Scores

সাকিবের বিকল্প শান্ত

সম্প্রতি এশিয়া কাপের জন্য বাংলাদেশ দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দলে চমক হিসেবে ছিলেন নাজমুল হাসান শান্ত। মাত্র একটি টেস্ট খেলা এই ক্রিকেটারের অন্তর্ভূক্তির কারণ জানিয়েছেন নির্বাচক ও সাবেক বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমন।

 

নাজমুল হোসেন শান্ত।

বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) দল ঘোষণার পর থেকেই সব চেয়ে বেশি আলোচিত হয়েছে শান্ত’র উপস্থিতি নিয়ে।২০১৭ সালে নিউজিল্যান্ডে টেস্টে অভিষেক হয় শান্ত’র। এরপর আর জাতীয় দলে দেখা যায় নি। এদিকে সম্প্রতি আয়ারল্যান্ডে এ’দলের হয়েও খুব বেশি ভালো করতে পারেন নি ২০ বছর বয়সী এই বামহাতি ব্যাটসম্যান।

Also Read - লক্ষ্য একটাই-জায়গাটা পোক্ত করতে হবে


তবে টিম ম্যানেজমেন্টের শান্তকে নিয়ে বড় পরিকল্পনা আছে। যার ফলে রাখা হয়েছে এশিয়া কাপের দলে। এর বাইরে একাদশ সাজাতে আরও কিছু বিষয় নিয়ে কাজ করছে বিসিবি। তামিম ইকবালের ওপেনিং সঙ্গী যেন মিলছে না! ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, এনামুল হক বিজয়কে দিয়ে চেষ্টা চালিয়েও লাভ হয় নি।তবে টি-টোয়েন্টিতে ভালো করছেন লিটন কুমার দাস। ওয়ানডেতেও লিটনকে দিয়ে পরখ করাতে চাইছে টিম ম্যানেজমেন্ট।

এই প্রসঙ্গে হাবিবুল বাশার সুমন জানিয়েছেন, “কয়েকটি জায়গা নিয়ে কাজ করার আছে আমাদের। শুরুতে তামিমের ওপেনিং পার্টনার। যদিও লিটন ভালো করছে।এরপর তিন নম্বর জায়গা। সাকিব এই জায়গায় ভালো করছেন। এরপরেও টিম ম্যানেজমেন্ট নতুন কাউকে চেষ্টা করাতে চাইলে সেই সুযোগ রাখা হয়েছে। যার জন্য দলে আছেন শান্ত। “

এশিয়া কাপের একাদশে সুযোগ না আসলেও শান্তকে নিয়ে বড় পরিকল্পনা করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। ড্রেসিং রুমের পরিবেশের সাথে মানিয়ে নেবার পাশাপাশি প্রয়োজনে বিকল্প হিসেবে রাখা হয়েছে এই বামহাতি ব্যাটসম্যানকে। শান্ত প্রসঙ্গে বাশার আরও বলেন, “যদি সে (শান্ত) একাদশে সুযোগ নাও পায়, ওকে রাখা হয়েছে তৈরী করার জন্য। টিম ম্যানেজমেন্ট মনে করলে এশিয়া কাপেই খেলানো হতে পারে।সে আমাদের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। আমাদের ভবিষ্যতের তিন নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে চিন্তা করছি ওকে। “

[আরও পড়ুনঃ এশিয়া কাপের আগে বার্তা দিয়ে রাখলো আফগানিস্তান]

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

মাধ্যমিকের প্রশ্নপত্রে নিজের নাম দেখে কৃতজ্ঞ তামিম

মেডিকেল রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করছে সাকিবের এনওসি

এই মিরাজ অনেক আত্মবিশ্বাসী

মিঠুনের ‘মূল চরিত্রে’ আসার তাড়না

‘আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি ঠিক হবে না’