Scores

দাপুটে জয়ে সিরিজ নিশ্চিত বাংলাদেশের

ইউসিবি বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে মধ্যকার তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে ৭ উইকেটে হারিয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে বাংলাদেশ। দলের জয়ে ব্যাট হাতে অবদান রেখেছেন ইমরুল কায়েস ও লিটন দাস।

সহজ জয়ে সিরিজ নিশ্চিত বাংলাদেশের
লিটন-কায়েস মিলে ১৪৮ রানের জুটি গড়েন। ছবিঃ বিডিক্রিকটাইম

ম্যাচটি ছিল জিম্বাবুয়ের জন্য সিরিজ বাঁচানোর লড়াইয়ের। এই ম্যাচ জিতলেই সিরিজে সমতায় আনত জিম্বাবুয়ে। কিন্তু সেটি হতে না দিয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতে নিয়েছে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের দেওয়া ২৪৭ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দারুণ করেছিলো বাংলাদেশ দলের দুই ওপেনার লিটন কুমার দাস ও ইমরুল কায়েস।

শুরুর দিকেই সাজঘরে ফিরে যেতে পারতেন লিটন। জার্ভিসের বলে এল্বির ফাঁদে পড়েছিলেন লিটন কিন্তু রিভিউ নিয়ে সেই যাত্রায় বেচে যান তিনি। সেই সুযোগ কাজে লাগান লিটন। জিম্বাবুয়ের বোলারদের পাত্তা না দিয়ে নিজের সাবলীল ক্রিকেটটাই খেলে যান লিটন। অপরপাশ থেকে তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন কায়েস।

লিটন ও কায়েসের ব্যাটে বড় জয়ের স্বপ্ন দেখছিল বাংলাদেশ। এরই মাঝে ক্যারিয়ারের প্রথম ফিফটি তুলে নেন লিটন। তার পর ফিফটি পান কায়েসও। তবে সেঞ্চুরির আশা করলেও সেটির দেখা পাননি লিটন। ব্যক্তিগত ৮৩ রানে সিকান্দার রাজার বলে ক্যাচ তুলে দেন লিটন। প্রথম ম্যাচের মতো দ্বিতীয় ম্যাচেও হতাশ করেন ফজলে রাব্বি। টানা দ্বিতীয় ম্যাচ ‘শুন্য’ রানে আউট হন তিনি।

Also Read - একই দিনে দুই 'এলিট ক্লাবে' মুশফিক


তার বিদায়ের পর মুশফিককে সঙ্গে নিয়ে দলকে জয়ের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন কায়েস। এইদিকে কায়েসও এগিয়ে যাচ্ছিলেন নিজের দ্বিতীয় শতকের দিকে। কিন্তু দলীয় ২১১ রানে রাজার বলে চিগুম্বুরার হাতে ক্যাচ তুলে ৯০ রানে বিদায় নেন কায়েস। তারপরে দলের হয়ে বাকি কাজটা করে দেন মুশফিক ও মিঠুন। শেষ পর্যন্ত ৪০ করে অপরাজিত থাকেন মুশফিক এবং ২৪ করে অপরাজিত থাকেন মিঠুন।

সহজ জয়ে সিরিজ নিশ্চিত বাংলাদেশের
জিম্বাবুয়ের হয়ে সর্বোচ্চ ৭৫ রান করেন টেলর। ছবিঃ বিডিক্রিকটাইম

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ২৪৬ রানে ইনিংস থামে জিম্বাবুয়ের। নিজেদের ইনিংসের শুরুতেই অধিনায়ক মাসাকাদজাকে হারায় জিম্বাবুয়ে। তার বিদায়ে দলের হাল ধরেছিলেন জুয়াও ও ব্রেন্ডল টেলর। দুজনেই বেশ সাবলীল ব্যাটিং করেন। দুইজন মিলে গড়েন ৫২ রানের জুটি। ব্যক্তিগত ২০ রানে মিরাজের বলে আউট হন জুয়াও। তার বিদায়ে উইলিয়ামসকে নিয়ে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে যান টেলর। জিম্বাবুয়ের উইকেটকিপার তুলে নেন ফিফটি।

ব্যক্তিগত ৭৫ রানে মাহমুদউল্লাহর বলে আউট হন টেলর। ব্যক্তিগত ৪৭ রানে সাইফউদ্দীনের বলে আউট হন উইলিয়ামস। শেষদিকে রাজার ৪৯ ও পিটার মুরের ১৭ রানে ২৪৬ সংগ্রহ করে জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট লাভ করেন সাইফউদ্দীন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

জিম্বাবুয়ে ২৪৬-৭ (ওভার ৫০)

টেলর ৭৫, রাজা ৪৯: সাইফউদ্দীন ৩-৪৫

বাংলাদেশ ২৫০- (ওভার ৪৪.১)

কায়েস ৯০, লিটন ৮৩: রাজা ৩-৪৩

ফলাফলঃ ৭ উইকেটে জয়ী বাংলাদেশ।

আরও পড়ুনঃ দশ হাজারি ‘এলিট ক্লাবে’ মুশফিক

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

মুস্তাফিজ-কায়েসের দলে না থাকার কারণ

বৃষ্টির কল্যাণে রক্ষা পেল বাংলাদেশ ‘এ’ দল

কায়েসের পর আফিফের ব্যাটে লড়ছে বাংলাদেশ

আক্ষেপ নিয়ে ফিরলেন ইমরুল

বিজয়-নাইমের ব্যাটে বাংলাদেশের প্রতিরোধ