Scores

হেটমেয়ারের শতকে বড় লক্ষ্য ছুঁড়ে দিল উইন্ডিজ

গায়ানায় তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ২৭১ রানের বড় সংগ্রহ গড়েছে স্বাগতিক উইন্ডিজ। সিরিজ নিশ্চিত করতে বাংলাদেশের লক্ষ্য ২৭২ রান। ১২৫ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন শিমরন হেটমেয়ার।

টস জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তাজা। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই ক্রিস গেইল বাউন্ডারি হাঁকিয়ে স্বাগতিকদের রানের খাতা খোলেন। তবে এরপর মাশরাফি বিন মুর্তাজা ও মেহেদি হাসান মিরাজ আটকে রাখেন দুই ওপেনার ক্রিস গেইল ও এভিন লুইসকে।

সপ্তম ওভারে ক্রিস গেইল ও এভিন লুইসের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন মাশরাফি বিন মুর্তাজা। প্রথম ম্যাচের মতো এ ম্যাচেও এভিন লুইসকে সাজঘরে ফেরান মাশরাফি। মাশরাফির বলে লুইসের ব্যাট ফাঁকি দিয়ে প্যাডে আঘাত হানলে এলবিডব্লিউ হন তিনি। রিভিউ নিলেও তা সফল হয়নি। ১ চার ও ছয়ে ১২ রান করেন লুইস।

Also Read - বিগ ব্যাশকেও বিদায় বললেন জনসন


সাই হোপ আর ক্রিস গেইল দ্বিতীয় উইকেটে গড়েন ২৬ রানের জুটি। দলীয় ৫৫ রানের মাথায় ক্রিস গেইলকে ফেরান মেহেদি হাসান মিরাজ। মিরাজের বলে সুইপ করতে গিয়ে এলবিডব্লিউ হন গেইল। ৩ চার ও ১ ছয়ের সাহায্যে করেন ৩৮ বলে ২৯। সাই হোপ থিতু হলেও বড় স্কোর গড়তে পারেননি। ৪৩ বলে ২৫ রান করে সাকিব আল হাসানের বলে হোপ ক্যাচ দেন সাব্বির রহমানকে।

নিজের প্রথম ওভারেই দলকে উইকেত এনে দেন পেসার রুবেল হোসেন। রুবেলের বলে জেসন মোহাম্মদের ইনসাইড এজ হয়ে বল চলে যায় মুশফিকুর রহিমের গ্লাভসে। ১২ রান করে জেসন সাজঘরে ফিরে গেলে ১০৩ রানের মাথায় চতুর্থ উইকেটের পতন ঘটে।

উইন্ডিজ কোনো ব্যাটসম্যানকেই বড় স্কোর গড়তে দেয়নি বাংলাদেশ। বড় জুটি গড়তে না দিয়ে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট শিকার করে উইন্ডিজদের ব্যাকফুটে নিয়ে যায় বাংলাদেশের বোলাররা। সেখান থেকে স্বাগতিকরা ঘুরে দাঁড়ায় শিমরন হেটমেয়ার আর রোভম্যান পাওয়েলের জুটিতে ভর করে। দুজন মিলে দারুণভাবে সামলান বাংলাদেশের বোলারদের। সচল রাখেন রানের চাকা। দায়িত্ব নিয়ে ব্যাটিং করে অর্ধশতক পূর্ণ করেন শিমরন হেটমেয়ার। টানা দ্বিতীয় অর্ধশতক তার।

হেটমেয়ারকে দারুণ সঙ্গ দেন রোভম্যান পাওয়েল। ধীরে ধীরে বাংলাদেশের বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে রানের গতি বাড়িয়ে নিচ্ছিলেন দুজন। রোভম্যান পাওয়েলকে ফিরিয়ে দিয়ে জুটি ভাঙেন রুবেল হোসেন। রুবেলের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ৪৪ রান করে বোল্ড হন পাওয়েল। ভাঙে ১০৩ রানের জুটি।

এ জুটি ভেঙে আবার খেলায় ফিরে আসে বাংলাদেশ। চার উইকেটে ২০৫ রান থেকে ২৪২ রানের মাথায় নবম উইকেট শিকার করে বাংলাদেশ।

এক প্রান্ত আগলে রাখেন হেটমেয়ার। অবশ্য এক ওভারেই পাওয়েলের পর হেটমেয়ারকে ফেরাতে পারতেন রুবেল। রুবেলের বলে ডিপ মিড উইকেটে তুলে মারেন হেটমেয়ার। ক্যাচ ফসকে যায় সাকিব আল হাসানের হাত থেকে, পরিণত হয় ছক্কায়। ব্যাটিংয়ে এসে চড়াও হতে চেয়েছিলেন উইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার (৭)। তবে পাওয়ালের বিদায়ের পরের ওভারে ফিরেন তিনি। সাকিব আল হাসানের বলে ছক্কা হাঁকানোর পরের বলে ডাউন দ্যা উইকেটে এসে আবারো বাউন্ডারি মারতে চাইলে স্টাম্পিং হন তিনি।

অ্যাশলে নার্সকে নিয়ে শতকের পথে এগিয়ে যান হেটমেয়ার। তবে নার্স বেশিক্ষণ সঙ্গ দিতে পারেননি। ৮ বলে ৩ রান করে মুস্তাফিজুর রহমানের বলে লেগ সাইডে খেলতে চাইলেও ব্যাট আর বলের মধ্যে সংযোগ ঠিকমতো না ঘটলে বল হাওয়ায় ভেসে চলে যায় থার্ড ম্যানে থাকা তামিম ইকবালের কাছে। পরের ওভারে কিমো পলকে ফেরান রুবেল। হুক করে চার মারার এক বল পরেই রুবেলের বলে মুশফিকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরত যান কিমো পল।

৪৮ তম ওভারে মুস্তাফিজুরের বলে সিঙ্গেল নিয়ে শতক পূর্ণ করেন হেটমেয়ার। নিজের ক্যারিয়ারের প্রথম শতক হাঁকান তিনি। ক্যারিবিয়ানদের মাটিতে সর্বকনিষ্ঠ উইন্ডিজ ব্যাটসম্যান হিসেবে শতক হাঁকান হেটমেয়ার। পরের বলেই বিশুকে বোল্ড করেন মুস্তাফিজুর।

বিধ্বংসী হয়ে উঠেন হেটমেয়ার। রুবেলের করা ৪৯ তম ওভারের প্রথম দুই বলে মিড উইকেট দিয়ে দুই বিশাল ছক্কা হাঁকান। হেটমেয়ারের ব্যাটে আড়াইশ’ পার করে স্বাগতিকরা।  পরের বলে কোমোরের ওপরে ফুল্টস হলে নো বল হয়। বেশ খরুচে এক ওভার করেন রুবেল। ঐ ২২ রান সংগ্রহ করে বড় পুঁজি পেয়ে যায় উইন্ডিজরা।

শেষ ওভারে মুস্তাফিজুররের বলেও ছক্কা হাঁকান হেটমেয়ার। ঐ ওভারের তৃতীয় বলে হেটমেয়ার রান আউট হয়ে ফিরে যান। ২৭১ রান করে থামে তারা। ৯৩ বলে ক্যারিয়ার সর্বোচ্চ ১২৫ রান করেন হেটমেয়ার। তার ইনিংসে ছিল ৩ টি চার ও ৭ টি ছক্কা। বাংলাদেশের হয়ে তিন উইকেট পান রুবেল। দুই উইকেট শিকার করেন মুস্তাফিজুর ও সাকিব।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

উইন্ডিজ ২৭১/১০, ৪৯.৩ ওভার
হেটএম্যার ১২৫, ্পাওয়েল ৪৪, গেইল ২৯
রুবেল ৩/৬১, মুস্তাফিজ ২/৪৪, সাকিব ২/৪৫

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

রিয়াদের ব্যাটে চড়ে বাংলাদেশের লড়াকু সংগ্রহ

টপ অর্ডারে বিপর্যয়, মিঠুনের ব্যাটে মান বাঁচাল বাংলাদেশ

জাকির-রাব্বির ব্যাটে ‘এ’ দলের লড়াকু সংগ্রহ