শেষটা রাঙিয়েও আল-আমিনের আক্ষেপ

প্লেয়ার্স ড্রাফট শেষে তিনি ছিলেন অবিক্রিত। একটা সময় হয়ত নিজেও ভাবেননি বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে খেলা হবে। সেই আল-আমিন জুনিয়রই বেক্সিমকো ঢাকার হয়ে রাঙিয়েছেন শেষটা। যদিও আরও ভালো করতে না পারার আক্ষেপ ঘরোয়া ক্রিকেটের অভিজ্ঞ এই পারফর্মারের।

আরও ভালো করতে না পারার আক্ষেপ আল-আমিনের

Advertisment

২৭ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার পরিচিত আল-আমিন জুনিয়র হিসেবে, কারণ বাংলাদেশের ক্রিকেটে এই নামে আছেন আরেকজন- পেসার আল-আমিন হোসেন। আল-আমিন জুনিয়র অবশ্য ক্রমাগত স্বমহিমায় উজ্জ্বল হওয়ার আভাস দিচ্ছেন। আসরে দলের শেষ চার ম্যাচে খেলার সুযোগ পেয়ে আলো ছড়িয়েছেন।

নিজের প্রথম ম্যাচে জেমকন খুলনার বিপক্ষে করেছেন ৩৬ রান, যা জয়ের ভিত গড়ে দিতে ভূমিকা রেখেছিল। পরের ম্যাচে ব্যাট হাতে ম্লান, কিন্তু বল হাতে ৫ রানের খরচায় একটি উইকেট। ফরচুন বরিশালের বিপক্ষে আঁটসাঁট বোলিং দিয়ে দুই উইকেট শিকার করে দলক তুলেছিলেন কোয়ালিফায়ারের মঞ্চে। যে ম্যাচে হেরে বিদায় নিলো দল, শক্তিশালী গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের বিপক্ষে সেই ম্যাচেও ব্যাট হাতে ২৫ রান আর বল হাতে একটি উইকেট শিকার মাত্র ৪ রানের খরচায়।

নজর কেড়ে নেওয়া এমন পারফরম্যান্সের পরও আল-আমিনের অতৃপ্তি। তিনি বলেন, ‘আমি যখন দলে আসি তখন লিগ পর্বের দুটি ম্যাচ ছিল আর পরে প্লে-অফে দুইটা খেললাম। প্রথম দিকে দল পাইনি, দুশ্চিন্তায় ছিলাম। যখন সুযোগ এসেছে নিজের সেরাটা দেওয়ার।’

আল-আমিন জুনিয়র কী পেরেছেন নিজের সেরাটা দিতে? তার ভাষ্য, ‘আমার মনে হয়, খেলোয়াড় হিসেবে আমি আরেকটু ভালো করতে পারতাম। ভালো করার জায়গা ছিল। তারপরও যতটুক হয়েছে আলহামদুলিল্লাহ্‌।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।