Scores

স্বাগতিক পাকিস্তানকে উড়িয়ে সেমিতে বাংলাদেশ

ইমার্জিং এশিয়া কাপে ‘বি’ গ্রুপে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে পাকিস্তানকে উড়িয়ে দিয়ে সেমি-ফাইনালে উঠে গেলো বাংলাদেশ। করাচিতে স্বাগতিকদের বিপক্ষে টাইগারদের জয় ৮৪ রানে। 

 

সকালে টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ ইমার্জিং এশিয়া কাপের অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান। টাইগার একাদশে এসেছে মাত্র একটি পরিবর্তন। খালেদ আহমেদের জায়গায় সুযোগ পেয়েছেন পেসার শফিউল ইসলাম।

Also Read - নাঈম-মোসাদ্দেকের স্পিনে দিশেহারা পাকিস্তান


বাঁচা-মরার ম্যাচে দারুণ সূচনা করেন দুই টাইগার ওপেনার-মিজানুর রহমান ও জাকির হাসান। ১০ ওভারে উদ্ভোধনী জুটি থেকে আসে ৪৫ রান। ১১তম ওভারের শেষ বলে দলীয় ৪৮ রানে মিজানুর রহমানের আউটের মাধ্যমে এই জুটি ভাঙ্গে। কুশদিল শাহ এর বলে আশিকের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরেন মিজানুর। এর পূর্বে ৪৪ বলে ৩ চারে করেন ২৫ রান।

মিজানুরের আউটের পর জাকিরের সাথে জুটি বাঁধেন নাজমুল হাসান শান্ত। ক্রিজে এসেই রানের গতি কিছুটা বাড়ানোর চেষ্টা করেন এই ক্রিকেটার। অন্যপ্রান্তে থাকা ওপেনার জাকিরও খোসল ছেড়ে বেড়িয়ে আসেন। আগের ম্যাচে ১ রানের জন্য অর্ধশতক করতে না পারলেও আজকে ঠিকই তুলে নিয়েছেন এই বামহাতি ব্যাটসম্যান। ৫২ বলে আসে জাকিরের এই অর্ধশতক। এরপর আরও আগ্রাসী হোন জাকির। দারুণ খেলতে থাকা এই ব্যাটসম্যান ২৭তম ওভারে মুসা খানের শেষ বলে লেগ বিফোর উইকেটের ফাঁদে পড়েন। এর আগে ৮ চারের সাহায্যে ৬৯ বলে করেন ৬৯ রান।

জাকিরের বিদায়ের পর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি শান্তও। অর্ধশতক থেকে মাত্র ১ রান দূরে থাকতেই ফিরতে হয়েছে সাজঘরে। এবারও আঘাত হেনেছেন মুসা খান। এই ডানহাতি পেসারের বলে লেগ বিফোর উইকেটের শিকার হোন শান্তও। ৫৪ বলে ৪ চারে ৪৯ রান করেন এই বামহাতি ব্যাটসম্যান।

 

এরপর দ্রুত বিদায় নেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। ১০ বলে ১ চারে ৬ রান করেন তিনি। ছোট ধস নামে টাইগারদের ইনিংসে। ১৫ রানে তিন উইকেট হারায় বাংলাদেশ। তবে মাঝের ধাক্কা কাটিয়ে জুটি গড়ে তোলেন আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও ইয়াসির আলি। মাত্র ৯৮ বলে ১২৬ রানের জুটি গড়েন তাঁরা। ৪৮তম ওভারের চতুর্থ বলে ইয়াসিরের আউটের মাধ্যমে এই জুটি ভাঙ্গে। ৪৬ বলে ৫ চার আর ২ ছক্কায় ৫৬ রান করেন ইয়াসির।

এদিকে ধীরে শুরু করলেও শেষের দিকে ঝড় তোলেন মোসাদ্দেক। প্রথম ৩৫ বলে মাত্র ১৭ রান করা মোসাদ্দেক শেষ পর্যন্ত ৭৪ বলে করেছেন ৮৫ রান। ইনিংসে ৩টি চারের পাশাপাশি ছিল ৪টি ছক্কা। শেষ ৩৯ বলে ৬৮ রান করেন মোসাদ্দেক। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩০৯ রানের বড় সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। মোসাদ্দেকের সাথে অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান ৪ বলে ৮ রানে অপরাজিত ছিলেন।

