Scores

সমর্থকদের ইতিবাচক পরিবর্তনে খুশি সাকিব

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার ম্যাচে এখন ২২ গজ ছাড়াও প্রতিদ্বন্দ্বীতা চলে দুই দলের সমর্থকদের মধ্যেও। দুই দলের মধ্যকার ম্যাচ এখন চির প্রতিদ্বন্দ্বীতার মতো উত্তাপ ছড়ায়। খেলোয়াড়দের পাশাপাশি এখানে সমর্থকদেরও বড় অবদান দেখেন সাকিব আল হাসান। তবে শুধু ভারত নয়, সব বড় দলের বিপক্ষেই এমন মানসিকতা প্রয়োজন।

সমর্থকদের ইতিবাচক পরিবর্তনে খুশি সাকিব

একটা সময় বাংলাদেশের নামের পাশে জয় ছিল খুবই কম। কিন্তু গত কয়েক বছরে তা ঘুরে গিয়েছে। বিশেষ করে ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশ হয়ে উঠেছে শক্তিশালী পরাশক্তি। সাকিবের মতে তাদের প্রজন্মের ক্রিকেটারদের সব ম্যাচ জিততে চাওয়ার ইচ্ছাশক্তি থেকেই এটা সম্ভব হয়েছে। আর এখানে বড় অবদান রয়েছে সমর্থকের মানসিকতা পরিবর্তন ও বেশি বেশি জয় দেখতে চাওয়ার তৃষ্ণা।

Also Read - সাকিবের আইপিএল একাদশের অধিনায়ক গম্ভীর


সম্প্রতি ক্রিকবাজকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সাকিব বলেন, ‘এখন বড় দলগুলোর বিপক্ষে আমরা লড়াই করতে চাই, চ্যালেঞ্জ নিতে চাই; ম্যাচ জিততে চাই। এটা আমাদের প্রজন্ম থেকেই শুরু হয়েছে; আমরা সব দলের বিপক্ষেই ম্যাচ জিততে চাই।’

ভারতের বিপক্ষে ম্যাচগুলোতে এখন বেশিই আক্রমণাত্মক থাকেন বাংলাদেশি ভক্তরা। সমর্থকদের পরিবর্তনে ইতিবাচকতা দেখলেও বাংলাদেশি অলরাউন্ডার স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন সীমানা পেরোনো যাবে না। ম্যাচ শেষে আবার সবাইকেই বাস্তবতায় ফিরতে হবে।

সাকিবের ভাষায়, ‘এই মানসিকতাটা আমাদের সমর্থকদের মধ্যেও এসেছে। তারা এখন ম্যাচগুলোর সাথে আরও বেশি সম্পৃক্ত হয়। আমরা ভারতের বিপক্ষে যে ম্যাচই খেলি তারা প্রত্যেকটাতে জয় চায়। তার মানে এই নয় যে শুধু ভারতের বিপক্ষেই এভাবে জয় চায়, সব দলের বিপক্ষেই এটা। এখন আর তারা ভাবে না যে বড় দলের বিপক্ষে আমরা পারব না। আমার মতে এটা আমাদের খেলার জন্যই ভালো হয়েছে। তবে অবশ্যই সীমানা পার করা যাবে না।’

ভারতের বিপক্ষে তীরে যেয়ে তরী ডুবেছে বাংলাদেশের বেশকিছু ম্যাচে। যার মধ্যে ২০১৬ সালের ১ রানের হারটা এখনো তাড়া করে সাকিবদের, ‘এটা অনেকদিন আমাদের মনে থেকেছে। এমনকি এখনো আমরা কোনো ম্যাচ জয়ের খুব কাছাকাছি যাওয়ার পরে ওই কথা মনে পড়ে। ওই ম্যাচে আমরা বড় ধাক্কা খেয়েছিলাম কিন্তু অনেক কিছু শিখেছিলামও। শেষ না হওয়া পর্যন্ত আসলেই শেষ না- এটা আমরা মানি এখন। আর একদম শেষ না হওয়া পর্যন্ত আর আমরা উদযাপনও করি না।’

অনূর্ধ্ব ১৯ দল আবার ভারতকে হারিয়েই জয় করেছে বিশ্বকাপ। সাকিবের মতে এই দলটি থেকেও উঠে আসছে দলের জন্য খুব প্রয়োজনীয় লড়াকু মানসিকতার কিছু খেলোয়াড়।

‘আমাদের সফল ক্রিকেট দল হতে হলে এরকম যোদ্ধা লাগবে। প্রতি প্রজন্মেই এরকম আসে। হয়তো কেউ শান্ত, নীরব হয় আবার কেউ খুব চঞ্চল হয়। সবসময় বলে লড়াই করব, জিততে চাই। আমাদের এটার অভাব ছিল একসময় কিন্তু এখন আমাদের সবই আসছে।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

চলতি মাসেই শুরু নতুন অনূর্ধ্ব-১৯ দল গঠনের কার্যক্রম

অনুশীলনে যোগ দিচ্ছেন রিয়াদ-মুমিনুল-সৌম্যরা

শীঘ্রই দেশে ফিরছেন সাকিব

বিশ্বকাপ ও মুস্তাফিজুর রহমান

আকবরদের দেওয়া কথা রাখতে ‘এক পায়ে খাড়া’ বিসিবি