সাব্বিরের আউট হওয়াতেই মোমেন্টাম চলে গেছেঃ মুমিনুল

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে সাব্বির রহমানের উইকেট হারানোতেই রাজশাহী কিংস ম্যাচ থেকে ছিটকে গিয়েছে বলে মনে করেন মুমিনুল হক। আক্ষেপ করেছেন অধিনায়ক ড্যারেন স্যামির রান আউট নিয়েও।

সংবাদ সম্মেলনে মোমিনুল
সংবাদ সম্মেলনে মোমিনুল

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স রাজশাহী কিংসকে ১৫৩ রানের টার্গেট ছুঁড়ে দেয়। টার্গেট তেমন কঠিন ছিলো না বলে মনে করেন মুমিনুল। ব্যাটসম্যানরা দায়িত্বশীল ব্যাটিং করলে জেতা সম্ভব ছিলো বলে মনে করেন তিনি। তিনি বলেন, “টার্গেট কঠিন ছিলো না। আমার কাছে মনে হয় সহজ। যদি শেষের দিকে ব্যাটসম্যানরা একটু রেস্পন্সিবল ব্যাটিং করতে পারতো তাহলে হতো। শুরুটা খারাপ হয়েছে। উইকেট নিচু ছিলো।”

রাজশাহীর শুরুটা ছিলো মন্থর। পাওয়ারপ্লেটা কাজে লাগাতে পারেনি তারা। মুমিনুল বলেন, “যখন আপনি ১৫০ রান তাড়া করছেন তখন পাওয়ারপ্লেটা ব্যবহার করা গুরুত্বপূর্ণ। আমরা পাওয়ারপ্লেটা ব্যবহার করতে পারিনি।”

Also Read - উড়ন্ত টাইটান্সের মুখোমুখি বরিশাল বুলস


শিশির পড়াতে ব্যাটিং করাটা একটু সহজ হবে বলে ভেবেছিলেন তিনি। তবে সেটা হিতে-বিপরীত হয়ে গিয়েছে।

প্রথম বলেই সাব্বির রহমানের সাজঘরে ফিরে যাওয়া যে রাজশাহীর জন্য বড় ধাক্কা ছিলো সেটা স্পষ্ট। সাব্বিরের আউট হওয়াতে মোমেন্টাম চলে গিয়েছে বলে মনে করেন তিনি। বলেন, “সাব্বির আউট হওয়াতে মোমেন্টাম অর্ধেক চলে গেছে। আমাদের মেইন ব্যাটসম্যান সাব্বির। আমাদের দলের জন্য সে অনেক গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। ও আউট হওয়ার পর আমি অনেকটা কাভার করেছিলাম। শেষ দিকে স্যামি আউট না হলে ম্যাচটা বের করে যেতো।”

যেই ওভারে আউট হয়েছেন সেই ওভারের প্রথম পাঁচ বলে রান হয়েছিলো ১৯। তবু শেষ বলে উড়িয়ে মারার চেষ্টা করেন। কিন্তু ঠিকমতো ব্যাটে বলে না হওয়ায় বিদায় নিতে হয়।

” ঐ ওভারে ১৯ রান হয়েছিলো। আমি যদি ১ রান নিয়ে নিতাম তাহলে শেষ ওভারগুলোতে ৫০-৬০ আরামসে করতে পারতাম। ওই পরিস্থিতিতে যত রান হয় তত চাপমুক্ত থাকা যাবে। আমিও চেয়েছিলাম এমনটা। তবে বলটা সেভাবে ‘কানেক্ট’ হয় নাই। যদি হত তাহলে ছয়ও হতে পারতো”, বলেন রাজশাহীর এ ওপেনার।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন