হাসান, আসগর ও রশিদকে আইসিসির জরিমানা

পৃথক তিনটি ঘটনায় আইসিসির কোড অব কন্ডাক্ট ভঙ্গ করে শাস্তি পেয়েছেন পাকিস্তানি ক্রিকেটার হাসান আলী ও আফগান ক্রিকেটার আসগর আফগান ও রশিদ খান। চলমান এশিয়া কাপে তাদের ত্রুটি চোখে পড়লে শাস্তির আওতায় আনে আইসিসি।

হাসান, আসগর ও রশিদকে আইসিসির জরিমানা

শাস্তি হিসেবে তিন ক্রিকেটারকেই তাদের ম্যাচ ফি’র ১৫ শতাংশ করে জরিমানা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার আবুধাবিতে এশিয়া কাপের সুপার ফোরের ম্যাচে এক মাত্রার অপরাধের শাস্তি হিসেবে এই জরিমানা গোনেন তারা।

তবে শুধু জরিমানাই নয়, নামের পাশে যুক্ত হয়েছে ডিমেরিট পয়েন্টও। শাস্তি হিসেবে জরিমানার পাশাপাশি প্রত্যেকে পেয়েছেন একটি করে ডিমেরিট পয়েন্ট, যা পরবর্তীতে তাদের সতর্ক আচরণের ক্ষেত্রে প্রভাব রাখবে।

Also Read - কুকের বদলি নিয়েই শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে ইংল্যান্ড

বৃহস্পতিবারের ম্যাচে ক্রিকেটের ‘স্পিরিটের সাথে সাংঘর্ষিক’ অপরাধে অভিযুক্ত হন আফগান অধিনায়ক আসঘর ও পাকিস্তানি পেসার হাসান। আইসিসির কোড অব কন্ডাক্টের ২.১.১ নম্বর ধারা ভঙ্গের অভিযোগে তাদেরকে অভিযুক্ত করা হয়। অন্যদিকে ২.১.৭ ধারায় অভিযুক্ত হন আফগান লেগস্পিনার রশিদ। ব্যাটসম্যানকে আউট করার পর আগ্রাসী ভঙ্গির কারণে বোলার বা ফিল্ডারদের এই শাস্তি দেওয়া হয়ে থাকে।

ম্যাচের প্রথম ইনিংসের ৩৭তম ওভারে রান নেওয়ার সময় বোলার হাসান আলীকে কাঁধ দিয়ে ধাক্কা দেন আফগানিস্তানের অধিনায়ক আসগর, যিনি তখন ব্যাট করতে ক্রিজে অবস্থান করছিলেন। এর ফলে ২৪ মাস সময়সীমার মধ্যে দ্বিতীয় ডিমেরিট পয়েন্ট পেতে হয়েছে তাকে। তবে হাসানের এটিই প্রথম ডিমেরিট পয়েন্ট। হাসানের বিরুদ্ধে অভিযোগ, আফগানিস্তানের ইনিংসের ৩৩তম ওভারে স্ট্রাইকিং প্রান্তে থাকা ব্যাটসম্যান হাশমাতউল্লাহ শাহিদির দিকে অহেতুক বল ছুঁড়ে মারার ভঙ্গি করেছিলেন তিনি। ঐ ঘটনার রেশ ধরেই ৩৭তম ওভারে তাকে ধাক্কা দেন আফগান অধিনায়ক আসগর।

অন্যদিকে হাসানের মত এই প্রথম ডিমেরিট পয়েন্ট পাওয়ার অভিজ্ঞতা হয়েছে রশিদেরও। পাকিস্তানের ইনিংসের ৪৭তম ওভারে আসিফ আলীকে আউট করার পর তাকে সাজঘরের পথ উদ্দেশ্য করে ইশারা করেন, আইসিসির নীতিমালা অনুযায়ী যা অপরাধ হিসেবে গণ্য। আর এ কারণে হাসান এবং আসঘরের মত শাস্তি পেয়েছেন আফগানিস্তানের বিস্ময়-বালকও।

আরও পড়ুন: কুকের বদলি নিয়েই শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে ইংল্যান্ড