শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান ঐতিহাসিক গল টেস্টে ফিক্সিংয়ের অভিযোগ

গর্বের সেই জয় এখন বিব্রতকর পরিস্থিতির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান ঐতিহাসিক গল টেস্টে ফিক্সিংয়ের অভিযোগ

বিডিক্রিকটাইম স্টাফ
বিডিক্রিকটাইম রিপোর্ট

প্রকাশিত হয়েছে -

আপডেট হয়েছে -

গত জুলাইয়ে ঐতিহাসিক এক ঘটনার সাক্ষী হয়েছিল গল। শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান সিরিজের প্রথম টেস্টে রেকর্ড ৩৪২ রান তাড়া করে ঐতিহাসিক এক জয় পেয়েছিল পাকিস্তান। তবে গর্বের সেই জয় এখন যে বিব্রতকর পরিস্থিতির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ এই ম্যাচ নিয়ে যে উঠেছে ফিক্সিংয়ের অভিযোগ!
শ্রীলঙ্কা কিংবা পাকিস্তান, কোনো দলের কাছেই ফিক্সিংয়ের কেলেঙ্কারি নতুন কিছু নয়। তবে এই ম্যাচ নিয়ে ফিক্সিংয়ের অভিযোগ ওঠায় আঁতে ঘা লেগেছে লঙ্কান বোর্ডের। তারা তাই সোজা আকসুকে খবর পাঠিয়েছে তদন্তের জন্য।
সম্প্রতি শ্রীলঙ্কার পার্লামেন্টে সংসদ সদস্য নালিন বান্দারা অভিযোগ করেন, শ্রীলঙ্কা টাকার বিনিময়ে সেই ম্যাচ ছেড়ে দিয়েছে পাকিস্তানকে। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের (এসএলসি) নির্বাহী পর্ষদের জরুরী সভা হয়। সেই সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এসএলসির পক্ষ থেকে আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী ইউনিটকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে, এই ম্যাচ নিয়ে অনুসন্ধান ও তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনার জন্য।
আইসিসি তদন্ত কার্যক্রমের ক্ষেত্রে নিশ্চুপ থাকলেও ক্রিকবাজের দাবি, আকসুর কর্মকর্তারা এসএলসির আহ্বানে সাড়া দিয়ে এই ম্যাচ আতশি কাঁচ দিয়ে পর্যবেক্ষণ করবেন। শ্রীলঙ্কা আকসুকে চিঠি দিয়েছিল কয়েকদিন আগে। আকসু সেই চিঠি আমলে নিয়েছে। যদিও ঐ সংসদ্য সদস্য ক্রিকবাজের কাছে নতুন করে দেওয়া বক্তব্যে কিছু খোলাসা করে বলতে চাননি। তার কাছে কোনো প্রমাণ আছে বলে জানা যায়নি।
ইতিহাসের পাতায় ঠাই নেওয়া সেই ম্যাচে আগে ব্যাট করে ২২২ রান জড়ো করে শ্রীলঙ্কা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে অধিনায়ক বাবর আজমের শতকে ভর করেও ২১৮ রানে গুটিয়ে যায় সফরকারী পাকিস্তান। লঙ্কানদের পক্ষে প্রবাথ জয়াসুরিয়া পান ফাইফারের দেখা। শ্রীলঙ্কা তাদের দ্বিতীয় ইনিংসে ঠিক ১০০ ওভার ব্যাট করে ৩৩৭ রানে অলআউট হয়ে জয়ের জন্য পাকিস্তানের লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৪২ রান। 
প্রথম ৩ ইনিংসে মুড়িমুড়কির মতো উইকেট পড়লেও পাকিস্তান অবিশ্বাস্য প্রতিরোধ গড়ে তোলে চতুর্থ ইনিংসে, যখন ব্যাট করা সবচেয়ে কঠিন হওয়ার কথা ছিল। চতুর্থ দিনের প্রায় পুরো দিন ব্যাট করে ৩ উইকেট হারিয়ে ২২২ রান জড়ো করেন বাবররা। শেষদিন তাই জয়ের জন্য বেগ পেতে হয়নি মোটেও। আবদুল্লাহ শফিক ৪০৮ বলে ১৬০ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে দলকে পৌঁছে দেন জয়ের বন্দরে। এছাড়া অর্ধশতক হাঁকান বাবর আজম। বোলিং বান্ধব ভেন্যু গলের টেস্ট ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে বেশি রান তাড়া করে জয়ের নজির।
বাংলাদেশের ক্রিকেটসহ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সব ধরনের খবর সবার আগে পেতে এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রাইব করুন BDCricTime Videos চ্যানেলটি। বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।
সম্পর্কিত খবর