স্যামিদের সাথে বর্ণবাদের অভিযোগ অস্বীকার করছেন সতীর্থরা

ড্যারেন স্যামি ও থিসারা পেরেরার সাথে আইপিএলে বর্ণবাদী আচরণের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে স্যামির সাথে খেলা সতীর্থরা। তাদের দাবি, তারা কখনোই স্যামি বা পেরেরাকে ‘কালু’ বলে অভিহিত করতে শোনেননি।

স্যামিদের সাথে বর্ণবাদের অভিযোগ অস্বীকার করছেন সতীর্থরা

Advertisment

গত ৬ জুন অভিযোগ করা হয়, কৃষ্ণাঙ্গ ক্রিকেটার স্যামিকে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের সতীর্থরা ডাকতেন ‘কালু’ বলে। একইভাবে আখ্যায়িত করা হত শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার থিসারা পেরেরাকে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই গুরুতর অভিযোগ করেছিলেন স্যামি নিজেই। তার এমন অভিযোগের পর ক্রিকেট বিশ্বে হইচই পড়ে যায়।





একসময় হায়দরাবাদে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে স্যামির সাথে খেলা পার্থিব পেটেল বলেন, ‘আমার মনে পড়ে না কাউকে এমন শব্দ ব্যবহার করতে শুনেছি।’ একই দাবি স্যামির একসময়ের হায়দরাবাদ সতীর্থ ভেনুগোপাল রাওয়েরও। তিনি জানান, ‘এ ব্যাপারে আমি অবগত নই।’ এমনকি এই ইস্যুতে মুখ খুলেছেন ইরফান পাঠানও। তার দাবি, ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটে বর্ণবাদ দেখা গেলেও আইপিএলে বর্ণবাদের এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি।

ইরফান বলেন, ‘২০১৪ সালে আমি স্যামির সাথে হায়দরাবাদে খেলেছি। এমন ঘটনা ঘটে থাকলে এটা নিয়ে অবশ্যই আলোচনা হত। তবে আমাদের নাগরিকদের এ নিয়ে সচেতন করা উচিৎ, কারণ ঘরোয়া ক্রিকেটে আমি বর্ণবাদ দেখেছি।’






স্যামির দাবির প্রেক্ষিতে তার ও পেরেরার পক্ষ নিয়ে যারা আইপিএল ও হায়দরাবাদকে কচুকাটা করছিলেন, পার্থিব, ভেনুগোপাল ও ইরফানের দাবি পর তাদের একটু নড়েচড়ে বসতেই হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত ৬ জুন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে স্যামি লিখেছিলেন, ‘সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে খেলতাম, তখন আমাকে ও থিসারা পেরেরাকে “কালু” নামে ডাকা হত। আমি তখন ভাবতাম এর অর্থ হয়ত তেজি ঘোড়া। আমি এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।