Scores

শেষ সেশনে নিষ্প্রভ তাসকিনরা

আগের দুই সেশনে দুর্দান্ত বল করলেও শেষ সেশনে নিষ্প্রভ বিসিবি একাদশের বোলাররা। মাত্র ২ উইকেট শিকারের বিপরীতে ১০৬ রান খরচ করে দিনের তৃতীয় সেশনের খেলা শেষ করেছে সফরকারীরা। শুরুর ধাক্কার পর নওশাদ শেখের ১০৮ ও ইকবাল আব্দুল্লাহ-র অপরাজিত ৪২ রানে স্বস্তি নিয়ে মাঠ ছেড়েছে ড. ডিওয়াই পাতিল ক্রিকেট অ্যাকাডেমি।

নিউজিল্যান্ডেই যাওয়া হচ্ছে না তাসকিনের!

তৃতীয় দিনের খেলা শেষে স্বাগতিকদের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ২৭৪ রান। যার ফলে দ্বিতীয় ইনিংসে দলটির লিড বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩০০ রানে।

দলীয় ১৩৭ রানে ৬ উইকেট হারানোর পর প্রতিরোধ গড়েন নওশাদ। সপ্তম উইকেট জুটিতে সাইরাজের সাথে যোগ করেন মূল্যবান ৮৪ রান। মুমিনুল হক ২৯ রান করা সাইরাজকে ফেরালে ভাঙ্গে এ জুটি। এরপর অষ্টম উইকেটে ২১ রান যোগ করেন নওশাদ ও ইকবাল।

Also Read - পাকিস্তানের প্রধান নির্বাচকের দায়িত্ব থেকে ইনজামামের পদত্যাগ


শতক হাঁকিয়ে নওশাদ তাইজুলের প্রথম শিকারে পরিণত হলে দলীয় ২৪২ রানে ৮ উইকেট হারায় দলটি। তার বিদায়ে এক পর্যায়ে মনে হচ্ছিল দিন শেষের আগে সবকয়টি উইকেট নিতে পারবে সফরকারীরা। তবে মুমিনুলদের এ ভাবনা সত্য হতে দেননি ইকবাল। অপরাজিত ৪২ রান করে একা হাতেই বাকিটা সময় পার করে দেন তিনি।

আগামীকাল একই অবস্থান থেকে ফল পাওয়ার আশা নিয়ে লড়বে উভয় দল। বিসিবি একাদশের বোলারদের মধ্যে আজ সবচেয়ে সফল ছিলেন তাসকিন আহমেদ। সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট শিকার করেছেন তিনি। সবকয়টি উইকেট-ই নিয়েছেন প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের স্টাম্প উপড়ে। বাকি বোলারদের মধ্যে শহিদুল, তাইজুল, নাঈম ও মুমিনুল প্রত্যকেই পেয়েছেন একটি করে উইকেট।

এর আগে দিনের শুরুতে আগের দিনের ৫ উইকেটে করা ২৬১ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করে বিসিবি একাদশ। শুরুতেই ২৬ রান করা সাইফের উইকেট হারায় সফরকারীরা। অনেকটা একা হাতে লড়তে থাকা নুরুল হাসান সোহান বিদায় নেন এর কিছু মুহূর্ত পরেই। ব্যক্তিগত ৮৭ রানে তিনি আউট হলে দলীয় ২৯১ রানে সপ্তম উইকেট হারায় বিসিবি একাদশ।

সোহান

তার বিদায়ের পর শেষদিকের ব্যাটসম্যানরা ব্যর্থ হয় ব্যাট হাতে চমক দেখাতে। মাত্র ১৫ রানের ব্যবধানে বাকি ৩ উইকেট হারিয়ে বসে সফরকারীরা। যার ফলে দলীয় ৩০৬ রানে থামে বিসিবি একাদশের প্রথম ইনিংস।

প্রতিপক্ষ শিবিরের বোলারদের মধ্যে মুকেশ সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নেন। বাকি বোলারদের মধ্যে আকিব, সাইরাজ ও নওশাদ প্রত্যকেই লাভ করেন দুটি করে উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

ড. ডিওয়াই পাতিল ক্রিকেট অ্যাকাডেমি
(১ম ইনিংস): ১০২.৫ ওভারে ৩৩১/১০
সারদেশাই ১২৮, শুভম ৫০, আমান ৪৩; তাইজুল ৩৩.৫-৭-১৪৪-৬,তাসকিন ২৩-৫-৪৭-২, শহিদুল ২০-৪-৪২-১, নাঈম ১৮-৩-৭০-১, আরিফুল ৮-৩-১৯-০।

বিসিবি একাদশ (১ম ইনিংস): .৩০৬/১০
জহুরুল ৪৪, সাদমান ৪৯, মুমিনুল ১৮, শান্ত ৩৪, সোহান ৮৭, আরিফুল ১৪, সাইফ ২৭, নাঈম ১০, তাইজুল ২, শহিদুল ০, তাসকিন ১; মুকেশ ১৬-২-৬৫-৩।

ড. ডিওয়াই পাতিল ক্রিকেট অ্যাকাডেমি (২য় ইনিংস): ৬৮ ওভারে ২৭৪/৮
নওশাদ ১০৮, ইকবাল ৪২*, সরফরাজ ৩৬; তাসকিন ১৮-২-৬৯-৪, শহিদুল ১৬-৪-৪৫-১, মুমিনুল ৩-০-৯-১, নাঈম ১১-০-৫৬-১, তাইজুল ১৯-১-৭৫-১।

লিড: দ্বিতীয় ইনিংসে ড. ডিওয়াই পাতিল ক্রিকেট অ্যাকাডেমি ৩০০ রানে এগিয়ে।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ক্রিকেটাররা

রুবেলের পর তাসকিনের সাফল্য, কোণঠাসা স্বাগতিকরা

কলম্বোয় টাইগারদের অনুশীলন, যুক্ত হলেন তাইজুল-তাসকিন

বিসিবি একাদশের দ্বিতীয় ম্যাচও ড্র

তাসকিনের ৫, জয়ের জন্য মুমিনুলদের প্রয়োজন ৩২৭ রান