শোয়েব তান্ডবে পথ হারালো বরিশাল বুলস

বরিশালকে হারিয়ে পয়েন্ট তালিকার চতুর্থস্থান অক্ষুন্ন রেখেছে তামিমরা।

বিপিএল যেন ঘরের মাঠে হচ্ছে। চিটাগাং ভাইকিংস এর সাপোর্টাররা এমনটা ভাবতেই পারেন। ঢাকা পর্বে যেন নিজেদের হারিয়ে খুজে বেড়াচ্ছিল পোর্টসিটির এই দলটি। ঢাকার মাঠে প্রথম ম্যাচে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ভিক্টোরিয়ান্সকে হারিয়ে নতুন এক শুভ ক্ষনের দিগন্ত সূচনা করেছিল। কিন্তু এরপর আর নিজেদের জাত চেনাতে পারেন নি টিম ভাইকিংস । পরের ৩ টা ম্যাচে টানা হার।

Advertisment

এবার বিপিএল নিজেদের মাঠে। জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে নিজেদের ৫ম ম্যাচেও আশা দেখিতে ডায়নামাইটস এর কাছে হেরে যায়। কিন্তু এরপর নিজেদের ছন্দে ফিরে আসে ভাইকিংস, তুলে নেয় টানা ৩ জয়। ঘরের দর্শকদের আর হতাশ করেননি খান পরিবারের এই বাঁ-হাতি ধুমধুমার ব্যাটসম্যান ক্যাপ্টেন তামিম ইকবাল খান। আজ বিপিএল এ নিজেদের ৮ম ম্যাচে বিশাল ব্যবধানের জয় নিয়ে মাঠে ছেড়েছে ভাইকিংস। শট খেলছেন শোয়েব মালিক

টস জিতে শুরু থেকে প্রতিপক্ষের বোলারদের ঘাম ছুটিয়ে দেন ওপেনার জুটি। এরপর আনামুলের খানিকটা ধীরগতিকে স্মিথ এবং শোয়েব মালিক পুশিয়ে দেন। দুইবার জীবন পাওয়া স্মিথ যখন সাজ ঘরে ফিরছিলেন তখন নামের পাশে ৬৯ রান মাত্র ৪৯ বলে। ৬ টি চার এবং ৩ টা ছক্কা ছিল দৃষ্টিনন্দিত । শেষ সময়ে শোয়েব মালিকের তান্ডবে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৮৫ রান তুলে নেয় ভাইকিংস। শোয়েব মালিক মাত্র ৩০ বলে করেন ৬৩ রান। যার মধ্য ৯ টি চার এবং ২ টি বিশাল ছক্কা ছিল। বুলসের বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে ইকোনোমিক ছিল তরুন পেসার কামরুল ইসলাম রাব্বি। ৪ ওভারে ২৯ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট। এছাড়াও পেরেরা ২ টি এবং এমরিত নেন ১ টি করে উইকেট।

এই বিশাল রানের জবাবে বুলসের নিজেদের সবচেয়ে বাজে শুরু হয়েছিল আজ। ২য় ওভারের নাবির কথা প্রথম বলেই মালান বোল্ড এবং ঐ ওভারের শেষ বলেই নাদিফ চৌধুরি ক্যাচবন্ধি হন শোয়েব মালিকের হাতে। ১১ রানে নাফিস আর ১২ রানে মেন্ডিস আউট হয়ে যেন খুলনার ৪৪ রানে অলআউটের কথা মনে করাচ্ছিল। কিন্তু এরপর ক্যান্টেন মুশফিকের ১৪ বলে ১৯ আর প্রথম টি২০ খেলতে নামা এনামুল হকের ৩৭ বলে ৪২ যেন সেই লজ্জা থেকে রেহাই দেয়। তবে নবি তাসকিন আর সুভাশিস রয়ের অসাধারন বোলিং নৈপূন্যে ১৮.২ ওভারে ১০৭ রানে অলআউট হয় বরিশাল বুলস।ভাইকিংস পায় ৭৮ রানের জয়। বল হাতে ১৫ রানে ১ উইকেট আর ব্যাটে ৩০ বলে ৬৩ করা পাকিস্তানি রিক্রুট শোয়েব মালিক ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হন।

৮ ম্যাচে ৪ জয়ে পয়েন্ট তালিকার চারে আছে ভাইকিংস আর ৭ ম্যাচে ৩ জয়ে ভাইকিংস এর পরেই ৫ নম্বরে আছে বরিশাল বুলস।

– মো. রাফসানজানি রানা, বিডিক্রিকটিম ডট কম