Scores

স্ট্রেচারে শুয়ে মাঠ ছাড়লেন হার্দিক

আরব আমিরাতে চলছে এশিয়া কাপ ক্রিকেট, যেখানে বুধবার মুখোমুখি হয়েছে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তান ও ভারত। তবে এই ম্যাচ চলাকালেই একটি দুঃসংবাদ শুনতে হয়েছে ভারত সমর্থকদের। ম্যাচ চলাকালেই অদ্ভুত এক ইনজুরির শিকার হয়ে স্ট্রেচারে চেপে মাঠ ছেড়েছেন দলের বোলিং অস্ত্র হার্দিক পান্ডিয়া।

চোট নিয়ে মাঠ ছাড়লেন হার্দিক

নিজের ৫ম ও ইনিংসের ১৮তম ওভারে বল করার সময় এমন অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির শিকার হন হার্দিক। ওভারের পঞ্চম বলটি ডেলিভারি করার পরপরই হঠাৎ ক্রিজের উপর ভূপাতিত হন তিনি। এ সময় তাকে অবসাদগ্রস্ত মনে হচ্ছিল।

প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে এ সময় দ্রুত মাঠে ছুটে আসেন দলের ফিজিও। তবে তাতেও সেরে উঠছিলেন না হার্দিক। বাধ্য হয়েই তাই নিয়ে আসা হয় স্ট্রেচার, যাতে করে ভারতীয় পেসারকে মাঠের বাইরে নিয়ে যাওয়া হয়।

Also Read - মাঝপথে সূচির পরিবর্তনে হতাশ মাশরাফি


প্রাথমিকভাবেই ধারণা করা হচ্ছিল, আরব আমিরাতের অনভ্যস্ত উষ্ণ আবহাওয়া তথা গরমের কারণেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন হার্দিক। পরবর্তীতে জানা যায়, ‘একিউট লোয়ার ব্যাক’ ইনজুরির শিকার হয়েছেন তিনি। গরম ও পানিশূন্যতার কারণেই এমন সমস্যার মুখোমুখি হয়ে থাকেন কঠোর পরিশ্রম করা খেলোয়াড়রা। দুবাইয়ের তপ্ত পরিবেশে পেস বোলিং করা নির্দ্বিধায় কঠোর শ্রমের কাজই।

বিসিসিআই এক বিবৃতিতে জানায়, হার্দিক পান্ডিয়া একিউট লয়াদ ব্যাক ইনজুরিতে পড়েছে। এখন সে দাঁড়াতে পারছে এবং মেডিকেল টিম তাকে দেখভাল করছে।’

চোট পাওয়ার আগে ৪.৫ ওভার বল করে ২৪ রান খরচ করেন হার্দিক। তার অসমাপ্ত ওভার সমাপ্ত করতে ইনিংসের ১৮তম ওভারের শেষ বলটি করেন আম্বাতি রায়ুডু।

একনজরে ম্যাচে দুই দলের একাদশ-

পাকিস্তান: ইমাম উল হক, ফখর জামান, বাবর আজম, শোয়েব মালিক, সরফরাজ আহমেদ, আসিফ আলী, শাদাব খান, ফাহিম আশরাফ, মোহাম্মেদ আমির, হাসান আলী ও উসমান খান।

ভারত একাদশ: রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, আম্বাতি রায়ুডু, মাহেন্দ্র সিং ধোনি, দীনেশ কার্তিক, কেদার যাদব, হার্দিক পান্ডিয়া, ভুবনেশ্বর কুমার, যুজবেন্দ্র চাহাল, কুলদীপ যাদব ও জাসপ্রিত বুমরাহ।

আরও পড়ুন: মাঝপথে সূচির পরিবর্তনে হতাশ মাশরাফি

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

মাধ্যমিকের প্রশ্নপত্রে নিজের নাম দেখে কৃতজ্ঞ তামিম

মেডিকেল রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করছে সাকিবের এনওসি

এই মিরাজ অনেক আত্মবিশ্বাসী

মিঠুনের ‘মূল চরিত্রে’ আসার তাড়না

‘আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি ঠিক হবে না’