পাকিস্তানের পক্ষে ৪৮ রানে ৩  উইকেট নেন খুশদিল শাহ। এছাড়া ৫৫ রানে ২ উইকেট পান মুসা খান।

বড় টার্গেটে পাকিস্তানের সূচনাটা মোটেও ভালো হয়নি। কিছুদিন আগে বাংলাদেশের টেস্ট দলে অভিষেক হওয়া নাঈম হাসানের স্পিনে শুরুতেই বিপাকে পড়ে স্বাগতিকরা। দলীয় ১৪ রানে প্রথম আঘাত হানেন নাঈম। ৯ বলে ৩ রান করে সাজঘরে ফিরেন আল ইমরান। নিজের পরের ওভারেই দ্বিতীয় উইকেটের দেখা এই ডানহাতি স্পিনার। ৮ বলে ৬ রান করা সৌদকে ফেরান নাঈম।

এরপর ওপেনার জেসান মালিকের সাথে জুটি গড়ে শুরুর ধাক্কা সামলান পাকিস্তান অধিনায়ক মোহাম্মদ রেজওয়ান। ৮৮ রানের জুটি গড়ে তোলেন এই দুই ব্যাটসম্যান। তবে ভয়ঙ্ককর হবার আগেই আঘাত হানেন পেসার শরিফুল ইসলাম। ৬৭ বলে ৪৭ রান করা ওপেনার জেসান মালিককে ফেরান তিনি। সেই ধাক্কা কাটিয়ে উঠার আগেই পাকিস্তান অধিনায়ক মোহাম্মদ রেজওয়ানকে বোল্ড করেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ৫১ বলে ৩ চার আর ১ ছক্কায় ৪৬ রান করেন রেজওয়ান।

এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে পাকিস্তান। ৩০.২ ওভারে ১৪২ রানেই হারায় ৭ উইকেট। তবে সুলেমন সাফকাতকে নিয়ে লড়াই চালিয়ে যান খুশদিল শাহ। অষ্টম উইকেটে যোগ করেন ৫৬ রান। যার মাঝে সুলেমনের ছিল ১৬ রান। দলীয় ১৯৬ রানের মাথায় সুলেমনকে ফেরান শফিউল ইসলাম। এরপর পাকিস্তানের সর্বোচ্চ স্কোরার খুশদিল শাহকেও ফেরান এই পেসার। খুশদিল ৫৮ বলে ২ চার আর ৪ ছক্কায় করেন ৬১ রান। ৪৬.৫ ওভারে ২১৫ রানেই গুটিয়ে যায় পাকিস্তান। টাইগাররা জয় পায় ৮৪ রানে। শেষ উইকেটটি পান তানভীর ইসলাম।

বাংলাদেশের পক্ষে ১০ ওভারে ৩৬ রানে ৩টি উইকেট নেন নাঈম হাসান। এছাড়া মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ৭ ওভারে ৩২ রানে ২টি এবং ৮ ওভারে ৪১ রানে ২টি উইকেট নেন শফিউল ইসলাম।

পরাজয় দিয়ে শুরু করলেও টানা দুই জয়ে সেমিফাইনালে চলে গেলো বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

বাংলাদেশঃ ৩০৯/৫ (৫০ ওভার)
মোসাদ্দেক ৮৫*, জাকির ৬৯, ইয়াসির ৫৬, শান্ত ৪৯, মিজানুর ২৫, আফিফ ১০, নুরুল ৮*
খুশদিল শাহ ৩/৪৮, মুসা খান ২/৫৫

পাকিস্তানঃ ২২৫/১০ (৪৬.৫ ওভার)
খুশদিল ৬১, জিসান ৪৭, রিজওয়ান ৪৬
নাঈম ৩/৩৬, মোসাদ্দেক ২/৩২, শফিউল ২/৪১

ম্যাচসেরাঃ মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। 

[আরও পড়ুনঃ ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ, একাদশে পাঁচ পরিবর্তন]

 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

মেন্ডিসের কাছে স্বপ্নভঙ্গ বাংলাদেশের

বাংলাদেশের পঞ্চম সাফল্য, ম্যাচে নাটকীয় মোড়

নাঈমের পর আফিফের আঘাত, বিপাকে শ্রীলঙ্কা

শুরুতেই লঙ্কান শিবিরে বাংলাদেশের আঘাত

মিজানুর-ইয়াসিরের অর্ধশতকে বাংলাদেশের লড়াকু সংগ্রহ