Scores

আবার কবে র‍্যাংকিংয়ে ফিরছেন সাকিব?

আজ ২৯ অক্টোবর, উঠে গেছে সাকিব আল হাসানের উপর আরোপিত আইসিসির নিষেধাজ্ঞা। গত বছরের ২৯ অক্টোবর নিষেধাজ্ঞা পেলে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিং থেকে সাকিবের নাম মুছে ফেলে আইসিসি। তবে নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় আবারো র‍্যাংকিংয়ে অন্তর্ভুক্ত হবে তার নাম।

নিষেধাজ্ঞার আগে সাকিব ছিলেন বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার- তা শুধু বাহ্যিক দৃষ্টিতেই নয়, পরিসংখ্যান আর র‍্যাংকিংয়ের বিচারেও। তিন ফরম্যাটেই অলরাউন্ডার র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে থাকার স্বাদ নিয়েছেন সাকিব, বড় একটা সময় সব ফরম্যাটেরই শীর্ষ অলরাউন্ডার ছিলেন। বাকি সময়ও কোনো না কোনো ফরম্যাটে শীর্ষেই ছিলেন। নিষেধাজ্ঞার আগেও একদিনের ক্রিকেটে তিনি ছিলেন শীর্ষ অলরাউন্ডার।

Also Read - সাকিবের প্রত্যাবর্তনে উচ্ছ্বসিত ভিনদেশি সমর্থকরাও


ভক্তদের মনে প্রশ্ন- কবে আবার সাকিব র‍্যাংকিংয়ে ফিরবেন? মহামারীতে বিপর্যস্ত বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক সূচি, তাই সামনে কোনো খেলা নেই। সাকিব তার পরবর্তী আন্তর্জাতিক ম্যাচ কবে খেলবেন, তার কোনো নিশ্চয়তাও আপাতত নেই। তবে সাকিব-ভক্তরা শুনে খুশি হতে পারেন- আইসিসি যখনই তাদের পরবর্তী হালনাগাদকৃত র‍্যাংকিং প্রকাশ করবে, তখনই র‍্যাংকিংয়ে থাকবে সাকিবের নাম।

সাধারণত প্রতিটি সিরিজের পর আইসিসি র‍্যাংকিং হালনাগাদ করে। ৩০ অক্টোবর থেকে পাকিস্তানে স্বাগতিক দলের বিপক্ষে জিম্বাবুয়ের ওয়ানডে সিরিজ শুরু হবে, যা শেষ হবে ৩ নভেম্বর। সেই হিসেবে ৪ নভেম্বর আইসিসি হালনাগাদকৃত ওয়ানডে র‍্যাংকিং প্রকাশ করবে ৪ নভেম্বর।

সাকিব সেদিনই ফিরতে পারেন র‍্যাংকিং টেবিলে। র‍্যাংকিংয়ে খেলোয়াড়দের অবস্থান হয় রেটিং পয়েন্টের ভিত্তিতে। স্বভাবতই প্রশ্ন উঠছে- র‍্যাংকিংয়ে ফিরলে সাকিবের রেটিং পয়েন্ট কত হবে? নিষেধাজ্ঞার আগমুহূর্তে অলরাউন্ডার র‍্যাংকিংয়ে শীর্ষস্থানে ছিলেন সাকিব, তখন তার রেটিং পয়েন্ট ছিল ৩৯৪। রিলায়েন্স আইসিসি র‍্যাংকিংয়ের ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত নীতিমালা অনুযায়ী, জাতীয় দলের হয়ে একেকটি ওয়ানডে ম্যাচ হাতছাড়ার কারণে প্রত্যেক খেলোয়াড়কে ০.৫ শতাংশ রেটিং পয়েন্ট হারাতে হবে। অর্থাৎ, সাকিব একটি ম্যাচের জন্য হারিয়েছেন ২ পয়েন্টের মত। তাকে ছাড়া বাংলাদেশ ম্যাচ খেলেছে তিনটি। সব মিলিয়ে প্রায় ৬ পয়েন্ট হারাবেন এই অলরাউন্ডার।

৩৯৪ থেকে ৬ পয়েন্ট হারালে সাকিবের রেটিং কত হবে, তা জানতে গণিতবিদ হওয়ার প্রয়োজন নেই। সাকিবের অনুপস্থিতিতে ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থান ধরে রেখেছেন যিনি, সেই মোহাম্মদ নবীর রেটিং পয়েন্ট ৩০১। ওয়ানডে অলরাউন্ডার র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষ পাঁচে আছেন এবং আগামী র‍্যাংকিং প্রকাশের আগে মাঠে নামবেন- এমন ক্রিকেটার শুধু ইমাদ ওয়াসিম। তৃতীয় স্থানে থাকা এই পাকিস্তানির রেটিং ২৭৮। অতিমানবীয় পারফরম্যান্স করে বসলেও তিন ম্যাচের সিরিজ দিয়ে সাকিবের অনুমিত ৩৮৮ রেটিং পয়েন্ট ছুঁয়ে ফেলার ভাবনা রীতিমত বাড়াবাড়ি হবে তার জন্য!

সহজ কথায় বললে, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ৪ নভেম্বর আইসিসি ওয়ানডে র‍্যাংকিং হালনাগাদ করলে আবারো শীর্ষ অলরাউন্ডার হবেন সাকিব। নিষেধাজ্ঞার আগে টেস্টে ছিলেন তিন নম্বর অলরাউন্ডার, টি-টোয়েন্টিতে দ্বিতীয়। টেস্টে অবশ্য ওয়ানডের চেয়েও বেশি পয়েন্ট হারাবেন সাকিব। একেকটি ম্যাচ হাতছাড়া হওয়ায় রেটিংয়ের ১ শতাংশ নম্বর বিয়োগ হবে। প্রসঙ্গত, আইসিসি টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিং প্রকাশ করবে ১০ নভেম্বর শেষ হওয়া পাকিস্তান-জিম্বাবুয়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজের পর। নভেম্বরে অবশ্য কোনো টেস্ট নেই, তাই টেস্ট র‍্যাংকিং হালনাগাদ হতেও এখনো ঢের দেরি।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 

Related Articles

টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিংয়েও ফিরলেন সাকিব

আইসিসি ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের উন্নতি

আর্চার-হ্যাজলউডের বড় লাফ, সেরা পাঁচে ওকস

চার ধাপ ‘লাফিয়ে’ টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে মালান

১৫২ ধাপ এগোলেন ব্যান্টন, বড় লাফ হাফিজের