Scores

সুজনের পরামর্শেই বাংলাদেশ দলে মুস্তাফিজ

বাংলাদেশ দলে অভিষেকের পর নাড়িয়ে দিয়েছিলেন গোটা বিশ্বকে। নিখুঁত কাটারে রীতিমত তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। তথচ সেই ম্যাচের আগে মুস্তাফিজকে চিনতেন না খোদ তামিম ইকবালও। খালেদ মাহমুদ সুজনের পরামর্শে নেট থেকে সরাসরি জাতীয় দলে খেলার সুযোগ পান মুস্তাফিজ।

শুরুতে নেট বোলার ছিলেন মুস্তাফিজ। খেলতেন অনূর্ধ্ব-১৯ দলেও। বয়সভিত্তিক দলে খেললেও খুব বেশি নাম করতে পারেননি সাতক্ষীরার এই পেসার। তবে অখ্যাত মুস্তাফিজকে ঠিকই চিনেছিলেন বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক সুজন।

Also Read - 'অন্য দলগুলোর বাংলাদেশকে ভয় করা উচিত'


টাইগার ক্রিকেটের বড় একটা অংশ জুড়ে জড়িয়ে আছে সুজনের নাম। বিপিএল, ডিপিএলের মত মঞ্চে নতুন এবং তরুণ ক্রিকেটারদের সুযোগ করে দেন তিনি। সুজনের হাত ধরেই উঠে এসেছেন মুস্তাফিজ। নেটে মুস্তাফিজকে পরখ করে বাংলাদেশ দলের তৎকালীন হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেকে জানিয়েছিলেন সুজন। এরপরের গল্পটা কমবেশি সবারই জানা।

করোনাকালে সাবেক এবং বর্তমান তারকা ক্রিকেটারদের সাথে সরাসরি ভিডিও আড্ডা দিচ্ছেন তামিম। যেখানে রোববার (১০মে) তামিমের অতিথি হিসেবে ছিলেন তিন সাবেক অধিনায়ক নাঈমুর রহমান দুর্জয়, খালেদ মাহমুদ সুজন ও হাবিবুল বাশার সুমন। আড্ডার এক ফাঁকে সুজনের কাছে মুস্তাফিজের উঠে আসার গল্প জানতে চান তামিম।

তামিম বলেন, ‘আমি মুস্তাফিজ সম্পর্কে একটু জানতে চাই। আমি জানি আপনি মুস্তাফিজকে খুঁজে বের করেছেন এবং জাতীয় দলের ক্যাম্পে নিয়ে এসেছেন। তারপর তো জাতীয় দলে সে খেললো। যখন পাকিস্তানের বিপক্ষে মুস্তাফিজ অভিষিক্ত হয়, তখনও আমি ওর বল খেলি নাই। আমি ওরে চিনতামই না। একটু যদি মুস্তাফিজের ব্যাপারটা বলতেন।’

জবাবে সুজন বলেন, ‘আমি যখন বোর্ডের গেম ডেভেলপমেন্টের চেয়ারম্যান হলাম। তখন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের খেলা দেখতে আরব আমিরাত গেছিলাম। তখনই আমি মুস্তাফিজকে দেখি। যদিও আগে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অনুশীলনে দেখি। তবে অনুশীলনে একটা বোলারদের দেখে ওভাবে বিচার করা যায় না, যতটা ম্যাচে করা যায়।’

এরপরের গল্প জানাতে গিয়ে সুজন বলেন, ‘আমি যখন ঢাকা ফিরলাম, বাংলাদেশ দলের সাথে যুক্ত হলাম, হাথুরুসিংহে একদিন আমাকে জিজ্ঞেস করলো, বাঁহাতি ফাস্ট বোলার আছে কীনা? আমি বললাম, দুইটা ছেলে আছে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের। একটা আবু হায়দার রনি, আরেকটা মুস্তাফিজ। ’

‘তখন তাদের শক্তির জায়গা জিজ্ঞেস করলো। আমি বললাম, আবু হায়দার সুইং বোলার। মুস্তাফিজ জোরে বল করে, সুইং আছে আর তার বলে কাটার আছে। বলে কেমন কাটার, বললাম খুব কার্যকারী। বললো ছেলেটাকে আগামীকাল দেখাতে পারবা? বললাম, কেন পারবো না, অবশ্যই পারবো।’- সাথে যোগ করেন তিনি।

২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের আগে ঠিক কী ঘটেছিল জানিয়ে সুজন বলেন, ‘তখন মুস্তাফিজ সাতক্ষীরায়। আমি সকালে মুস্তাফিজকে ফোন করি, মুস্তাফিজ ঢাকা চলে আসে। পরে নেটে বল দেখে চন্ডিকা আমাকে এসে বলে, ও পাকিস্তানের সাথে টি-টোয়েন্টি খেলতেছে। আমি বললাম তুমি কি নিশ্চিত? বললো, হ্যা আমি নিশ্চিত। এভাবেই মুস্তাফিজকে আনা আসলে।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

সুজন স্যার বলতেন, তুই-ই ম্যাচ জিতাবি : শান্ত

ছোটবেলা থেকে সুজন ভাইয়ের স্টাইলে বল করতাম : সৌম্য

সবার বিরোধিতা করে তাসকিনকে দলে নিয়েছিলাম : সুজন

কৃতজ্ঞচিত্তে সুজনের অবদান স্মরণ রিয়াদের

সুজনকে খেলোয়াড় হিসাবে ‘মূল্য’ দিতেন না হোয়াটমোর