Score

শেষ ওভার রিয়াদকে দেবার সিদ্ধান্ত মাশরাফিরই

আবারও শেষ বলে স্বপ্ন ভঙ্গ হয়েছে বাংলাদেশের। এশিয়া কাপের ফাইনালে গতরাতে ভারতের কাছে ম্যাচের শেষ বলে হেরে গেছে মাশরাফিবাহিনী। জয়ের জন্য শেষ ওভারে ভারতের প্রয়োজন ছিল ৬ রানের। অধিনায়ক মাশরাফি প্রথমে সৌম্যের হাতে বল তুলে দিলেও শেষ মুহূর্তে সৌম্যের বদলে শেষ ওভারে বল করতে আনেন অভিজ্ঞ রিয়াদকে। ম্যাচশেষে সংবাদ সম্মেলনে এই বিষয়ে কথা বলেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

 

ম্যাচ হারার পর অধিনায়ক মাশরাফি; ছবিঃ গেটি ইমেজ

Also Read - এশিয়া কাপ ফাইনালে দল ও ক্রিকেটারদের পুরস্কারসমূহ

পাকিস্তানের বিপক্ষে অঘোষিত সেমিফাইনালে একজন বোলার কম নিয়েই খেলেছিল বাংলাদেশ। সেই ম্যাচে দারুণ বল করে অভাব পূরণ করেছেন রিয়াদ। দুর্দান্ত ছিলেন নিয়মিত স্পিনার মিরাজও। তবে ফাইনালে দুইজনই নিষ্প্রভ।  স্পিন আক্রমণ নিয়ে মাশরাফি বলেন, “প্রথম ইনিংসে বল যেভাবে স্পিন করেছে, তাতে আমাদের স্পিনারদের আরও আশা করেছিলাম। মিরাজ এই টুর্নামেন্টে সেরা বোলার, রিয়াদও (মাহমুদউল্লাহ) গত ম্যাচে খুব ভালো বোলিং করেছেন। আজ তারা আরেকটু ভালো করতে পারত। ”

জমজমাট ম্যাচে শেষ ওভারে সৌম্যকে বাদ দিয়ে রিয়াদকে দেবার সিদ্ধান্ত ছিল কার? এমন প্রশ্নে মাশরাফি বলেন, “সিদ্ধান্তটা আমারই। আমি রিয়াদকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, কতোটুকু আত্মবিশ্বাস আছে তোমার? এরপূর্বে বিপিএলে দুইবার শেষ ওভারে দলকে জিতিয়েছিল রিয়াদ।  এটা আমার মাথায় ঘুরতেছিল। সৌম্যের পেসে বল লেগে হয়তো বাউন্ডারি হয়ে যেতে পারত! স্পিনে জোরে মেরে সেটা  করতে হবে। এই পরিকল্পনাতেই রিয়াদকে দিয়েছিলাম। ” 

মাশরাফি আরও যোগ করে বলেন, “রিয়াদকে বলছিলাম, ওরা মারতে যাবে। মারতে গেলে মিস হিট হতে পারে। বিশেষ করে কুলদীপ মারার চেষ্টা করবে। যাদব যেহেতু ব্যাটসম্যান, ও হয়তো তা করবে না। পঞ্চম বলটাই কিন্তু কুলদীপের ব্যাটে ইনসাইড এজ হয়েছিল। আসলে এ রকম পরিস্থিতিতে একটু লাক ফেবার করতে হয়।” 

৬ বলে ৬ রান থেকে ১ বলে ১ রানে গড়ায় ম্যাচ। শেষ ওভারের ৫টি বল ভালো করেছিলেন রিয়াদ। কিন্তু শেষ বলটি পায়ে করেন। লেগবাই থেকে আসে ভারতের কাঙ্খিত জয়সূচক রান।

শেষ বল প্রসঙ্গে মাশরাফি বলেন, “ওই বলটা হয় ডট হতে হতো অথবা আউট। ও ইয়র্কারই করেছিল। কিন্তু বলটা প্যাডে পড়ে গেল। রিয়াদ ভালো করেছে। ওই অবস্থায়, মানে ৬ বলে ৬ রান লাগে, এই অবস্থায় ও ভালো ফাইট করেছে।”

[আরও পড়ুনঃ আমরা হৃদয় দিয়ে খেলেছি: মাশরাফি]

Related Articles

মেডিকেল রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করছে সাকিবের এনওসি

এই মিরাজ অনেক আত্মবিশ্বাসী

মিঠুনের ‘মূল চরিত্রে’ আসার তাড়না

‘আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি ঠিক হবে না’

এক নয় মাশরাফির তিন ইনজুরি