Score

সমালোচকদের কড়া জবাব দিলেন তাসকিন

ইনজুরিতে পরে দীর্ঘদিন দলের বাইরে থাকার পর হঠাৎ আফগানিস্তান প্রিমিয়ার লিগে খেলার সুযোগ পাওয়া অনেক বড় সুখবরই ছিল তাসকিনের জন্য। ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো দেশের বাইরে কোন ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলতে যাওয়ার খবরে যখন খুশি তাসকিন তারই মাঝে আরেক বাধভাঙা খুশির সংবাদ শোনেন তিনি।

বাবা হলেন তাসকিন

বিয়ের পর বছর না ঘুরতেই সন্তানের বাবা হন জাতীয় দলের অন্যতম এ পেসার। শনিবার রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে তাদের প্রথম পুত্রসন্তানের জন্ম দেন তাসকিন পত্নী সৈয়দা রাবেয়া নাঈমা। সাধারণত জীবনের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এ মুহূর্ত সবার সাথে শেয়ার করার জন্য মুখিয়ে থাকে সব বাবাই। ব্যতিক্রম হয়নি তার ক্ষেত্রেও।

শনিবারই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তার অফিসিয়াল পেজ থেকে একটি পোষ্টের মাধ্যমে বাবা হওয়ার খবর জানান দেন তাসকিন। মুহুর্তের মধ্যেই সেখবর ছড়িয়ে পড়তে থাকে পুরো ফেসবুক জুড়ে। কমেন্টে অভিনন্দন জানান তার হাজারো শুভাকাঙ্খী। কিন্তু এরই মাঝে তার সমালোচনায়ও মাতেন বহুলোক।

Also Read - দেশে ফিরেছেন তামিম

সাধারণত বাংলাদেশে ২৩ বছর বয়সে বাবা তো দূর, বিয়ের পিড়িতেও বসেন না বেশিরভাগ মানুষ। তাই এ বয়সে বাবা হওয়া নিয়ে ক্রমাগত তাসকিনকে খোঁচা দিতে থাকে সমালোচকরা।

সাধারণ বাংলাদেশিদের অনেক আগেই মাত্র ১৯ বছর বয়সে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা, অর্থ উপার্জন করে নিজের পায়ে দাড়ানোসহ যশ-খ্যাতি অর্জন করে তারকা বনেন তাসকিন। এত অল্প বয়সে এত অর্জন নিয়ে কেউ প্রশ্ন না তুললেও স্বল্প বয়সে বিয়ে আর সন্তানের বাবা হওয়া যেন সহ্য হচ্ছে না কিছু মানুষের।

অনেকেতো রীতিমত দাবী তুলেছেন যে বিয়ের আগেই গর্ভধারণ করে তাসকিন স্ত্রী রাবেয়া। তাই বাধ্য হয়ে সেই পোষ্টেই কমেন্টের মাধ্যমে নানামুখী সমালোচনার জবাব দিলেন তাসকিন আহমেদ।  

কমেন্টে তাসকিন লিখেন, সবার উদ্দেশ্যে ১ টা কথা বলি, কেউ মনে কিছু নিয়েন না , আমার বিয়ে হইসে ১১ মাস. দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ থেকে এসেই বিয়ে করলাম ৩১ অক্টোবর এবং বিয়ের বয়স হলো ১১ মাস, সাউথ আফ্রিকা ছিলাম ৪৮ দিন, সব মিলিয়ে হল ১২ মাস ১৮ দিন. আমার পুত্র সন্তান হইলো ৯ মাস ২৭ দিনে.. যদি বিয়ের আগে আমার স্ত্রী প্রেগন্যান্ট হইতো তাহলে আমার বাচ্চা বিয়ের ৬ মাস এর মধ্যেই দুনিয়াতে থাকতো..যাই হোক যাদের ভুল ধারণা ছিল আমাদের প্রতি তাদের জন্যে এই মেসেজটি। ধন্যবাদ”

সাধারণত জীবনের এমন আনন্দঘন মুহূর্তে খুবই বিব্রত না হলে বাবা হওয়ার ব্যাখ্যা দেয়ার মতো কাজ করে না কোন মানুষই। তাই তাসকিনের এই কমেন্টের মাধ্যমে সহজেই বোঝা যায় এসব সমালোচনাকারীদের বিরুদ্ধে তার ক্ষোভ কতটুকু।

– নূর মোহাম্মদ হৃদয়

আরও পড়ুন: হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে বাসায় সাকিব

Related Articles

“কোনো আঘাত দিয়ে থাকলে কষ্ট নেবেন না”

নিজেকে আনলাকি দাবি তাসকিনের

তাসকিনের ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে লিড পেল ঢাকা

ব্যাটের পর বল হাতেও ভালো সূচনা তাসকিনের

দেশে ফিরে আসছেন তাসকিন