Score

‘স্বশিক্ষিত’ স্পিনার মুজিব

বর্তমানে রহস্যময় বোলারদের মধ্যে অন্যতম মুজিব উর রহমান। মুজিব একইসঙ্গে রিস্ট-স্পিনার ও ফিঙ্গার-স্পিনার। বলা যায় মিস্ট্রি-স্পিনারই। কারণ তার মূল অস্ত্র হচ্ছে ক্যারম বল ও গুগলি। এ দুটো বলে বিশ্বের বাঘাবাঘা ব্যাটসম্যানদের ভালোমতোই ভুগিয়েছেন এই ১৭ বছর বয়সী।

'স্বশিক্ষিত' স্পিনার মুজিব
মুজিব উর রহমান। ছবি: বিসিসিআই

 

ক্রিকইনফোর এক প্রতিবেদন অনুযায়ী মুজিব এতদূর পর্যন্ত এসেছেন নিজেকেই শিখিয়ে। তাকে পথ দেখিয়েছেন চাচা নূর আলী জাদরান, জিনি নিজেও একজন ক্রিকেটার।

Also Read - স্টেইনের চোখ ৫০০ উইকেটে

২০১০ সালে যখন আফগানিস্তান প্রথমবারের মতো টি২০ বিশ্বকাপ খেলে তখন মুজিবের কেবল ৯ বছর বয়স। তখনই প্রথম বোলিং করেন মুজিব। রাস্তায় শুরুতে টেপ টেনিস বলে ক্যারম বল করতেন। হাতের সামনে থেকে মধ্যাঙ্গুল দিয়ে বল ছুঁড়তেন। এরপর একজনের কাছ থেকে গুগলিটাও শিখে নেন।

মুজিবের কথা একটাই, প্র‍্যাকটিস এন্ড প্র‍্যাকটিস। যতক্ষণ না আঙুল ব্যথা করছে ততক্ষণ শুধুই বোলিং করতেন। তাকে বোলিং সেখানোর কেউ ছিলো না। ইউটিউব থেকে রবীচন্দ্রন অশ্বিন, অজন্তা মেন্ডিস ও সুনীল নারাইনের ভিডিও দেখে শিখে বল করতেন।

ক্রিকইনফোকে দেয়া সাক্ষাৎকার অনুযায়ী মুজিব বলেন, “যতক্ষণ না আঙুল আর সইতে পারছে না ততক্ষণ শুধু বোলিং করতাম। শক্ত বলে বল করার জন্য আমার শক্তির দরকার ছিল।”

২০১১-১২ এর দিকে মুজিবের জন্য নেটের ব্যবস্থা করেন নূর আলী। প্রথমবারের মতো ক্রিকেট বলে বল করা শুরু করলেন। নূর আলীর আরেক ভাতিজা ইব্রাহিম জাদরান একজন প্রথম-শ্রেণীর ব্যাটসম্যান। নেটে বল করার সময় মুজিবকে রানআপ বাড়াতে বলেন ইব্রাহিম।

একদিন, মুজিব যখন ১৫, আফগানিস্তানের হোস্টে এক পারিবারিক ক্রিকেট ম্যাচে অংশ নেন। সেখানে এক লেগ-স্পিনারের বিপক্ষে ব্যাট করতে নেমে দেখলেন গুগলি মেরেছে। মুজিব পরে সেই লোকের কাছ থেকে গুগলি রপ্ত করলেন। চাচা নূর তাকে গুগলি মারতে উৎসাহী করলেন।

এই ক্যারম ও গুগলিই হয়ে উঠেছে মুজিবের প্রধান অস্ত্র। এই স্পিনার বলেন, “ক্যারম ও গুগলি আমার সেরা বল এখন।”

গতবছর যখন আফগানিস্তান অ-১৯ বাংলাদেশে এসেছিল তখন বাংলাদেশ অ-১৯ এর ভরাডুবির বড় কারণ ছিল মুজিব। বিপিএলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সে ডাক পান। ডিসেম্বরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক। এবছর নিউজিল্যান্ডে যুব বিশ্বকাপে আফগানিস্তানকে সেমিফাইনালে টেনে তোলেন মুজিব।

ওই টুর্নামেন্ট চলাকালীন দক্ষিণ আফ্রিকা সফর করছিলো ভারত। অস্বাভাবিক অ্যাকশনে গুগলি করা মুজিবকে দেখে ভালো লাগলো অশ্বিনের। আইপিএল নিলামে ৪ কোটি রুপি দিয়ে মুজিবকে কিনে নেয় অশ্বিনের কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।

আইপিএলে বেশ ভালোই করেছিলেন মুজিব। আরসিবির বিরাট কোহলিকে গুগলিতে পরাস্ত করা বলটি সবার নজর কেড়ে নেয়। আইডল অশ্বিনের কাছ থেকেও শিখেছেন মুজিব। নতুন বলের বোলার মুজিবকে ম্যাচের ভিন্ন পরিস্থতিতেও বল করান দলের অধিনায়ক অশ্বিন।

মুজিব সম্পর্কে অশ্বিন বলেন, “আমরা প্রায়শই বোলিং নিয়ে কথা বলতাম। এর বাইরে তেমন কথা হতো না। আর বোলিংয়ের কথা বলতে গেলে সে ঐশ্বরিক বুদ্ধিমান। সে বেশ দক্ষ, স্বশিক্ষিত ক্রিকেটার। এটার ফলে তার কাজ অনেক সহজ হয়ে যায়। আপনি যদি তাকে নতুন কিছু করত বলেন সে প্রস্তুত। সে নিজ আগ্রহে গ্রহণ করবে।”

সদ্য বাংলাদেশ সিরিজে টাইগারদের নাস্তানাবুদ করতে অন্যতম ভূমিকা পালন করেন মুজিব। তামিম ইকবাল আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে আগে কখনোই নন-স্ট্রাইকে ওপেনিং করেননি। প্রথম ম্যাচে এলবিডব্লিউ হওয়ার পরের দুই ম্যাচে স্ট্রাইক নেন লিটন দাস।

আগামীকাল বেঙ্গালুরুতে ভারতের বিপক্ষে আফগানিস্তানের ঐতিহাসিক প্রথম টেস্ট। ১২তম দেশ হিসেবে টেস্ট খেলবে রশিদ-মুজিব-নবীদের দল। একাদশে জায়গা পেলে পাঞ্জাবের সতীর্থ লোকেশ রাহুলের উইকেট নিতে চান মুজিব।

আরও পড়ুনঃ স্টেইনের চোখ ৫০০ উইকেটে

Related Articles

ক্যারিবীয় ক্রিকেটারদের টাকা দিতে চেয়েছিল বিসিসিআই

টি-২০’তেও নড়বড়ে অস্ট্রেলিয়া

এসিসি প্রধানের দায়িত্ব নিলেন পাপন

আইসিসির প্যানেলে নতুন দুই বাংলাদেশি আম্পায়ার

শনিবার এশিয়ার ক্রিকেটের প্রধানের আসনে বসছেন পাপন