Scores

সুপার ওভারের কথা জানাই ছিল না বোল্টের!

আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনালে ম্যাচ টাই হয়, শুধু ম্যাচ নয় সুপার ওভারেও টাই হলে বাউন্ডারির হিসেবে জয় পায় ইংল্যান্ড। ম্যাচ টাই হলে সুপার ওভারে গড়াবে সেটি সবারই জানা। কিন্তু সে বিষয়ে অবগত ছিলেন না নিউজিল্যান্ড পেসার ট্রেন্ট বোল্ট! সেই সাথে নিউজিল্যান্ড সমর্থকদের স্বপ্নভঙ্গ করায় ক্ষমাও চেয়েছেন তিনি।

ট্রেন্ট বোল্ট

বিশ্বকাপ শেষ করে দেশে ফিরেছেন নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটাররা। টানা দুইবার ফাইনালে উঠেও শিরোপা জিততে না পারার কষ্ট ক্রিকেটারদের চেহারায় ভেসে উঠেছিল। লর্ডসের ফাইনালে সুপার ওভারে ‘টাই’ হলে বাউন্ডারির হিসেবে বিজয়ী ঘোষণা হয় ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলকে। অথচ এক পর্যায়ে ম্যাচটি নিউজিল্যান্ডের হাতেই ছিল।

Also Read - শেষ সেশনে নিষ্প্রভ তাসকিনরা


সেই ম্যাচ নিউজিল্যান্ডের হাত থেকে বের করে এনে সুপার ওভারে নিয়ে যান ইংলিশ অলরাউন্ডার বেন স্টোকস। শেষ বলে দুই রান প্রয়োজন হলে সেখান থেকে মাত্র একরান নিতে সক্ষম হয় ইংল্যান্ড। ম্যাচ টাই হলে সেটি সুপার ওভারে গড়াবে সেটি সবাই আগে থেকেই জানত কিন্তু সেটি জানতেন না কেবল বোল্ট। দেশে ফিরে বিমানবন্দরে মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলার সময় এসব জানান তিনি।

“আমার জানা ছিল না যে বিশ্বকাপে ম্যাচ টাই হলে সেটি সুপার ওভারে গড়াবে। শেষ দুই বল বাকি আম্পায়ার বিষয়টি আমাদের জানায়। আমাদের কাজ ছিল সেখান থেকে যেভাবেই হোক ইংল্যান্ডকে আটকানো। আমি আমার কাজ করতে পেরেছি।”

ম্যাচটি হয়ত শেষ পর্যন্ত গড়াত না যদি না বোল্ট স্টোকসের ক্যাচটা ধরতে পারতেন। স্টোকসের মারা শটটি হাতেও নিয়েছিলেন বোল্ট কিন্তু বল হাতে রেখে নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেননি বোল্ট। ফলে সেটি ছয় হয়। বিশ্বকাপ জয়ের এত কাছে এসেও স্বপ্নভঙ্গ হয়েছে নিউজিল্যান্ডের। তার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন বোল্ট।

“সুপার ওভারে দুই দলের রান সমান হওয়ার পরেও যদি হারতে হয় তাহলে সেটি মেনে নেওয়া কষ্টকর। সত্যি বলতে কিছুই বুঝতে পারছিনা কী বলব। আমরা সবার স্বপ্নভঙ্গ করেছি তার জন্য আমরা সত্যি দুঃখিত।”

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

বিশ্বকাপ ফাইনালে ধৈর্যশীলতা দেখানোর পুরস্কার জিতল কিউইরা

‘আমি সর্বদা বলি, সমর্থকরা আমাদের দ্বাদশ খেলোয়াড়’

আইসিসিকে নিশামের খোঁচা

সুপার ওভারের নিয়মে পরিবর্তন আনল আইসিসি

বিশ্বকাপ-ফাইনালের বিতর্কিত নিয়ম ‘চলবে না’ বিগ ব্যাশে!