Scores

সাদমান বুঝলেন কীভাবে খেলতে হবে নিউজিল্যান্ডে

মূল টেস্ট সিরিজের আগে প্রস্তুতিটা বেশ ভালোভাবেই সেরেছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। রান পেয়েছেন সাদমান ইসলাম, লিটন কুমার দাস, সৌম্য, তামিম ও মিরাজ। বিদেশের মাটিতে প্রথমবার খেলতে যাওয়া সাদমান বুঝলেন কীভাবে নিউজিল্যান্ড কন্ডিশনে খেলতে হবে।

সাদমান-মুমিনুল

ওয়ানডে সিরিজে বোল্ট, হেনরি, সাউদি, ফার্গাসনের পেসের বিপক্ষে দাঁড়াতেই পারেনি বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। তিন ম্যাচে একটিতেও বড় কোন রান পাননি টপ অর্ডাররা। ওয়ানডে সিরিজ তো শেষ…সামনেই টেস্ট সিরিজ। এই সিরিজকে গুরুত্ব দিয়ে ওয়ানডে সিরিজ চলাকালীনই দলের সঙ্গে নিউজিল্যান্ডে এসেছিলেন টেস্ট দলের কয়েকজন সদস্য। নিয়মিত অনুশীলনও করেছেন তারা।

Also Read - ভিডিওঃ নিউজিল্যান্ডে প্রস্তুতি ম্যাচে সাদমানের ৬৭ রানের ইনিংস

আগেই সাদমানদের উড়িয়ে আনাটা এখন পর্যন্ত সফলই বলা যায়। এই কন্ডিশনে যেখানে তামিম, মাহমুদউল্লাহদেরই রান পেতে কষ্ট হয়েছে সেখানে নতুনদের জন্য মানিয়ে নেওয়া তো আরও কঠিন ব্যাপার। তবে সেটিকে মোটামুটি কিছুটা হলেও সহজ করেছেন ক্রিকেটাররা। মূল লড়াইয়ের আগে প্রস্তুতি ম্যাচে রানের দেখা পেয়েছে ব্যাটসম্যানরা। এক মুমিনুল বাদে মোটামুটি সফল সবাই।

৪৫ রান করেছেন তামিম। তিন ওয়ানডেতে তিন রান করা লিটন করেছেন ৬২ রান। ফিফটির দেখা পেয়েছেন মাহমুদউল্লাহ, মেহেদী হাসান মিরাজ। এমনকি এই কন্ডিশনে প্রথম খেলতে আসা সাদমান ফিফটির দেখা পেয়েছেন। মাত্র এক টেস্টের অভিজ্ঞতা নেওয়া সাদমান খেলেছেন ১১৩ বলে ৬৭ রানের ইনিংস। তরুণ এই বাঁহাতি ওপেনার কিছুটা হলেও আঁচ করতে পেরেছেন এমন উইকেট সম্পর্কে।

“আজ ব্যাটিংয়ে ভালো আত্মবিশ্বাস পেয়েছি। কীভাবে খেলতে হবে, সেটাও একটু জানছি। উইকেটটা কেমন হতে পারে, ওটাও একটু ধারণা হয়েছে। আজ আমাদের দলের সবাই ভালো ব্যাটিং করেছে।ওদের পেস বোলার, যাদের মুখোমুখি হয়েছিল ভালো বোলিংই করে। কুইক বোলারদের বিপক্ষেই আমরা আজ রান করেছি। চেষ্টা থাকবে আজ আমরা যেমন ব্যাটিং করেছি, টেস্টেও তেমন করার। আর আজকে সবাই নিজেকে উজাড় করে দিয়ে ব্যাট করছে। আশা করছি, টেস্টেও সবাই তা ধরে রাখবে।”

নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে পেস সহায়ক উইকেটে তাদের সামলানো এমনিতেই একটু কঠিন তারউপর ভারী বাতাস আরও সমস্যায় ফেলে। সাদমান জানিয়েছেন কোচরা আগেই টোটকা দিয়ে রেখেছিলেন কীভাবে খেলতে হবে এই ধরণের কন্ডিশনে। কোচদের পরামর্শই অনুসরণ করেছেন এই তরুণ ব্যাটসম্যান।

“ম্যাচের আগের দিন অনুশীলনেও অনেক বাতাস ছিল। বলা হয়েছে, ওয়েলিংটন ও হ্যামিল্টনে খেলতে হলে এ রকম বাতাসের সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে। আমি তো আট দিন আগে এসেছি, অনুশীলনে সব সময়ই এমন বাতাস ছিল। কোচ নিল ম্যাকেঞ্জিও বলেছেন, এমন বাতাসে বাউন্সের সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে। চেষ্টা করবে একটু দেরি করে খেলতে। বল যে রকমই আসুক, শরীরে নিয়ে খেলতে। আমি এসব মেনেই চেষ্টা করেছি।”

আরও পড়ুনঃ প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশের রান পাহাড়

Related Articles

বর্ষসেরার তিনটি পুরস্কার জিতলেন উইলিয়ামসন

হামলার প্রভাব পড়ল নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া ক্রিকেটেও

হামলার পর টনক নড়েছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের!

নিউজিল্যান্ডে দলের নিরাপত্তা বাড়াতে বলেছে বিসিবি

আম্পায়ারকে লাথি দিলেন নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটার!