সেপ্টেম্বরে আইপিএল আয়োজন করতে চায় শ্রীলঙ্কা

হুট করে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) বন্ধ হয়ে যায় দুশ্চিন্তার ভাঁজ বিসিসিআইয়ের কপালে। আইপিএল সম্পন্ন করতে না পারলে মোটা অঙ্কের টাকা লোকসান হবে। তবে এই কঠিন পরিস্থিতিতে বিসিসিআইয়ের পাশে দাঁড়িয়েছে শ্রীলঙ্কা।

আইপিএলে নজরকাড়া পারফরম্যান্সে প্রশংসায় ভাসছেন মুস্তাফিজ
আইপিএল বন্ধ হওয়ায় বিরাট ক্ষতির মুখে বিসিসিআই। ফাইল ছবি

অর্থে কিংবা ক্ষমতায় কোনভাবেই বিসিসিআইয়ের সমকক্ষ নয় শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট (এসএলসি)। তবে আর্থিক দিকই যে সবকিছু নয়, বিসিসিআই এখন তা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে। ভারতে করোনা পরিস্থিতি বেশ নাজুক। ভাইরাসের ঊর্ধ্বগতির কারণে চাপের মুখে পড়ে আইপিএল স্থগিত করে বিসিসিআই।

Advertisment

যদিও চতুর্দশ আসরের ৩১টি ম্যাচ এখনও বাকি রয়ে গেছে। এই ৩১টি ম্যাচ আয়োজনই এখন বিসিসিআইয়ের দুশ্চিন্তার কারণ। কারণ নিকট ভবিষ্যতে ভারতে এত খেলোয়াড়-স্টাফ নিয়ে কোনো টুর্নামেন্ট আয়োজনের সম্ভাবনা ক্ষীণ।

তবে ভারতকে অভয় দিচ্ছে শ্রীলঙ্কা। আইপিএলের বাকি ম্যাচগুলো আয়োজন করে আসন সম্পন্ন করার প্রস্তাব দিয়েছে এশিয়ার দেশটির ক্রিকেট বোর্ড। এবার বিসিসিআই সেই প্রস্তাবে সাড়া দেয় কি না তাই দেখার বিষয়।

শ্রীলঙ্কা আগামী সেপ্টেম্বরে তাদের মাঠে আইপিএল আয়োজন করতে চায়। তার আগে মাঠে গড়াবে লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগ বা এলপিএল। সেই প্রস্তুতিতে অনেকটাই গোছানো হয়ে যাবে আইপিএলের মঞ্চ। এই পরিকল্পনাই এসএলসির ভাবনায়।

এসএলসির ম্যানেজিং কমিটির প্রধান অধ্যাপক অর্জুন ডি সিলভা লঙ্কান একটি সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমরা নিশ্চিতভাবে সেপ্টেম্বরে আইপিএল আয়োজন করতে পারি শ্রীলঙ্কায়। আমরা শুনেছি যে, সংযুক্ত আরব আমিরশাহী ভারতের একটা বিকল্প। কিন্তু এক্ষেত্রে শ্রীলঙ্কাকেও উপেক্ষা করার কোনো কারণ নেই।’

‘আমরা জুলাই-আগস্ট মাস নাগাদ লঙ্কা প্রিমিয়র লিগ (এলপিএল) আয়োজনের কথা ভাবছি। সেপ্টেম্বরে এখানে আইপিএল হলে মাঠ ও পরিকাঠামো প্রস্তুত হয়ে যাবে।’– জানান তিনি।

আইপিএলের বাকি অংশ সম্পন্ন করতে না পারলে বিসিসিআইয়ের ক্ষতি হবে প্রায় ২৫০০ কোটি রুপি। মাঝপথে আইপিএল বন্ধ করায় ভারতের বিশ্বকাপ আয়োজনের বিষয়টি ঝুলে আছে।