Scores

সাদাকালো জার্সিতে তাসকিন-রাজ্জাকদের চাওয়া

ঐতিহ্যবাহী মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব নিজেদের জৌলুশ হারিয়েছে বেশ আগেই। আসন্ন ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের দলবদলেও তার ছাপ স্পষ্ট। তবুও নিজেদের দল নিয়ে বেশ আশাবাদী আব্দুর রাজ্জাক, তাসকিন আহমেদরা।

ম্যাচ না খেলেই দেশে ফিরবেন তাসকিনরা! -

ডিপিএলের চলমান দলবদলের প্রথম দিনের শেষবিকেলে বিসিবির সিসিডিএম অফিসে হঠাৎই শোরগোল। পরে দেখা গেল দল বেধে হাজির হয়েছেন মোহামেডানের ১০জন ক্রিকেটার। যেখানে তাসকিন আর রাজ্জাক বাদে সকলের গায়েই মোহামেডান ফ্যান ক্লাবের জার্সি।

Also Read - মাশরাফির কণ্ঠে সাইফউদ্দিনের ভূয়সী প্রশংসা


তাসকিন-রাজ্জাক ছাড়াও প্রথম দিন একে একে নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেন; আসিফ হোসেন মিতুল, শাকিল হোসেন, মোহাম্মদ মাহমুদুল হাসান, শামসুর রহমান শুভ, শুভাগত হোম চৌধুরী, পারভেজ হোসেন ইমন, আবু হায়দার রনি এবং আবু জায়েদ চৌধুরী রাহি।

প্রাইম ব্যাংক ছেড়ে এবার সাদাকালো শিবিরে অন্তর্ভূত হওয়া রাজ্জাক গণমাধ্যমকে বলেন, ‘মোহামেডানের মতো ক্লাবে খেলা আনন্দের। এটা ঐতিহ্যবাহী ক্লাব। আবাহনী-মোহামেডানে আমরা যারা খেলি তাদের সবসময় কিছুটা আগ্রহ থাকে। একদম ভেতরে হলেও আগ্রহ থাকে। তবে সবসময় হয়ে উঠে না।’

‘আমার কাছে যেটা মনে হয় এসব বড় ক্লাবগুলোতে, নামকরা ক্লাবগুলোতে খেলতে চায় সবাই। আমার ক্ষেত্রেও আসলে ব্যতিক্রম কিছু না। আমিও চাই আসলে খেলতে। এবার ভাগ্যক্রমে সুযোগ হয়েছে মোহামেডানে খেলার।’ সাথে যোগ করেন তিনি।

টানা চার মৌসুম আবাহনীতে কাটানোর পর এবার মোহামেডান দলে যোগ দিয়েছেন পেসার তাসকিন। আগামী ১৫ মার্চ শুরু হতে যাওয়া ডিপিএল দিয়েই প্রথমবারের মত সাদাকালো জার্সি গায়ে চাপিয়ে মাঠে নামবেন তিনি। এনিয়ে বেশ রোমাঞ্চিত তাসকিন। একই সাথে তাসকিনের চাওয়া, আবাহনী-মোহামেডানের দ্বৈরথ বাঁচিয়ে রাখতে সমর্থকেরা যেন মাঠে আসেন।

এ প্রসঙ্গে তাসকিন জানান, ‘আগে দেখা যেত যে ঢাকা লিগে আবাহনী-মোহামেডান খেলা হলে গ্যালারি ভর্তি দর্শক থাকতো। দাঁড়ানোরও জায়গা থাকতো না। আমি বলবো যারা ক্রিকেট প্রেমী আছে, ঢাকা লিগে যেন আরো বেশি আসে এবং আবাহনী-মোহামেডানের সমর্থক তারা যেন মাঠে এসেই সমর্থন করে। এই সমর্থনটা থাকলে হয়তো আগের মতো উত্তেজনা ফিরে আসবে।’

দলের লক্ষ্যের কথা জানাতে গিয়ে ডানহাতি এ পেসার বলেন, ‘আমার মনে হচ্ছে যে আমরা ভালো কিছু করবো। ব্যাটিং-বোলিংয়ে ভারসম্য আছে আমাদের। দিন শেষে ক্রিকেটে নামের থেকে বেশি এক্সিকিউশন করাটা গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যারা আছি তারা যদি সেরাটা দিয়ে পারফর্ম করতে পারি, তাহলে অবশ্যই আমরা সুপার লিগে খেলবো। এবং ভালো কিছু হবে।’

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

সাকিব-রাজ্জাকদের ভবিষ্যৎ ভেবেই অবসর নেন রফিক

রাজ্জাককে নির্বাচক প্যানেলে যুক্ত হওয়ার প্রস্তাব

কাগজ-কলমের হিসেবে বিশ্বাসী নন রাজ্জাক

শিরোপা ধরে রাখল দক্ষিণাঞ্চল

শফিউল-রাজ্জাকের অগ্নিঝরা বোলিংয়ে এগিয়ে দক্ষিণাঞ্চল