Score

স্পিন নির্ভর আফগানিস্তান

এবারের এশিয়া কাপে আফগানিস্তানের মূল শক্তি হলো বোলিং আক্রমণ। তাদের বোলিং আক্রমণের প্রধান অস্ত্র হলো তাদের স্পিনাররা। চার স্পিনার নিয়ে এশিয়া কাপের দল সাজিয়েছে আফগানিস্তান। 

স্পিন নির্ভর আফগানিস্তান
©এসিবি।

 

এশিয়া কাপে ‘বি’ গ্রুপে রয়েছে আফগানিস্তান। গ্রুপ পর্বের অন্য দুই দল হলো বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা। কাগজে কলমে সুপার ফোরে ওঠার দৌড়ে খানিকটা পিছিয়ে আছে আফগানিস্তান। র‍্যাঙ্কিংও আফগানদের পক্ষে কথা বলছে না। তবে আফগানিস্তানকে সমীহ করেই খে তে হবে শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশকে।

Also Read - জয়ের পথে ইংল্যান্ড

আফগানরা এখন ক্রিকেটের ‘জায়ান্ট কিলার’। নিজেদের দিনে তাদের সামর্থ্য রয়েছে যেকোনো দলকে হারানোর। তাই তাদের বিপক্ষে সতর্ক হয়েই খেলতে হবে শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশকে। দুই মাচের মধ্যে যেকোনো একটিতে জিতলেই যেহেতু সুপার ফোরে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়ে যাবে তাই আফগানিস্তানের সম্ভাবনা মোটেও উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

আফগানিস্তান এর সাম্প্রতিক সময়টাও বেশ ভালো যাচ্ছে। এ বছর ভারতের মাটিতে টি-টোয়েন্টি সিরিজে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করেছে আফগানিস্তান। আয়ারল্যান্ডকে তাদের মাটিতে হারিয়েছে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে সিরিজ। আইরিশদের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জিতে যেন বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কাকে সতর্কবার্তা দিয়েছে আফগানিস্তান। বাংলাদেশের মাটিতে বাংলাদেশকে ওয়ানডেতে দুইবার হারানো আফগানিস্তানকে তাই কোনোভাবেই হালকা ভাবে নেওয়া যাচ্ছে না।

চার স্পিনার নিয়ে দল সাজিয়েছে আফগানিস্তান। তাদের মধ্যে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের জন্য সবচেয়ে বড় দুই হুমকির নাম হল  লেগ স্পিনার রশিদ খান এবং অফ স্পিনার মুজিব উর রহমান। এ দুই স্পিনারের ক্ষমতা রয়েছে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের হিমশিম খাওয়ানোর। এছাড়া কার্যকরী স্পিনার অভিজ্ঞ মোহাম্মদ নবিও। তার ঘূর্ণিও হতে পারে ব্যাটসম্যানদের ভোগান্তির কারণ। বাঁহাতি স্পিনার শরাফউদ্দিন আশরাফ রয়েছেন চতুর্থ স্পিনার হিসেবে।

আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে তিন ম্যাচে সাত উইকেট নিয়ে সিরিজের সর্বাধিক উইকেট শিকারী হন রশিদ খান। ওয়ানডেতেও বজায় রাখেন সেই ধারাবাহিকতা। তিন ম্যাচে নেন আট উইকেট। ওয়ানডে সিরিজে ছয় উইকেট পান মোহাম্মদ নবি।

আফগানিস্তান দুর্ভাবনা করতে পারে ব্যাটিং নিয়ে। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে প্রায়ই ব্যাটিং ধস নেমেছিল তাদের ইনিংসে। হং কংয়ের বিপক্ষে ১৩২ রানে ৪ উইকেট থেকে ১৯৫ রানে ৯ উইকেট এবং জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৬৩ রানে ৪ উইকেট থেকে ১৯৪ রানে গুটিয়ে যাওয়া দুইটি বড় উদাহরণ। তাই টপ অর্ডারের গড়ে দেওয়া ভিত কাজে লাগাতে হবে আফগানিস্তানের মিডল অর্ডারকে। মিডল অর্ডারে থিতু হলেও হচ্ছে না বড় জুটি। সেদিকেও নজর দিতে হবে আফগানিস্তানকে।

ব্যাটিংয়ে আফগানিস্তানের মূল ভরসা মোহাম্মদ শাহজাদ, রহমত শাহ আর আসগর আফগান। নবাগত হযরতউল্লাহ যাযাই পারেন দলকে উড়ন্ত সূচনা এনে দিতে। দলের দুই অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নবি ও গুলদাবিন নাইবও পারেন ব্যাটে-বলে কার্যকরী ভূমিকা রাখতে। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছিলেন নবি। আফগানিস্তানের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন তিনি।

এর আগে সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাটিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ জিতেছে আফগানিস্তান। সেই অভিজ্ঞতাও কাজে লাগাতে চাইবে আফগানরা।

সেপ্টেম্বরের ১৫ তারিখ  গ্রুপ ‘বি’ এর বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কার ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠবে এশিয়া কাপের। ১৭ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে এশিয়া কাপ শুরু করবে আফগানিস্তান।

এক নজরে ১৭ সদস্যের আফগানিস্তান স্কোয়াডঃ আজগর আফগান (অধিনায়ক), মোহাম্মদ শাহজাদ, ইহসানুল্লাহ জানাত, জাভেদ আহমাদি, রহমত শাহ, হাশমতউল্লাহ শহীদি, মোহাম্মদ নবী, গুলবদিন নাইব, রশিদ খান, নাজিবুল্লাহ জাদরান, মুজিব-উর-রহমান, আফতাব আলম, সামিউল্লাহ শেনওয়ারি, মুরিন আহমেদ কাকার, সৈয়দ আহমাদ শেরজাদ, শারাফুদ্দিন আশরাফ ও বাফাদার মোমান্দ।

এশিয়া কাপের গ্রুপ পর্বের সূচি-

১৫ সেপ্টেম্বর- বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কা, দুবাই (গ্রুপ- বি)
১৬ সেপ্টেম্বর- পাকিস্তান বনাম বাছাইপর্ব থেকে উঠে আসা দল, দুবাই (গ্রুপ-এ)
১৭ সেপ্টেম্বর- শ্রীলঙ্কা বনাম আফগানিস্তান, আবুধাবি (গ্রুপ-বি)
১৮ সেপ্টেম্বর- ভারত বনাম  বাছাইপর্ব থেকে উঠে আসা দল, আবুধাবি (গ্রুপ-এ)
১৯ সেপ্টেম্বর- ভারত বনাম পাকিস্তান, দুবাই, (গ্রুপ-এ)
২০ সেপ্টেম্বর- বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তান, দুবাই (গ্রুপ-বি)


আরো পড়ুনঃ বাংলাদেশের মূল ভরসা পঞ্চপাণ্ডব


 

Related Articles

আফগানিস্তান পারলেও পারছে না বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা!

বিশ্বকাপের সেমিতে খেলার স্বপ্ন দেখছেন আফগানিস্তানের শাহজাদ

আফগান ক্রিকেটার মুজিবকে নিয়ে বোমা ফাটালেন সাবেক কোচ

যুব এশিয়া কাপের সেমিফাইনাল লাইন-আপ চূড়ান্ত

রেটিং বাড়ল আফগানিস্তান-ভারতের, কমলো পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কার