Scores

শেষ ম্যাচেও পাকিস্তানের বড় পরাজয়

পাঁচ ম্যাচ সিরিজের শেষ ম্যাচে ৫৪ রানের ব্যবধানে পাকিস্তানকে হারিয়েছে ইংল্যান্ড। লিডসের হেডিংলিতে আগে ব্যাটিং করে ইয়ন মরগান ও জো রুটের অর্ধশতকে ৩৫১ রানের বড় সংগ্রহ স্বাগতিকরা। জবাবে সরফরাজ আহমেদ ও বাবর আজমের অর্ধশতকের পরেও ক্রিস ওকোসের তাণ্ডবে ম্যাচ হারে সফরকারীরা।

সরফরাজের আউটের দৃশ্য @ছবি-এএফপি

টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন মরগান। দুর্দান্ত শুরু করেন দুই ইংলিশ ওপেনার জেমস ভিঞ্চ ও জনি বেয়ারস্টো। ৩২ বলে ৩৩ রান করে ভিঞ্চ আউট হয়ে ফিরলে ভেঙে যায় ৬৩ রানের উদ্বোধনী জুটি। জো রুটের সাথে ৪২ রানের জুটি গড়ে দলীয় ১০৫ রানে বিদায় নেন ভয়ংকর হয়ে উঠতে থাকা বেয়ারস্টো। তার ব্যাট থেকে আসে ২১ বলে ৩২ রান।

Also Read - বোলারদের নৈপুণ্যে আয়ারল্যান্ডের জয়


তৃতীয় উইকেটে ১১৭ রানের জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের পথে নিয়ে যান মরগান ও রুট। ৬৪ বলে ৭৪ রান করে শাহেন শাহ আফ্রিদির বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে মরগান আউট হলে ভেঙে যায় এই জুটি। তার ইনিংসে ছিল ৪টি চার ও ৫টি ছয়ের মার। মরগানের বিদায়ের পর বেশিক্ষণ টেকেননি রুটও। শতকের স্বপ্ন দেখানো এই ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ হাসনাইনের শিকার হয়ে ফেরেন ৮৪ রানে। তার ৭৩ বলের ইনিংসটিতে ছিল ৯টি চার।

শেষের দিকে জস বাটলার ও টম কারানের দৃঢ়তায় ইংল্যান্ডের সংগ্রহ সাড়ে তিনশত পেরোয়। উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান বাটলার করেন ৩৪ বলে ৩৪। ১৫ বলে ২৯ রান করে ছোট ঝড় তোলেন কারান। তার ইনিংসে ছিল ২টি করে চার ও ছয়। এছাড়া বেন স্টোকস করেন ২৯ বলে ২১ রান। ক্রিস ওকোস ও ডেভিল উইলির অবদান যথাক্রমে ১৩ ও  ১৪ রান।

নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিময়ে ৩৫১ রানের সংগ্রহ পায় স্বাগতিকরা। পাকিস্তানি পেসার শাহেন শাহ আফ্রিদি ৪টি উইকেট শিকার করেন। তবে তিনি ছিলেন খরুচে। ১০ ওভারে দেন ৮২ রান। স্পিনার ইমাদ ওয়াসিম ৫৩ রানের বিনিময়ে নেন ৩ উইকেট। এছাড়া একটি করে উইকেট নেন হাসনাইন ও হাসান আলি।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় পাকিস্তান। ক্রিস ওকোসের তাণ্ডবে ৬ রানের বিনিময়ে টপ অর্ডারের ৩ ব্যাটসম্যান ফিরে যান সাজঘরে। আবিদ আলী ৫ এবং মোহাম্মদ হাফিজ ও ফখর জামান ফেরেন রানের খাতা খোলার আগেই। তবে অধিনায়ক সরফরাজকে সাথে নিয়ে প্রাথমিক বিপর্যয় সামাল দেন বাবর আজম।

চতুর্থ উইকেটে ১৪৬ রান যোগ করেন এই দুই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। ২৬তম ওভারেই ১৫০ রান তুলে ফেলে দলকে জয়ের স্বপ্নও দেখাচ্ছিলেন তারা। দলীয় ১৫২ রানে আদিল রশিদ ও জস বাটলারের মিলি প্রচেষ্টায় রান আউট হয়ে ফিরে যান বাবর আজম। তার ব্যাট থেকে আসে ৮৩ বলে ৮০ রান। তার ইনিংসে ছিল ৯টি চার ও ১টি ছয়।

অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ মাত্র ৩ রানের জন্য শতক হাতছাড়া করেন। বাটলারের বুদ্ধিদ্বীপ্ত উইকেটকিপিংয়ে ৯৭ এ রান আউট হয়ে ফিরে যান তিনি। তার আগে ৫ম উইকেটে শোয়েব মালিকের সাথে ৩৭ রানের জুটি গড়েন। যেখানে মালিকের আবদান ছিল মাত্র ৪। সরফরাজ ফেরার আগের ওভারেই রশিদের বলে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে আউট হন এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান।

এরপরে ইমাদ ওয়াসিম ও আসিফ আলি প্রতিরোধের চেষ্টা করেন। কিন্তু ইনিংস বড় করতে পারেননি তারা। আসিফ করেন ১৭ বলে ২২ রান। ইমাদের ব্যাট থেকে আসে ২১ বলে ২৫ রান।

দুই বোলার শাহেন শাহ আফ্রিদি ও মোহাম্মদ হাসনাইনও ব্যাট হাতে দলে অবদান রাখার চেষ্টা করেন। তবে তাদের ইনিংস কেবল পরাজয়ের ব্যবধান কমিয়েছে। আফ্রিদি করেন অপরাজিত ১৯ রান ও হাসনাইনের সংগ্রহ ১৭ বলে ২৮ রান।

৪৬.৫ ওভারে ২৯৭ রানে অলআউট হয়ে যায় সফরকারীরা। প্রথম স্পেলে ৩ উইকেট নেয়ার পরে দ্বিতীয় স্পেলেও ২টি উইকেট শিকার করেন ওকোস। রশিদ নেন ২ উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

ইংল্যান্ডঃ (৫০ ওভার) ৩৫১/৯
রুট ৮৪, মরগান ৭৬, বাটলার ৩৪, ভিঞ্চ ৩৩, বেয়ারস্টো ৩২, কারান ২৯*।
শাহেন শাহ ৪/৮২, ইমাদ ওয়াসিম ৩/৫৩।

পাকিস্তান: ( ৪৬.৫ ওভার) ২৯৭/১০

সরফরাজ ৯৭, বাবর ৮০, হাসনাইন ২৮, ইমাদ ২৫, আসিফ ২২, আফ্রিদি ১৯*।

ওকোস ৫/৫৪, রশিদ ২/৫৪।

ফল: ৫৪ রানে জয়ী ইংল্যান্ড।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন


Related Articles

পিটারসেনের সমালোচনায় মরগানের উপহাসমূলক জবাব

বিপিএলের আগামী আসরে খেলবেন মরগান

সেমিফাইনালে যেতে ‘সমস্যা’ দেখছেন না মরগান

মরগানের বিধ্বংসী শতকে বিবর্ণ রশিদ-নবীরা

দুই ম্যাচ খেলা হচ্ছে না রয়ের, মরগানও শঙ্কায়