“সিরিজটি অনেক স্মরণীয় হয়ে থাকবে”

আবু হায়দার রনির আবির্ভাবে ধরে নেওয়া হচ্ছিল, বাংলাদেশ দলের পেস সমস্যা সমাধান করার জন্যই যেন তাকে পাঠিয়েছেন ক্রিকেট বিধাতা। বিচক্ষণ বোলিংয়ে সবার নজর কেড়ে নিতে পারলেও দলে অবশ্য নিয়মিত হতে পারেননি তিনি। তবে সম্প্রতি আলো ছড়িয়েছেন উইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের টি-২০ সিরিজে।

রনিকে দলে না নেয়ার কারন

আর রনির অভিমত, এই সিরিজটি তার ক্যারিয়ারের অন্যতম স্মরণীয় সিরিজ। তার কারণ একটাই- অনেক বেশি শিখেছেন যে এই সিরিজে!

Also Read - ইনজুরি যেন তার ছায়া!

নিজের প্রথম সিরিজ জয় প্রসঙ্গে রনি বলেন, আমার জন্য এ সিরিজটি অনেক স্মরণীয় হয়ে থাকবেঅনেক কিছু শেখার ছিলআমি গেল দুই বছরে মাত্র ১০ ম্যাচ খেললেও অনেক শিখেছিবিশেষ করে আমি এখন আর কোনো দল বা কোনো ব্যাটসম্যানকেই ভয় পাই না।’

রনির এই ‘কোনো ব্যাটসম্যানকে ভয় না পাওয়া’র মানসিকতা দলের জন্যও প্রয়োজন। আর তিনি ব্যক্তিগতভাবে এই মনোভাবকে দেখছেন নিজের সেরা অর্জন হিসেবে। রনি বলেন, আগে যেমন একটু ভয় থাকতো, ছয় খাবো বা চার খাবো এসব নিয়েএখন মনে করি ছয় বা চার খেলেও ঘুরে দাঁড়াতে পারবোব্যাটম্যানকে আউট করতে পারবোএ সময়ে এটাই আমার বড় অর্জন মনে করি।’

নিজের বোলিংকে আরও উন্নত করার ক্ষেত্রে রনি পাচ্ছেন বোলিং পরামর্শক কোর্টনি ওয়ালশের সহায়তা। ক্যারিবিয়ান এই সাবেক বোলিং কিংবদন্তীর কাছ থেকেই পাচ্ছেন সাহস, পাচ্ছেন প্রেরণা। রনির ভাষ্য, ওয়ালশের যোগ্যতা সবারই জানাআমাকে তিনি সব সময়ই বলেন, তোমার সামনে অনেক সময় আছেতাই ভয় পেয়ে লাভ নেইএখান থেকেই তোমাকে শিখতে হবে।’

খেলোয়াড়ি জীবনে ওয়ালশ মাঠ মাতিয়েছেন উইন্ডিজ বা সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে। নিজের সাবেক দল যখন প্রতিপক্ষ, তখন বর্তমান শিষ্যদের শিখিয়েছেন হাতেকলমে। রনি বলেন, এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজেও (উইন্ডিজ) একই কথা বলেছেন আমাকেসেখানে কিভাবে বল করতে হবে তা দেখিয়েছেনসবচেয়ে বড় কথা তিনি তার নিজের অভিজ্ঞতাগুলো আমাদের সঙ্গে ভাগাভাগি করেনসেগুলো আমার দারুণ কাজে আসেতিনি (ওয়ালশ) আসলে মেন্টর।’

আরও পড়ুন: নিজেদের ব্যর্থতার দায় বোর্ডের উপর চাপাচ্ছেন না রাব্বি

Related Articles

সাকিবের তৃতীয় আঘাত, চাপে আফগানিস্তান

আবু হায়দারের স্বপ্নের মতো শুরু

অভিষেকের অপেক্ষায় শান্ত-রনি, ফিরছেন মুমিনুলও

এপিএলের প্লেয়ার ড্রাফটে তামিম, মুশফিক, আশরাফুলরা

এবার জুনিয়রদের পালা!