“সাকিবের বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস হয় কীভাবে!”

0
716

এক বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ক্রিকেটে ফেরার পরে ব্যাট হাতে সুবিধা করতে পারছিলেন না সাকিব আল হাসান। তাতেই সমালোচনায় মেতেছিলেন নিন্দুকেরা। রবিবার (১৮ জুলাই) সাকিব ম্যাচজয়ী এক ইনিংস খেলার পরে নিন্দুকদের ধুয়ে দিলেন মুশফিকুর রহিম।

"সাকিবের বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস হয় কীভাবে!"

Advertisment

বাবা-মায়ের অসুস্থতার কারণে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ না খেলেই দেশে ফিরে আসতে হয়েছে মুশফিককে। পরিবারের এই কঠিন মুহূর্তে সিরিজ খেলতে না পারলেও ঠিকই দলের পাশেই আছেন মুশফিক। বাংলাদেশের সিরিজ জয় নিশ্চিত করা দ্বিতীয় ম্যাচে ব্যাট হাতে সাকিবের চমৎকার ইনিংসের পরে নিজের প্রতিক্রিয়া জানাতেও ভোলেননি এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

দ্বিতীয় ওয়ানডেতে চাপে পড়েছিল বাংলাদেশ। জয় থেকে বেশ দূরে থাকতেই বিদায় নেন ৭ জন ব্যাটসম্যান। অষ্টম উইকেটে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনকে সাথে নিয়ে চাপ সামাল দিয়ে দলের জয় বের করে আনেন সাকিব। ২০১৯ বিশ্বকাপের পরে রঙিন পোশাকে এটিই সাকিবের প্রথম অর্ধশতক। ম্যাচ জেতানো এই ইনিংস দিয়েই নিন্দুকদের মুখ বন্ধ করেছেন সাকিব। আর সেটি নিয়ে কথা বলার সুযোগ হাতছাড়া করেননি মুশফিকও।

চলমান ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচেও ৫ উইকেট শিকার করেছিলেন সাকিব। তার আগে টেস্ট ম্যাচেও বল হাতে ছিলেন উজ্জ্বল। কিন্তু ব্যাট হাতে রান না পাওয়ায় নিন্দুকদের সমালোচনার তীরে বিদ্ধ হতে হচ্ছিল তাকে। ১০৯ বলে ৯৬ রানের এই অপরাজিত ইনিংসেই সব জবাব দিলেন সাকিব। সাকিবের এই ম্যাচ জয়ী ইনিংসের পরে মুশফিক বলেন,

‘আলহামদুলিল্লাহ। সিরিজ জয়ের জন্য ছেলেদের অভিনন্দন। ফর্ম ক্ষণস্থায়ী কিন্তু ক্লাস চিরস্থায়ী। আমি বুঝি না কয়েকবার ব্যর্থ হলেই মানুষের সাকিবের বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস হয় কীভাবে! সে একজন কিংবদন্তি এবং বাংলাদেশের জন্য সে চিরদিনই একজন কিংবদন্তি থাকবে। খুব ভালো খেলেছে সাকিব।’

৪ রানের জন্য সেঞ্চুরি পাননি সাকিব। তবে দলকে খাদের কিনারা থেকে তুলে জয় এনে দেওয়া তার এই ইনিংস সেঞ্চুরির থেকে কম কিছু নয়। এছাড়া এই ইনিংস খেলার পথে তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১২ হাজার রানের ক্লাবে প্রবেশ করেছেন সাকিব। বিশ্বের দ্বিতীয় ও সবচেয়ে দ্রুততম ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১২ হাজার রান ও সাথে ৫০০ উইকেট শিকারের রেকর্ডও গড়েছেন তিনি।