হাসারাঙ্গার ৫ উইকেটে হায়দরাবাদকে ধ্বসিয়ে জিতল ব্যাঙ্গালোর

0
777

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে বড় জয় পেয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। ডু প্লেসি-কার্তিক ঝড়ে আগে ব্যাট করে ১৯২ রান সংগ্রহ করে ব্যাঙ্গালোর। লেগ-স্পিনার ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা ৫ উইকেট শিকার করে ধ্বসিয়ে দেন হায়দরাবাদকে।

হাসারাঙ্গার ৫ উইকেটে হায়দরাবাদকে ধ্বসিয়ে জিতল ব্যাঙ্গালোর
৬৭ রানে জিতল ব্যাঙ্গালোর

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে ব্যাট করতে নামে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। ম্যাচের প্রথম বলেই বাঁহাতি স্পিনার জগদীশ সূচিতের বলে আউট হয়ে গোল্ডেন ডাকের স্বাদ পান বিরাট কোহলি। চলতি আসরে এটি কোহলির তৃতীয় গোল্ডেন ডাক। হায়দরাবাদের বিপক্ষে দুই ম্যাচেই গোল্ডেন ডাক পেলেন তিনি। অথচ ২০০৮ থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত আইপিএলে সবমিলিয়েই মাত্র তিনটি গোল্ডেন ডাক ছিল কোহলির।

Advertisment

কোহলিকে হারানোর ধাক্কা দ্রুতই সামলে ওঠে ব্যাঙ্গালোর। দ্বিতীয় উইকেটে ১০৫ রানের জুটি গড়েন ফাফ ডু প্লেসি ও রজত পাতিদার। ব্যাঙ্গালোরের ভিত গড়ে দেওয়া এই জুটিও ভাঙেন সূচিত, ইনিংসের ১৩তম ওভারে। ৩৮ বলে ৪৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন রজত। তার ইনিংসে ছিল চারটি চার ও দুটি ছক্কা।

তৃতীয় উইকেটে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের সাথে জুটিতে ৫৪ রান যোগ করেন ডু প্লেসি। ম্যাক্সওয়েল আউট হলে ভাঙে এই জুটি। কার্তিক ত্যাগীর শিকার হওয়ার আগে ম্যাক্সওয়েল করেন ২৪ বলে ৩৩ রান। তার ব্যাট থেকে আসে তিনটি চার ও দুইটি ছক্কা।

হাসারাঙ্গার ৫ উইকেটে হায়দরাবাদকে ধ্বসিয়ে জিতল ব্যাঙ্গালোর
ঝড়ো ইনিংস খেলেন ডু প্লেসি ও কার্তিক

শেষ ১০ বলে ডু প্লেসি ও দীনেশ কার্তিকের জুটিতে আসে ৩৩ রান। কার্তিক একাই ৮ বলে ৩০ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেন। তিনি হাঁকান একটি চার ও চারটি ছক্কা। ৫০ বলে ৭৩ রানে অপরাজিত থাকেন ডু প্লেসি। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল আটটি চার ও দুইটি ছক্কায়। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ১৯২ রান করে ব্যাঙ্গালোর।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে কোনো বল মোকাবেলা করার আগেই রান-আউট হয়ে ডায়মন্ড ডাকের স্বাদ পান সানরাইজার্স হায়দরাবাদের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। রানের খাতা খোলার আগেই প্রথম ওভারেই গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের বলে বোল্ড হন আরেক ওপেনার অভিষেক শর্মা। এইডেন মারক্রাম ও রাহুল ত্রিপাটি ইনিংস গড়ার চেষ্টা করেন।

তাদের ৫০ রানের জুটি ভেঙে যায় মারক্রামকে ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা শিকার করলে। ২৭ বলে ২১ রান করে বিদায় নেন মারক্রাম। চতুর্থ উইকেটে ত্রিপাটির সাথে ৩৮ রানের জুটি গড়ে নিকোলাস পুরানও হাসারাঙ্গার শিকার হন। পুরানের ব্যাট থেকে আসে ১৪ বলে ১৯ রান। ত্রিপাটি আউট হন অর্ধশতক হাঁকিয়ে। জশ হ্যাজলউডের শিকার হওয়ার আগে তিনি করেন ৩৭ বলে ৫৮ রান। একই ওভারে ত্যাগীকেও শিকার করেন হ্যাজলউড।

দ্বিতীয় স্পেলে ফিরে জগদীশ সূচিত, শশাঙ্ক সিং ও উমরান মালিককে শিকার করে ৫ উইকেট নেন হাসারাঙ্গা। ভুবনেশ্বর কুমারকে আউট করে হায়দরাবাদের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন হার্শাল প্যাটেল। ফলে ৬৭ রানের ব্যবধানে জয় পায় ব্যাঙ্গালোর। হায়দরাবাদ অল-আউট হয় ১২৫ রানে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ১৯২/৩ (২০ ওভার)
ডু প্লেসি ৭৩*, রজত ৪৮, ম্যাক্সওয়েল ৩৩, কার্তিক ৩০*;
সূচিত ২/৩০।

সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ১২৫/১০ (১৯.২ ওভার)
ত্রিপাটি ৫৮, মারক্রাম ২১, পুরান ১৯;
হাসারাঙ্গা ৫/১৮, হ্যাজলউড ২/১৭।

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ৬৭ রানে জয়ী।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।