শ্রীলঙ্কায় দেশের চেয়েও নিরাপদে থাকবেন বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা!

বছর ঘুরতেই আবারও বেড়েছে করোনার প্রকোপ। দৈনিক আক্রান্ত আর মৃতের সংখ্যা কমিয়ে আনতে রীতিমত হিমশিম খাওয়ার দশা উপমহাদেশের দেশগুলোর। এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা সফরে।

শ্রীলঙ্কায় দেশের চেয়েও নিরাপদে থাকবেন বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা!
সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির মধ্যেই লঙ্কা সফরে যাচ্ছেন তামিমরা। ফাইল ছবি

মহামারীর শুরুতে শ্রীলঙ্কায় করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকলেও সাম্প্রতিক সময়ে শ্রীলঙ্কাকেও করোনার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করতে হচ্ছে। তবে লঙ্কান বোর্ডের কর্তা অর্জুনা ডি সিলভা মনে করেন, শ্রীলঙ্কায় টাইগাররা বাংলাদেশের চেয়েও নিরাপদে থাকবেন।

Advertisment

ক্রিকেটাররা যে দেশেই থাকুন না কেন, খেলার জন্য সবাইকেই থাকতে হচ্ছে বায়ো সেফটি বাবল বা জৈব সুরক্ষা বলয়ে। বলয়ে থাকাকালে বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই, এমনকি বাইরে থেকে কেউ বলয়ে এসে প্রবেশের সুযোগও নেই। দফায় দফায় করা হয় নমুনা পরীক্ষা। টাইগাররা বলয়ে থেকে ইতোমধ্যে তিন ফরম্যাটের চারটি সিরিজও খেলেছে।

তবে এবার বাংলাদেশকে আতিথেয়তা দিতে যাওয়া লঙ্কানরা নিজেদের ব্যবস্থা নিয়ে এতটাই সন্তুষ্ট যে, বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের বাংলাদেশের চেয়েও নিরাপদে রাখার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে রীতিমত!

মুঠোফোনে আলাপকালে শ্রীলঙ্কা থেকে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের (এসএলসি) ব্যবস্থাপনা কমিটির প্রধান অধ্যাপক অর্জুনা ডি সিলভা বলেন, ‘তারা (বাংলাদেশের খেলোয়াড় ও সাপোর্ট স্টাফ) এখানে বাংলাদেশের চেয়েও নিরাপদে থাকবে।’

করোনা মহামারী শুরুর পর বাংলাদেশের আগে লঙ্কানরা একটি দলকে আতিথেয়তা দিয়েছে। ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের সেই সফরে অবশ্য সফরকারী দলে করোনা শনাক্ত হয়। সংক্রমণ প্রতিরোধে বাংলাদেশ দল আজ শ্রীলঙ্কার উদ্দেশে উড়াল দিয়েছে, যদিও দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শুরু হবে আগামী ২১ এপ্রিল। কোয়ারেন্টিন ও অনুশীলনের জন্য কিছুটা বাড়তি সময় হাতে রেখেই শ্রীলঙ্কায় গেছে মুমিনুল হকের দল।