখ জামাল। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৬৯ রান যোগ করেন মজুমদার ও ইমতিয়াজ হোসেন। ৩০ করে সানজামুলের বলে আউট হন ইমতিয়াজ।


পরের বলেই আউট হন শেখ জামাল দলপতি নুরুল হাসান। এতদিন রান না পাওয়া আজ ব্যাট হাতে জ্বলে উঠেন। মজুমদারে সঙ্গে গড়েন ৬০ রানের জুটি। ফিফটি তুলে নেন মজুমদার। ফিফটি করার পরেই সাইফউদ্দিনের বলে আউট হন তিনি। দলীয় আরও ৭ রান যোগ করতেই ৫৬ বলে ৪৫ করে সৌম্যর বলে আউট হন নাসির।

নাসিরের বিদায়ের পর খানিকটা পিছিয়ে পড়ে শেখ জামাল। জিয়াউরের সঙ্গে ৩৪ রানের জুটি গড়ার পর ১৬ করে আউট হন জিয়াউর। তারপর যেন দায়িত্বটা নিজের কাধেই নেন তানভীর হায়দার। দলকে ব্যাট হাতে শেষদিকে একাই জেতান তিনি। তার অপরাজিত ৪৯ বলে ৩৮ রানে ৭ বল বাকি থাকতেই জয় পায় শেখ জামাল।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

সুপার লিগ মাতাতে আসলেন ওঝা

মারুফ-মুমিনুল-নাইমের ব্যাটিং কল্যাণে জিতল রূপগঞ্জ

মুমিনুল-নাইমের ব্যাটে সহজ জয় রূপগঞ্জের

মানকাডিংয়ের সুযোগ ছাড়লেন আরাফাত সানি

সানজামুলের বোলিং তোপে উড়ে গেলো খেলাঘর