Scores

সাব্বিরের ‘১’ রানের আক্ষেপ

জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) ২০তম আসরের চতুর্থ রাউন্ডের ম্যাচে খুলনা বিভাগের বিপক্ষে তাদেরই ঘরের মাঠে প্রথম শ্রেণি ক্যারিয়ারের পঞ্চম শতকের খুব কাছাকাছি গিয়েও ১ রানের আক্ষেপ নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে রাজশাহী বিভাগের ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমানকে। নিজে কাঙ্ক্ষিত মাইলফলকের দেখা না পেলেও ইতোমধ্যে প্রথম ইনিংসে লিডের দেখা পেয়েছে রাজশাহী।

চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৬৬ রান করেন সাব্বির রহমানSabbir Rahman

১৭৭ রানে চতুর্থ উইকেটের পতনের পর ক্রিজে এসেছিলেন সাব্বির রহমান। শুরু থেকেই ধৈর্যের পরিচয় দিয়ে ব্যাট করতে থাকেন তিনি। ১৬ রানে অপরাজিত থেকে শেষ করেন দ্বিতীয় দিনের খেলা।

Also Read - ব্যাট হাতে দ্যুতি ছড়াচ্ছেন সাব্বির


যেখানে আগের দিন শেষ করেছিলেন সেখান থেকেই আজ তৃতীয় দিনে এসে আবারও শুরু করেন একই রূপে ইনিংস। আদর্শ টেস্ট মেজাজে ব্যাট চালিয়ে ৯৬ বল মোকাবেলায় ৭ চারে পূর্ণ করেন প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারের ১৩তম অর্ধশতক।

এরপর আরও দেখেশুনে খেলতে থাকেন ডানহাতি এ ব্যাটসম্যান। ধীরগতির ব্যাটিং তার স্বভাবসুলভ না হলেও এদিন নতুন এ ভূমিকায় দেখা মেলে তার। যার জন্য সফলতার মুখও দেখেন তিনি। মধ্যাহ্ন ভোজনের বিরতি থেকে আসার পর অর্ধশতককে প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারের পঞ্চম শতকে্র খুব কাছাকাছি পৌঁছালেও ৯৯ রানে আফিফ হোসেনের থ্রোতে রান আউট হয়ে সাজঘরে ফিরতে হয় তাকে।

কাঙ্ক্ষিত মাইলফলকে পৌঁছাতে ব্যর্থ সাব্বির ২৩৮ মিনিট ক্রিজে থেকে ১৬৯ বল মোকাবেলা করেন ৯৯ রাম। ১১ চার ও ১ ছক্কার সাহায্যে ইনিংসটি সাজান তিনি।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, এ প্রতিবেদন লেখার সময় দলটির সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৩১৪ রান। ১০৭ বল মোকাবেলায় ২৪ রান নিয়ে মুক্তার আলি আর তার সাথে নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিজে যোগ দিয়েছেন সানজামুল ইসলাম। এ মুহূর্তে প্রথম ইনিংসে ৫ রানে এগিয়ে আছে রাজশাহী।

এর আগে আগে ব্যাট করে প্রথম ইনিংসে সবকয়টি উইকেট হারিয়ে ৩০৯ রান করে খুলনা বিভাগ। বিগত রাউন্ডের ম্যাচগুলোর মতো এ রাউন্ডেরো ব্যাট হাতে রানের মধ্যে নিজেদের ধরে রাখেন এনামুল হক বিজয়, সৌম্য সরকার ও তুষার ইমরান।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭১ রান করেন তুষার। তার পাশাপাশি অর্ধশতক পূর্ণ করে ৬৬ রানে সৌম্য ও ব্যক্তিগত ৫৬ রানে আউট হন বিজয়। এরপর শেষ দিকে জিয়াউর রহমানের ৪৩ রানের ইনিংসে চড়ে স্কোরবোর্ডে ৩০৯ রান যোগ করতে সক্ষম হয় স্বাগতিকরা।

রাজশাহীর বোলারদের মধ্যে ফরহাদ রেজা, শফিউল ইসলাম ও সানজামুল ইসলাম প্রত্যাকেই শিকার করেন তিনটি করে উইকেট।


আরও পড়ুনঃ দেশের জন্য খেলা সবচেয়ে গর্বের বিষয়: তামিম

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ক্যারিয়ারের শেষ ইনিংসেও রঙিন রাজিন

জাতীয় লিগের শিরোপা জিতল রাজশাহী বিভাগ

ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচেও রাজিনের ব্যাটে রান

বিদায়ের কথা জানাতে গিয়ে অশ্রুসিক্ত রাজিন

আশা জাগিয়েও পারলেন না আশরাফুল