সাইফউদ্দিন নিজেই নিজেকে মোটিভেট করেন

0
1468

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ শেষে এখন ছুটিতে আছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। এই অবসর সময়েই বিডিক্রিকটাইমের মুখোমুখি হয়েছেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তিনি জানান, অবসর সময়ে কীভাবে নিজেকে মোটিভেট করেন।

ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য সাইফউদ্দিনের টোটকা 'মুশফিক'
মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন

নিজেকে মোটিভেট করার জন্য মানুষ বিভিন্ন পথ বেছে নেন। এক্ষেত্রে সাইফউদ্দিন তনিজেকে মোটিভেট করার পথ বেছে নিয়েছেন তারই খেলা আগের ম্যাচগুলোতে নিজের বোলিংয়ের ভিডিও দেখে। অবসর সময়ে নিজের বোলিংয়ের এসব পুরোনো ভিডিও দেখে নিজেকে মোটিভেট করেন এই অলরাউন্ডার।

Advertisment

তিনি জানান, “অবসর সময়ে বা যখন কাজ থাকে না, সময় যেতে চায় না, তখন নিজের খেলার পুরানো ভিডিওগুলো দেখি। যেগুলো ভালো বোলিং করেছিলাম, সেগুলো দেখা হয়। এগুলো দেখার সময় একটা বাড়তি উদ্দীপনা কাজ করে। আত্মবিশ্বাস আসে যে আমি ভালো করেছি এবং সামনে আরও ভালো করব। এগুলো দেখেই নিজেকে নিজেই মোটিভেট করি।”

দারুণ ইয়র্কার বোলিং করতে পারার সুখ্যাতি সাইফউদ্দিনের। এই পেসার নিজে মনে করেন শুধু ইয়র্কার না, যেকোনো ধরনের বলই ভালোভাবে করতে হলে আগে আত্মবিশ্বাসী হতে হবে। সাইফউদ্দিনের ভাষায়,

“ইয়র্কার এমন একটি ডেলিভারি, যার সবগুলোই আত্মবিশ্বাসের ওপর নির্ভর করছে। আপনি সারাদিনও যদি অনুশীলনে শতভাগ চেষ্টা দেন কিন্তু ম্যাচে ইয়র্কার করার সময় আত্মবিশ্বাসী না থাকেন তাহলে লো ফুলটস অথবা হাফভলি হয়ে যাবে। অবশ্যই অনুশীলন দরকার, তবে নিজের দক্ষতায় আত্মবিশ্বাস রাখা বেশি গুরুত্বপূর্ণ। যে যত বেশি আত্মবিশ্বাসী হবে, সে তত ভালো বোলিং করতে পারবে সেটা যে বলই হোক।”

সাইফউদ্দিন একজন অলরাউন্ডার, তাই বলের পাশাপাশি ব্যাট হাতেও দল তার কাছে থেকে ভালো কিছু প্রত্যাশা করে। এই ক্রিকেটার নিজেও ব্যাটিং-বোলিং দুইটিই উপভোগ করেন তবে বোলিংকেই বেশি গুরুত্ব দেন তিনি।

সাইফউদ্দিনের ভাষায়, “আমার প্রথম কাজ হচ্ছে বোলিং। ব্যাটিংয়েও যখনই সুযোগ পাই, ভালো কিছু করার চেষ্টা করি। দলের চাহিদা অনুযায়ী সেটা ব্যাটিং হোক কিংবা বোলিং ভালো করতে চাই। দুইটাই উপভোগ করি। তবে এগিয়ে রাখতে বললে অবশ্যই বোলিং আমার অগ্রাধিকার।”