Scores

সাত টেস্ট পর জয়ের ধারায় বাংলাদেশ

সিরিজ নির্ধারণী দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে সফরকারী জিম্বাবুয়েকে ২১৮ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে সমতায় সিরিজ শেষ করার পাশাপাশি দীর্ঘ সাত টেস্ট পর টেস্ট জয়ের খরা কাটিয়ে জয়ের ধারায় ফিরেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

২১৮ রানের বড় জয়ে টেস্টে জয়ের ধারায় ফিরলো বাংলাদেশ।
২১৮ রানের বড় জয়ে টেস্টে জয়ের ধারায় ফিরলো বাংলাদেশ।

এর আগে জয়ের জন্য শেষ দিনে বাংলাদেশের প্রয়োজন ৭ উইকেট এমন সমীকরণ সামনে রেখে খেলা শুরুর পর দিনের প্রথম সেশনে প্রাপ্তির খাতায় শন উইলিয়ামস ও সিকান্দার রাজার উইকেট মিলে স্বাগতিকদের। মধ্যাহ্ন ভোজনের আগে দুই গুরুত্বপূর্ণ ব্যাটসম্যানের উইকেট হারালেও ব্রেন্ডন টেলর ও পিটার মুর সেশনের বাকিটা সময় আত্মবিশ্বাসের সাথে লড়ে স্কোরবোর্ডে ৪ উইকেটে ১৬৪ রান যোগ করে বিরতিতে যান।

মধ্যাহ্ন ভোজনের বিরতির পরও আত্মবিশ্বাস ধরে রেখে ব্যাট করতে থাকেন দুজন। তাই সাফল্য পেতে ধৈর্য ধরতে হয় সফরকারী দলের বোলারদের। ইনিংসের ৭২তম ওভারে ধরা দেয় কাঙ্ক্ষিত সেই সাফল্য। মিরাজের বলে ইমরুল কায়েসের হাতে ক্যাচ দিয়ে ব্যক্তিগত ১৩ রানে মুর আউট হলে দলীয় ১৮৬ রানে পতন ঘটে জিম্বাবুয়ের পঞ্চম উইকেটের।

৬৬ রানের এ জুটির ভাঙ্গনের পর খেলায় ছন্দ হারায় সফরকারীরা। মুমিনুল হকের দুর্দান্ত থ্রোতে রেগার্স চাকাভা ও মিরাজের বলে লিটন দাসের দুর্দান্ত ক্যাচে দলীয় ২০১ রানে ডোনাল্ড ত্রিরিপানোর আউটে জিম্বাবুয়ের সপ্তম উইকেটের পতন ঘটলে ম্যাচ বাঁচানোর আশা ফিকে যায় সফরকারীদের।

Also Read - বাংলাদেশ সফরে উইন্ডিজ অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট

এক প্রান্ত থেকে উইকেট হারাতে থাকলেও অন্য প্রান্ত আগলে রেখে প্রথম ইনিংসের পর দ্বিতীয় ইনিংসেও শতক তুলে নেন টেলর। ২০১৩ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে দুই ইনিংসে শতকের পর প্রথম জিম্বাবুয়ান ক্রিকেটার হিসেবে দ্বিতীয়বারের এমন কীর্তি গড়লেও দলের হার এড়াতে পারেননি তিনি।

পঞ্চমবারের মতো টেস্টে এক ইনিংসে ৫ উইকেট শিকার করলেন মিরাজ।
পঞ্চমবারের মতো টেস্টে এক ইনিংসে ৫ উইকেট শিকার করলেন মিরাজ।

ব্রেন্ডন মাভুতাকে চতুর্থ শিকারে পরিণত করার পর জার্ভিসের উইকেট তুলে নিয়ে ক্যারিয়ারে এক ইনিংসে পঞ্চমবারের মতো পাঁচ উইকেট তুলে নিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেন মিরাজ। শেষ পর্যন্ত টেলর অপরাজিত থাকেন ১০৬ রানে। বাংলাদেশের বাকি বোলারদের মধ্যে তাইজুল শিকার করেন দুটি উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড-
বাংলাদেশ: প্রথম ইনিংসে ৫২২/৭ ডিক্লেয়ার।
মুশফিক ২১৯*, মুমিনুল ১৬১, মিরাজ ৬৮*, মাহমুদউল্লাহ ৩৬; জার্ভিস ৭১/৫।
জিম্বাবুয়ে: প্রথম ইনিংসে ২১৩/৯।
টেলর ১০৬, মুর ৮৩, চারি ৫৩; তাইজুল ১০৭/৩, মিরাজ ৬১/৩।
বাংলাদেশ: দ্বিতীয় ইনিংসে ২২৪/৬ ডিক্লেয়ার।
মাহমুদউল্লাহ ১০১*, মিঠুন ৬৭; জার্ভিস ২৭/২।
জিম্বাবুয়ে: দ্বিতীয় ইনিংসে ২২৪/৯।
টেলর ১০৬*, চারি ৪৩; মিরাজ ৩৮/৫, তাইজুল ৯৩/২।

ফলাফল: বাংলাদেশ ২১৮ রানে জয়ী।
সিরিজ: ১-১ সমতায় নিষ্পত্তি।


আরও পড়ুনঃ বাংলাদেশ সফরে উইন্ডিজ অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট

Related Articles

টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে টাইগার বোলার-অলরাউন্ডারদের অবস্থান

নিউজিল্যান্ডের পথে আরো চার ক্রিকেটার

ওয়ানডে দলে যুক্ত হচ্ছেন তাইজুল?

রান-ফোয়ারার ইনিংসে কেন বল করেননি তাইজুল?

সাদা বলেও তো ভালোই পারেন তাইজুল!