Scores

সাইফ-আফিফে এইচপির বড় সংগ্রহ

শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দলের বিপক্ষে সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ও শেষ আনঅফিসিয়াল ওয়ানডেতে সাইফ হাসানের শতক ও আফিফ হোসেনের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে বড় সংগ্রহের দেখা পেয়েছে বাংলা্দেশ হাই পারফরম্যান্স ইউনিট। স্বাগতিকদের পক্ষে সর্বোচ্চ ১১৭ রান এসেছে সাইফের ব্যাট থেকে। তাছাড়া আফিফের ব্যাট থেকে এসেছে রান।

সাইফ হাসান। ফাইল ছবি

খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে প্রতিপক্ষের আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে আগে ব্যাট করতে নামে স্বাগতিকরা। ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে নেমে এদিনও ভালো করতে পারেননি নাইম শেখ। ইনিংসের চতুর্থ ওভারেই সাজঘরের পথ ধরেন তিনি। কালানা পেরেরার বলে ব্যক্তিগত ৬ রানে আসেন বান্দারার হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন তিনি। তার বিদায়ে দলীয় ৯ রানে প্রথম উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। শুরুর ধাক্কার পর দলের হাল ধরেন সাইফ হাসান ও নাজমুল হোসেন শান্ত।

Also Read - দেশে ফিরেই ক্যাম্পে যোগ দিলেন সাকিব


সাইফের দেখে-শুনে খেলার বিপরীতে বলের সাথে পাল্লা দিয়ে রান তুলতে থাকেন শান্ত। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ৭৪ রান যোগ করেন এ দুজন। ৩৯ রান করে শান্ত রামেশ মেন্ডিসের শিকারে পরিণত হলে ভাঙ্গে জুটি। দলীয় ৮৩ রানে দলনেতার শান্ত’র বিদায়ের পর সাইফের সাথে ক্রিজে যোগ দেন ইয়াসির আলি। তবে আজ আর আগেরদিনের মতো নিজের সেরাটা দিতে পারেননি ইয়াসির।

হাসারাঙ্গার বলে জেহান ড্যানিয়েলের তালুবন্দী হয়ে আজ ফিরেন তিনি মাত্র ৯ রান করে। এর ফলে দলীয় ৯৫ রানে তৃতীয় উইকেটের পতন ঘটে স্বাগতিকদের। দ্রুত দুই উইকেট হারানোর পর সাইফের সাথে দলের হাল ধরেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। চতুর্থ উইকেট জুটিতে ইনিংস মেরামতের পাশাপাশি দলকে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে নিয়ে যান তারা।

মূল্যবান এ উইকেট জুটিতে শতক পূর্ণ করেন সাইফ। অর্ধশতকের মাইলফলক স্পর্শ করতে সাইফ খেলেছিলেন ৮৪ বল। শুরুতে ধীরগতিতে ব্যাট করলেও সময় গড়ানোর পরিক্রমায় খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসেন তিনি। একের পর এক ওভার বাউন্ডারিতে রান তুলতে থাকেন দ্রুতগতিতে। পরবর্তী ২৮ বলে তুলে নেন আরও ৫০ রান। ১২২ বলে শতক পূর্ণ করার পর আরও ভয়ঙ্কর রূপে আবির্ভূত হন তিনি। পরবর্তী ৮ বলে নিজের নামের পাশে যোগ করেন আরও ১৭ রান।

শেষ পর্যন্ত ব্যক্তিগত ১১৭ রানে থামে তার ইনিংস। ১৩০ বলের ইনিংসটি ৭ ছক্কা ও ৪ চারে সাজান তিনি। তার বিদায়ে ভাঙ্গে ১২৫ রানের মূল্যবান পঞ্চম উইকেট জুটিটি। সতীর্থ সাইফকে হারিয়ে দলের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন আফিফ। ৪ চার ও ১ ছক্কায় অর্ধশতক পূর্ণ করে দলকে এগিয়ে নিয়ে যান লড়াকু সংগ্রহের দিকে।

শেষ দিকে তার ও ইয়াসিনের ব্যাটিং দৃঢ়তায় নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে  উইকেটে রানের পুঁজি পায় স্বাগতিকরা। আফিফ ৬৮ ও ইয়াসিন মাঠ ছাড়েন ১৩ রানে অপরাজিত থেকে। ৬ চার ও ১ ছক্কায় ৭০ বল মোকাবেলায় এ রান করেন আফিফ। অন্যদিকে ১৩ বল খেলে ১ চারে ১৩ রান করেন ইয়াসিন।

সফরকারী বোলারদের মধ্যে পেরেরা সর্বোচ্চ দুটি উইকেট লাভ করেন। তাছাড়া  ফার্নান্দো, মেন্ডিস, হাসারাঙ্গা প্রত্যেকের প্রাপ্তিতেই মেলে একটি করে উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

বাংলাদেশ এইচপি: ৫০ ওভারে ২৬৯/৫
সাইফ ১১৭ (১৩০), নাইম ৬ (১২), শান্ত ৩৯ (৪৭), ইয়াসির ৯ (২৪), আফিফ ৬৮* (৭০), জাকির ৭ (৭), ইয়াসিন ১৩* (১১); পেরেরা ১০-১-৪৭-২।

মনোযোগ দিয়ে কোচের দীক্ষা নিচ্ছেন সাকিব-মুশফিকরা।

প্রথমবারের মত বিডিক্রিকটাইম নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশ এবং সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বল বাই বল লাইভ স্কোর, এবং সাম্প্রতিক নিউজ সহ সবকিছু এক মুহূর্তেই পাবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অনলাইন পোর্টাল BDCricTime এর অ্যাপে। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে সার্চ করুন BDCricTime অথবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

অনূর্ধ্ব-১৯ থেকে ১ বছরেই জাতীয় দলে ৫ ক্রিকেটার

ছোটো থেকেই সাকিবের অনুসারী আফিফ

সাকিবের মতো ভুল করেননি আফিফ

খুলনা নয়, সিলেটের হয়ে খেলবেন আফিফ

প্রস্তুতি ম্যাচে অসহায় আত্মসমর্পণ মুশফিক-সাব্বিরদের