Scores

হঠাৎ যে কারনে অবসর নিতে বাধ্য হলেন মাশরাফি

আজ মঙ্গলবার টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন মাশরাফি। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার পর সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের ক্রিকেটে তাকে আর দেখা যাবে না।

হঠাৎ যে কারনে অবসর নিতে বাধ্য হলেন মাশরাফি।
হঠাৎ যে কারনে অবসর নিতে বাধ্য হলেন মাশরাফি।

বাংলাদেশের ক্রিকেটের এক উজ্জল নক্ষত্রের নাম মাশরাফি বিন মর্তুজা। বাংলাদেশের ক্রিকেটের সোনালী সময়ের বার্তাবাহক ও লড়াকু অধিনায়ক। তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ দল ঘুরে দাঁড়িয়েছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। একের পর এক সাফল্য এসে ধরা দিয়েছে তার হাত ধরেই।

তবে কি কারনে হঠাৎ এমন সিদ্ধান্ত নিলেন মাশরাফি ? এটা কি নিছক তার একান্ত সিদ্ধান্ত, নাকি এতে রয়েছে অন্য কারো হাত ? আজ সন্ধ্যা থেকেই এমন প্রশ্নে ঘুরপাক খাচ্ছে দেশে-বিদেশে তার কোটি-কোটি ভক্তদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কেন্দ্র-বিন্দ্রে। সত্য উদঘাটন করতে গিয়ে যানা গেছে তার সমর্থকদের আশঙ্কাই বাস্তব।

Also Read - মাশরাফিকে রিয়াদের চিঠি


যানা গিয়েছে, জাতীয় দলের প্রধান কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহে বেশ কিছুদিন আগেই বিসিবি কর্তাদের জানিয়েছেন, মাশরাফি, তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিমকে তিনি টি-টোয়েন্টি দলে জরুরি মনে করেন না। আপাতত কোচের ভাবনার বাস্তবায়ন শুরু মাশরাফিকে দিয়েই। শ্রীলঙ্কায় দলের সাথে যোগ দেয়ার অনেকটা সাথে সাথেই বিসিবির শীর্ষ কর্তারা তাকে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ার নিয়ে ভাবতে বলেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বিডিনিউজ২৪।

তাই ওয়ানডে সিরিজ জুড়ে চাপটা ছিল প্রবাহমান। সেই চাপ নিয়েই খেলেছেন মাশরাফি, নেতৃত্ব দিয়েছেন দলকে। ঘনিষ্ঠজনদের বলেছেন, লড়াইটা চালিয়ে যাবেন। খেলে যাবেন টি-টোয়েন্টি। ওয়ানডে সিরিজ শেষে কোচ আবারও বিসিবি কর্তাদের বলেন, টি-টোয়েন্টি নিয়ে মাশরাফির সঙ্গে কথা বলতে। বিসিবির একাধিক সূত্র বিডিনিউজকে নিশ্চিত করেছে, সোমবার রাতে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান দলের সিনিয়র চার ক্রিকেটারকে ডেকে কথা বলেন। জানিয়ে দেন, তিন সংস্করণে তিন অধিনায়ক চায় বিসিবি।

এরপরই ভবিষ্যতের ছবিটা পরিষ্কার হয়ে ওঠে মাশরাফির সামনে। ঘনিষ্ঠজনদের বলেছেন, লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ইচ্ছেটাও তখনই মরে যায়। কোচের ভাবনার সঙ্গে লড়াই করা যায়, কিন্তু নিজেদের অভিভাবক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তো লড়াই চলে না! মঙ্গলবার ম্যাচের আগে দুপুরেই পরিবারের সবার সঙ্গে কথা বলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন মাশরাফি। এই সিরিজের পর আর খেলবেন না আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি।

উল্লেখ্য, ২০০৬ সালে খুলনায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয় মাশরাফি বিন মুর্তজার। এরপর থেকে আজ পর্যন্ত ৫২টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। বল হাতে নিয়েছেন ৩৯ উইকেট। যা বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টিতে তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেট। তার সেরা বোলিং ফিগার ১৯ রানের বিনিময়ে ৪ উইকেট। ব্যাট হাতে ৩৭ ইনিংসে ব্যাট করে তিনি করেছেন ৩৬৮ রান। সর্বোচ্চ ৩৬। অপরাজিত ছিলেন ১০ বার।

আজকের ম্যাচসহ রেকর্ড ২৭ ম্যাচে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন মাশরাফি। তার নেতৃত্বতে বাংলাদেশ দল জিতেছে ৯টি ম্যাচ। যা বাংলাদেশের কোনো অধিনায়কের নেতৃত্বে টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ জয়।

  • মাকসুদুল হক, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম।
নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
Tweet 20
fb-share-icon20

Related Articles

‘প্রথম দশ ওভারেই আমরা হেরে গেছি’

ওয়ানডেতে সবার ওপরে নড়াইল এক্সপ্রেস

রেকর্ড গড়ে জিততে হবে বাংলাদেশকে

মাশরাফির চোখে দুদলই সমান

ডাম্বুলায় দেখা যাবে আসল মুস্তাফিজকে