স্টার্কের শেষ ওভারে আম্পায়ার-স্কোরারের ভুলে গড়বড় স্কোরকার্ড

0
1624

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার টি-টোয়েন্টি সিরিজের চতুর্থ ম্যাচের শেষ ওভার ছিল টানটান উত্তেজনাকর। সেই ওভারে রান গণনায়ও ভুল করে বসেন আম্পায়ার ও স্কোরার। তবে সেই ভুল ম্যাচের ফলাফলে কোনো ভূমিকা রাখেনি। 

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার টি-টোয়েন্টি সিরিজের চতুর্থ ম্যাচের শেষ ওভার ছিল টানটান উত্তেজনাকর। সেই ওভারে রান গণনায়ও ভুল করে বসেন আম্পায়ার

Advertisment

আগে ব্যাটিং করে নির্ধারিত ২০ ওভারে অস্ট্রেলিয়া সংগ্রহ করেছিল ৬ উইকেটে ১৮৯ রান। মিচেল মার্শ ৭৫ ও অ্যারন ফিঞ্চ ৫৩ রান করে দলকে এই লড়াকু সংগ্রহ এনে দেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে ৩টি উইকেট শিকার করেন হেইডেন ওয়ালশ।

জবাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজও উড়ন্ত শুরু করেছিল। ৭২ রানের ইনিংস খেলে জয়ের ভিত গড়ে দিয়ে যান লেন্ডল সিমন্স। ওয়েস্ট ইন্ডিজের জয়ের জন্য শেষ ওভারে প্রয়োজন ছিল ১১ রান। ব্যাটিংয়ে ছিলেন অন্যতম ভরসা আন্দ্রে রাসেল। অপরদিকে অস্ট্রেলিয়ারও সেরা বোলার স্টার্ক ছিলেন বোলিংয়ে।

স্টার্ক প্রথম ৪টি বলই ডট দেন। পঞ্চম বলটি রাসেল উড়িয়ে মারলেও কোনো রান না নেওয়ায় সেটিও ডট হয়। বলটি লেগ সাইডে উড়িয়ে মেরেছিলেন রাসেল। রান নেওয়ার জন্য তিনি ক্রিজ থেকে বের হলেও রান নিয়েই আবার ফিরে আসেন। কিন্তু সেটিকে প্রথমে ২ রান বলে ধরা হয়েছিল।

শেষ বল নিয়েও আবার গড়বড় হয়। বলটি প্রকৃতপক্ষে চার ছিল। ধারাভাষ্যকারও চার দেখান। কিন্তু আম্পায়ার দেখান ছক্কা। তখন আবার দেখানো হয় পঞ্চম বলটি ডট ছিল এবং শেষ বলে দেখায় ৬ রান। অর্থাৎ পঞ্চম বলে ২ রান ও শেষ বলে ৪ রান কিংবা পঞ্চম বল ডট ও শেষ বলে ৬ রান, যেটাই হোক হিসাবে দেখানো হয়েছে শেষ ওভারে এসেছে ৬ রান। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে শেষ ওভারে হয় ৪ রান।

এই ভুলের কারণে অবশ্য ম্যাচের ফলাফলে কোনো প্রভাব পড়েনি। তবে স্টার্কের খরচের খাতায় ২টি রান বেশি এবং রাসেলের ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংসে ২ রান বেশি যোগ হয়েছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের মোট রান ৬ উইকেটে ১৮৫ হিসাব করা হলেও প্রকৃতপক্ষে সেটি হবে ১৮৩ রান। অর্থাৎ অস্ট্রেলিয়ার জয় ৪ রানে হিসাব করা হলেও সেটা হবে ৬ রানের জয়।