হেলমেট পড়বে বোলাররাও!

0
836

আশির দশকের ক্রিকেটে বড় বড় তারকা ব্যাটসম্যানরা ব্যাটিং করতেন হেলমেট ছাড়াই। তখনকার পেস বোলাররা ছিলেন একেকজন গতিদানব। উইকেটও ছিল বেশ পেস বান্ধব। সময় বদলেছে। ২০১৭ সালে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ফিলিপ হিউজের মৃত্যুর পর ব্যাটসম্যানদের জন্য হেলমেট পরিধানকে বাধ্যতামূলক করেছে আইসিসি। এখন শোনা যাচ্ছে, হেলমেট ব্যবহার করবেন স্বয়ং বোলাররাও!

 

বোলারদের জন্য বিশেষভাবে প্রস্তুতকৃত হেলমেট

 

Advertisment

টি-টোয়ান্টির এই যুগে সত্যি করেই নিরাপদ নন বোলার ও অন-ফিল্ড আম্পায়াররা। এই কারণেই বিভিন্ন টি-টোয়েন্টি লীগে আম্পায়ারদের দেখা যায় হেলমেট পড়ে ম্যাচ পরিচালনা করতে। আম্পায়ার ব্রুস অক্সেনফোর্ডকে দেখা যায় শিল্ডের মতো দেখতে একধরণের প্রতিরোধক ব্যবহার করতে। কিন্তু বোলাররা রয়ে গেছে অনিরাপদ। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানদের ধুন্ধুমার ব্যাটিংয়ের কারণে বোলারদের নিরাপত্তা আগের চেয়ে যে অনেক বেশি কমে গেছে, তাতে সন্দেহ নেই মোটেও।

 

হেলমেট বুবহার করছেন আম্পায়াররাও

 

বোলারদের ফলো-থ্রুর সময়ে ব্যাটসম্যানদের মারা সোজা শটগুলো হতে পারে বোলারদের জন্য ভয়ংকর। বোলারদের রি- অ্যাকশন টাইম অনেক কম থাকে বিধায় সেই শটগুলো ধরার সুযোগ তেমন থাকে না বোলারদের যা বোলারদের জন্য ডেকে আনতে পারে বিশাল বিপদ।  নিকট অতীতেও এমন অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়েছেন অনেক বোলারই।

সম্প্রতি কলকাতার ইডেন গার্ডেনে আয়োজিত এক ম্যাচে এমন ঘটনার শিকার হয়েছেন অশোক দিন্দা। ব্যাটসম্যানের মারা জোরালো শট প্রতিহত করতে পারেননি তিনি, পারেননি ক্যাচটি ধরতে। বলটি তার মাথায় আঘাত করলে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। অবশ্য সুখবর এই যে, প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়ার পর আবার বোলিং করতে শুরু করেছিলেন তিনি।

 

কিন্তু চোখে ঘোলা দেখতে থাকায় তাকে স্থানীয় এক হাসপাতালে নেয়া হয়। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তাকে শঙ্কামুক্ত ঘোষণা করা হলেও তাকে দুদিন বিশ্রাম নিতে বলা হয়। এই ঘটনার পর বেশ নড়ে-চড়ে বসেছেন অনেক সাবেক-বর্তমান ক্রিকেট তারকারা, প্রশ্ন তুলেছেন বোলারদের নিরাপত্তা নিয়ে। বিশেষ করে ভারতীয় স্পিনার রবীচন্দ্রন অশ্বিন ও পেসার জয়দেব উনাদকাটকে দেখা গেছে বেশ সরব ভূমিকায়।

উনাদকাট দিন্দার সেই ভিডিও শেয়ার করে এর সমাধান হিসেবে বোলারদের হেলমেট ব্যবহারকে উল্লেখ করেছেন। আর এই সম্ভাব্য সমাধানের সাথে একমত প্রকাশ করেছেন অশ্বিন।

কিছুদিন আগে বোলারদের জন্য বিশেষভাবে প্রস্তুতকৃত হেলমেট বাজারে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার স্বনামধন্য ক্রীড়াসামগ্রী তৈরির প্রতিষ্ঠান কোকাবুরা। তাদের এই সিদ্ধান্তকে সমর্থনও জানিয়েছিল এমসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট কমিটি। কিন্তু এরপর আর তেমন কোন খবর জানা যায়নি এই উদ্যোগের ব্যাপারে। এখন দেখা যাক,  অশোক দিন্দার এই ঘটনার পরে আবার কোন সিদ্ধান্ত আসে কিনা।