শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে কলাবাগানকে হারালো ব্রাদার্স ইউনিয়ন

কলাবাগানের অধিনায়ক মাশরাফির আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে প্রথমে ব্যাট করতে গিয়ে আগের ম্যাচের শতক হাঁকানো শাহরিয়ার নাফীসের উইকেট হারায় দলীয় ৩৬ রানে। ১৫ রান করার পর শরিফুল্লাহ ফেরান নাফীসকে। দ্রুত নাফীসের বিদায়ের পর ইমরুল কায়েসকে সাথে নিয়ে জুটি গড়েন অধিনায়ক তুষার ইমরান। দলীয় ১০০র রান পূর্ণ করেন ১৯.৩ ওভারেই। ১৫৩ বল মোকাবেলা করে ১২৬ রানের জুটিতে অর্ধ-শতকের দেখা পান উভয় ব্যাটসম্যান।

ম্যাচ সেরার পুরস্কার হাতে মাসাকাদজা।
ম্যাচ সেরার পুরস্কার হাতে মাসাকাদজা।

৭৭ রান করে তুষার দলীয় ৩২.৩ ওভারে ১৬২ রানের সময় আউট হন তুষার ইমরান, এবারও বোলার শরীফুল্লাহ। অধিনায়কের বিদায়ের বেশিক্ষণ ক্রিজে থাকতে পারেননি ইমরুল কায়েসও, তাকে ফেরান অভিজ্ঞ স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক। মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা আজও ব্যর্থ। দ্রুত উইকেট বিলিয়ে দিয়ে বড় সংগ্রহের পথ থেকে ছিটকে যেতে থাকে তারা। শেষদিকে সাদিকুর রহমানের ২২ ও নুর আলমের ২৩ রানের সুবাদে কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের বিপক্ষে ২৬২ রান করতে সক্ষম হয় ব্রাদার্স ইউনিয়ন। কলাবাগানের বোলারদের মধ্যে রাজ্জাক, দেওয়ান সাব্বির, মাসাকাদজা ও শরীফুল্লাহ প্রত্যকেই দু’টি করে উইকেট নেন।

জবাবে, দাপুটে শুরু করে কলাবাগান ক্রীড়া চক্র। সাদমান ইসলাম ও জসীমউদ্দীন উদ্বোধনী জুটিতে ৫৬ রান যোগ করে শুভ সূচনা করেন। ব্যাক্তিগত ৩০ রানে সাদমান ফিরে যাওয়ার পর দলীয় ৮৮ রানে আরেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান জসীমউদ্দীনও আউট হয়ে যান। দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানই করেন যথাক্রমে ৩০রান। উদ্বোধনী জুটি বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর জিম্বাবুয়ান ক্রিকেটার মাসাকাদজা ও তাসামুল হক তৃ্তীয় উইকেট জুটিতে ১২২ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখান। তবে এই জুটি বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর জয়ের পথে হাঁটতে থাকা কলাবাগানের দ্রুত উইকেট তুলে নিয়ে ফিল্ডারদের নৈপুণ্যে বোলাররা ব্রাদার্স ইউনিয়নকে আবারও ম্যাচে ফিরিয়ে আনে।

Also Read - শরীফের হ্যাটট্রিকে বিধ্বস্ত শেখ জামাল


কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই আচমকা একের পর এক উইকেট হারনোর বিপরীতে এবারের ডিপিএলে ব্যক্তিগত দ্বিতীয় শতক তুলে নেন মাসাকাদজা। তবে দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যেতে ব্যর্থ হন তিনি। ইমরুলের অসাধারণ এক থ্রুতে রান আউটের শিকার হয়ে সাজঘরে ফিরতে হয় তাকেও। মাঠ ছাড়ার আগে ৯ চার ও ১ ছয়ে করেন ১১১ রান। তার আউট হওয়ার পর শেষ দিকের ব্যাটসম্যানদের অসহায় আত্মসমপর্ণে  জিততে থাকা ম্যাচে মাত্র ১৫ রানের ব্যবধানে ৭ উইকেট হারিয়ে ৯ রানের পরাজয়ের স্বাদ নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় কলাবাগান ক্রীড়া চক্রকে!

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

ব্রাদার্স ইউনিয়নঃ ২৬২ অল-আউট (১৯.৩ ওভার)
ইমরান ৭৭, ইমরুল ৬৭,আলম ২৩
সাব্বির ১৮-২, শরীফুল্লাহ ২৮-২

কলাবাগান ক্রীড়া চক্রঃ  ২৫৩ অল-আউট (৪৯.২ ওভার)
মাসাকাদজা ১১১, তাসামুল ৪৫
নাবিল সামাদ ৪৭-৪

ফলাফলঃ ব্রাদার্স ইউনিয়ন ৯ রানে জয়ী।

ম্যাচ সেরাঃ মাসাকাদজা (কলাবাগান ক্রীড়া চক্র)।

-ইমরান হাসান, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটিম ডট কম

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন