স্কটিশ ক্রিকেটারের অকাল মৃত্যু

0
930

শোকের ছায়া নেমে এসেছে স্কটল্যান্ডের ক্রিকেট অঙ্গনে। মাত্র ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৩৮ বছর বয়সেই আজ (১৮ এপ্রিল) পরপারে পাড়ি জমিয়েছেন স্কটল্যান্ড ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার কন ডি ল্যাঙ্গ।

 

Advertisment

স্কটিশ ক্রিকেটার

১৯৮১ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় জন্মগ্রহণ করেন এই স্কটিশ ক্রিকেটার। গত বছর জানা গিয়েছিল তার ব্রেইন টিউমারের খবর। আজ একট টুইট বার্তায় ক্রিকেট স্কটল্যান্ড এই শোকের খবর জানায়। তারা মৃতের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছে।

 

২০১৫ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ দিয়ে স্কটল্যান্ডের জার্সিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল ল্যাঙ্গের। তারপর থেকেই স্কটল্যান্ডের মিডল অর্ডারের অন্যতম ভরসা হয়ে উঠেছিলেন তিনি। দেশটির হয়ে ২১টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিলেন তিনি।

কার্যকরী বাঁহাতি স্পিনে তিনি শিকার করেছিলেন ২৪টি উইকেট। ২০১৭ সালে এডিনবার্গে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে ম্যাচে জয়টি আইসিসির কোনো পূর্ণ সদস্য দেশের বিপক্ষে স্কটল্যান্ডের প্রথম জয় ছিল। সেই ম্যাচে ৬০ রানের বিনিময়ে ৫ উইকেট শিকার করেছিলেন ল্যাঙ্গ।

স্কটল্যান্ডে চলে যাওয়ার আগে দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া লিগে খেলতেন তিনি। কেপ কোবরাস এবং নাইটস দলে খেলেছিলেন তিনি। এছাড়া ইংল্যান্ডেও খেলার অভিজ্ঞতা ছিলো তার। সেখানে খেলেছিলেন নর্দানটম্পশ্যায়ারের দলে।

তারপরে আর পাঁচটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিলেন তিনি। গত বছর (২০১৮ সাল) নভেম্বরে পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে দুবাইয়ে শেষবার মাঠে নেমেছিলেন। অসুস্থতার কারণে তারপরে আর মাঠে ফেরা হয়নি ল্যাঙ্গের।

 

গতবছর অক্টোবরেই জানা গিয়েছিল এই অলরাউন্ডারের অসুখের ব্যাপারে। তার পরিবার ব্রেইন টিউমার চ্যারিটির নিকট আর্থিক সাহায্যের আবেদনও করেছিলো। তখন ক্রিকেট স্কটল্যান্ডের প্রধান নির্বাহি ম্যালকম ক্যানন বলেছিলেন, ‘ল্যাঙ্গ স্কটল্যান্ডের দলে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে। সে একইসাথে আমাদের দলের জনপ্রিয় একজন সদস্যও।’

প্রথমবারে­র মত বিডিক্রিকটাইম নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশ এবং সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বল বাই বল লাইভ স্কোর, এবং সাম্প্রতিক নিউজ সহ সবকিছু এক মুহূর্তেই পাবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অনলাইন পোর্টাল BDCricTime এর অ্যাপে। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে সার্চ করুন BDCricTime অথবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।