Scores

সৌম্যর পর মিঠুন ঝড়ে রান পাহাড়ে আবাহনী

‘অলিখিত ফাইনালে’ লিজেন্ডস অব রুপগঞ্জের বিপক্ষে ইনিংসের শুরুতে সৌম্য সরকার ও শেষে মোহাম্মদ মিঠুনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে রান পাহাড়ে চড়েছে আবাহনী লিমিটেড। সৌম্যর শতক, জহুরুল ও মিঠুনের অর্ধশতকে ৭ উইকেটে ৩৭৭ রানের পুঁজি পেয়েছে দলটি। যা চলমান আসরে কোনো দলের পক্ষে সর্বোচ্চ রানের ইনিংস।

 

সৌম্য সরকারের শতক উদযাপন। ফাইল ছবি

হারলেই শিরোপা হাতছাড়া, এমন সমীকরণের ম্যাচে সাভারের তিন নম্বর মাঠে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন আবাহনীর দলনেতা মাশরাফি বিন মুর্তজা। ‘অলিখিত ফাইনালে’ অধিনায়কের সিদ্ধান্ত যে ভুল ছিল না শুরু থেকে তারই যেন প্রমাণ দিতে থাকেন দলটির দুই ওপেনার।

আগের আট ইনিংসে ব্যক্তিগত সংগ্রহ বড় করতে ব্যর্থ ছিলেন সৌম্য। ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বের হতে অবশেষে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটিকেই বেছে নেন তিনি। শুরু থেকে দুর্দান্ত খেলতে থাকা বাঁহাতি এ ব্যাটসম্যান অর্ধশতক পূর্ণ করেন ৩৯ বলে। তাকে যোগ্য সঙ্গ দিতে থাকা জহুরুল তার অর্ধশতক পূর্ণ করেন ৫৯ বলে।

Also Read - বড় অঙ্কের জরিমানার শিকার অশ্বিন

অর্ধশতক পূর্ণের পর আরও মরিয়া হয়ে ব্যাট করতে থাকেন সৌম্য। পেয়ে যান কাঙ্ক্ষিত সাফল্যও। নাবিল সামাদের করা ইনিংসের ২৩তম ওভারের শেষ বলে এক রান নিয়ে শতক পূর্ণ করেন বাঁহাতি এ ব্যাটসম্যান। লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারের পঞ্চম শতক স্পর্শ করার পথে খেলেন ১৪ চার ও ২ ছক্কার মার।

ব্যক্তিগত সংগ্রহ তিন অংকের ঘরে নেওয়ার পর বেশিক্ষণ থিতু হতে পারেননি তিনি। ইনিংসের ২৫তম ওভারের দ্বিতীয় বলে মুমিনুলের হাতে ক্যাচ দিলে থামে তার ইনিংস। আউটের আগে ৭৯ বল মোকাবেলায় তিনি খেলেন ১০৬ রানের কাব্যিক এক ইনিংস।

মোহাম্মদ মিঠুনের অর্ধশতক উদযাপন। ফাইল ছবি

সৌম্যকে আউট করার মধ্য দিয়ে ১৬৯ রানের উদ্বোধনী জুটি ভেঙ্গে দলকে ব্রেক থ্রুর মুখ দেখান নাবিল সামাদ। এরপর দ্রুততম সময়ের মধ্যে নাজমুল হোসেন শান্ত (২৪) ও জহুরুলের উইকেট হারায় আবাহনী। ধাওয়ানের বলে জাকের আলির হাতে ক্যাচ দিলে ব্যক্তিগত ৭৫ রানে থামে জহুরুলের ইনিংস। আর দলীয় ২২১ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় আবাহনী।

দ্রুত দুই উইকেট হারালেও এর প্রভাব খেলায় পড়তে দেননি ওয়াশিম জাফর ও সাব্বির রহমান। সাবলীল গতিতে রান তুলে দলকে বড় সংগ্রহের পথে এগিয়ে নিতে থাকেন তারা। চতুর্থ উইকেট জুটিতে ৫৩ রান যোগ করেন তারা।

অর্ধশতক থেকে ৪ রান দূরে থাকতে জাফরকে আউট করে দলকে ব্রেক থ্রু এনে দেন মোহাম্মদ শহীদ। এরপর ৩৩ রান করা সাব্বির ফিরেন তাসকিনের শিকারে পরিণত হয়ে। ৩০৫ রানে ৫ উইকেট হারানো আবাহনীর স্কোরবোর্ডে ৩৭৭ রান যোগ করতে এরপর বড় ভূমিকা পালন করেন মোহাম্মদ মিঠুন।

তার ঝড়ো ৩৪ বলের ৬৪ রানের কল্যাণে শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেটে ৩৭৭ রানের বিশাল সংগ্রহ দা৬ড় করায় দলটি।

রুপগঞ্জের বোলারদের মধ্যে রর্বাধিক দুটি করে উইকেট শিকার করেছেন শহীদ ও তাসকিন। ৯ ওভারে ৬২ রান দিয়ে শহীদ ও ৫ ওভারে ৫৭ রান দিয়ে উইকেটগুলো নিয়েছেন তাসকিন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড-
আবাহনী:
সৌম্য ১০৬, জহুরুল ৭৫, মিঠুন ৬৪*, জাফর ৪৬, সাব্বির ৩৩; তাসকিন ৫-০-৫৭-২, শহীদ ৯-০-৬২-২।

প্রথমবারের মত বিডিক্রিকটাইম নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশ এবং সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বল বাই বল লাইভ স্কোর, এবং সাম্প্রতিক নিউজ সহ সবকিছু এক মুহূর্তেই পাবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অনলাইন পোর্টাল BDCricTime এর অ্যাপে। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে সার্চ করুন BDCricTime অথবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

Related Articles

সৌম্যকে যেভাবে সাহায্য করেছেন জাফর

ওয়াসিম জাফরের পরামর্শ কাজে লাগানোর প্রত্যাশা

তাণ্ডবের আগে ‘নার্ভাস’ ছিলেন সৌম্য

গর্বিত ‘অধিনায়ক মোসাদ্দেক’, কৃতিত্ব মাশরাফিকে

শেখ জামালকে উড়িয়ে আবাহনী চ্যাম্পিয়ন