SCORE

সর্বশেষ

সেঞ্চুরি না পাওয়ায় নিজেকেই দায়ী করছেন তামিম

ত্রিদেশীয় সিরিজে ব্যাট হাতে দারুণ ফর্মে রয়েছেন বাংলাদেশ দলের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল। এই সিরিজে নামের পাশে যোগ করেছেন নতুন মাইলফলকও। প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে একদিনের ক্রিকেটে ৬০০০ রান, প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১১০০০ রান ও এক ভেন্যুতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড সবই গড়েছেন এই ত্রিদেশীয় সিরিজে।

তামিম ইকবালের অর্ধশতক উদযাপন।
তামিম ইকবালের অর্ধশতক উদযাপন।

মাইলফলকের পাশাপাশি এই সিরিজে ব্যাট হাতেও রয়েছেন ফর্মের তুঙ্গে। প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৮৪, দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৮৪ এবং তৃতীয় ম্যাচে ৭৬ রান করেন এই ব্যাটসম্যান। প্রথম দুই ম্যাচে সেঞ্চুরির এতো কাছে এসেও না পাওয়াতে সংবাদ সম্মেলনে আক্ষেপ প্রকাশ করেছিলেন তামিম। বলেছিলেন তৃতীয়বার সুযোগ পেলে সেটি কাজে লাগানোর চেষ্টা করবেন তিনি।

কিন্তু তৃতীয় ম্যাচেও সেঞ্চুরির কাছে এসে না পাওয়াটা আক্ষেপের বড় কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে এই ব্যাটসম্যানের জন্য। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে আবারো আক্ষেপের কথা জানান এই ড্যাশিং ওপেনার। তাঁর মতে ক্রিজে আরো ৬-৭ ওভার ব্যাটিং করতে পারলে সেঞ্চুরি করতে পারতেন তিনি।

Also Read - “উইকেটের ডিমান্ড অনুযায়ী আমাদের ইনিংস ভালো ছিল”

“সেঞ্চুরি করলে অবশ্যই ভালো লাগতো। গত দুই ম্যাচেই সেঞ্চুরির কাছে এসেও না করতে পারা এটি সবসময়ই হতাশাজনক, এটা আমার বলার দরকার নেই আপনারাও বুঝতেছেন। আজকে একটি বড় সুযোগ ছিল। আমার স্পেশাল কিছু করার প্রয়োজন ছিল না। হয়তো আরও ৬-৭ ওভার ব্যাটিং করতে পারলে সেঞ্চুরি করতে পারতাম।”

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এক সাকিব ও তামিম ছাড়া ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে পারেননি কেউই। সাকিব-তামিমের আউটের পর দলের রানের চাকাও যেন অচল হয়ে পড়ে। এই ম্যাচে বড় রান পাননি মুশফিকুর রহিম, পাশাপাশি  মাত্র ২ রান করে আউট হন রিয়াদ। দলের মিডল অর্ডাররা রান না পাওয়াতে ২১৬ এ ইনিংস থামে বাংলাদেশের। মুশফিক-রিয়াদের আউটের পর সাব্বির, নাসিরও ফিরে যান দ্রুত। দলের এমন ব্যাটিংয়ের জন্য নিজেকে দায়ী করছেন তামিম ইকবাল।

“এই অবস্থার কারণ, নিজেকে দায়ী করবো অবশ্যই। কারণ আমি ১০০ এর বেশি বল খেলে ফেলছিলাম ওই সময় এবং আমি জানতাম এই উইকেটে কিভাবে খেলতে হয়। সিনিয়র ক্রিকেটার হিসেবে আমার দায়িত্ব ছিল অন্তত ৪০-৪৫ ওভার পর্যন্ত ক্রিজে থাকা উচিত ছিল আমার স্পেশালি যখন মুশফিক এবং রিয়াদ ভাই আউট হয়ে গিয়েছিল।”

তিনি আরো যোগ করেন, “যেকোন নতুন ব্যাটসম্যানের জন্য সেখানে গিয়ে ব্যাটিং করা খুবই কঠিন। কারণ আপনে যদি ক্রিমারের বল দেখেন, একটা সোজা যাচ্ছিলো, একটা টার্ন হচ্ছিলো যেটা কিনা নতুন ব্যাটসম্যানদের জন্য কঠিন। আমি যদি আরো ৫-৬ ওভার সিঙ্গেল নিয়ে স্ট্রাইক রোটেট করতে পারতাম তাহলে হয়তো এটি হতো না।”

আরও পড়ুনঃ “উইকেটের ডিমান্ড অনুযায়ী আমাদের ইনিংস ভালো ছিল”

Related Articles

রাতে ফিরছেন তামিম, মাশরাফি মঙ্গলবার

“আমাদের খেলা উচিত বাংলাদেশ ব্র্যান্ডের ক্রিকেট”

লিটনের ক্যারিয়ার সেরা রেটিং, র‍্যাঙ্কিংয়ে সাকিব-তামিমের উন্নতি

টি-টোয়েন্টি সিরিজে কে কী পুরস্কার পেয়েছেন?

সিরিজ জয়ের মিশনে মাঠে নামছে বাংলাদেশ